| |

সর্বশেষঃ

নির্বাচনের আগে স্কুলে ভর্তি পরীক্ষা অনিশ্চিত

আপডেটঃ ১:১৯ অপরাহ্ণ | নভেম্বর ১৬, ২০১৮

নিজস্ব প্রতিবেদক : আসন্ন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের আগে সরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ভর্তি পরীক্ষা নিয়ে অনিশ্চিয়তা দেখা দিয়েছে। নির্বাচনের পুনঃতফসিল দেয়ায় শিক্ষা মন্ত্রণালয় চাইছে ১৭, ১৮ ও ১৯ ডিসেম্বরের মধ্যে ভর্তি পরীক্ষা শেষ করতে। আর প্রথম শ্রেণিতে লটারি অনুষ্ঠান করতে চাইছে ২০ ডিসেম্বর। এমন প্রস্তাব দিয়ে নির্বাচন কমিশনের (ইসি) অনুমতি চেয়ে চিঠি দিচ্ছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়। ১৮ নভেম্বর এই চিঠি নির্বাচন কমিশনে পাঠাবে শিক্ষা মন্ত্রণালয়। শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগ সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের একটি দায়িত্বশীল সূত্র বলছে, ইসি এখন জাতীয় নির্বাচন নিয়ে মহাব্যস্ত। তারা স্কুলের ভর্তি পরীক্ষা নিয়ে এখন মাথা ঘামাবে না। ফলে নির্বাচনের আগে স্কুলের ভর্তি পরীক্ষা না হওয়ার সম্ভাবনাই বেশি।

এদিকে ১ জানুয়ারি বই উৎসব। সারাদেশে নতুন বই শিক্ষার্থীদের হাতে তুলে দেবে সরকার। এর মধ্যে যদি শিক্ষার্থীরা স্কুলে ভর্তি হতে না পারে তাহলে তাদের শিক্ষাকার্যক্রম পিছিয়ে যেতে পারে। এ কারণে বাড়তি চাপের মুখে পড়তে পারে শিক্ষার্থী ও অভিভাবকরা।

মাউশি জানায়, জাতীয় নির্বাচনের তফসিল ঘোষণার পর আগের নির্ধারিত সময়সূচি পরিবর্তন করে পরীক্ষা পিছিয়ে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছিল মাউশি। তবে পুনঃতফসিলে ভোট পিছিয়ে গেলে আবার আগের তারিখ ঠিক রেখে পরীক্ষার প্রস্তুতি নিয়েছে মাউশি।

গত মঙ্গলবার শিক্ষা মন্ত্রণালয়কে আগের নির্ধারিত ১৭, ১৮ ও ১৯ ডিসেম্বর ভর্তি পরীক্ষা এবং ২০ ডিসেম্বর প্রথম শ্রেণির লটারি অনুষ্ঠানের প্রস্তাব পাঠায় মাউশি। মাউশির এই প্রস্তাবই অনুমোদনের জন্য ইসিতে যাচ্ছে।

মাউশির পরিচালক (মাধ্যমিক) অধ্যাপক ড. আব্দুল মান্নান এ প্রসঙ্গে বলেন, ভোট পিছিয়ে যাওয়ায় আমরা আগের দিন তারিখ ঠিক রেখে প্রস্তাব করেছি মন্ত্রণালয়কে। আগের নির্ধারিত সময়সূচি অনুযায়ী, ১৭, ১৮ ও ১৯ ডিসেম্বর ভর্তি পরীক্ষা এবং ২০ ডিসেম্বর প্রথম শ্রেণির ভর্তির জন্য লাটারি। মন্ত্রণালয় সিদ্ধান্ত নিলে নির্ধারিত সময়ে ভর্তি পরীক্ষা ও লটারি অনুষ্ঠিত হবে। তবে মন্ত্রণালয়ের পরামর্শেই তারিখ নির্ধারিত হবে।

আরোও পড়ুন...

HostGator Web Hosting