| |

সর্বশেষঃ

ডিসেম্বর মাসকে ভয় পায় জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট : নাসিম

আপডেটঃ ৩:২৯ অপরাহ্ণ | নভেম্বর ১৭, ২০১৮

নিজস্ব প্রতিবেদক : আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য ও ১৪ দলীয় জোটের মুখপাত্র মোহাম্মদ নাসিম বলেছেন, ডিসেম্বর মুক্তিযুদ্ধে বিশ্বাসী দল কখনও পরাজিত হয়নি, তাই এ মাসে নির্বাচন করতে ভয় পায় জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট।

শনিবার দুপুরে বঙ্গবন্ধু এভিনিউতে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে ১৪ দলীয় জোটের বৈঠক শেষে তিনি এ কথা বলেন।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, ডিসেম্বর মাসে কোনো সময়ই বাঙালি মুক্তিযুদ্ধে বিশ্বাসী দল পরাজিত হয়নি। জাতির জনকের নেতৃত্বে এ মাসেই পাক হানাদার বাহিনীকে পরাজিত করেছিলাম। ডিসেম্বর মাস আসলেই কী কারণে যেন বিএনপি-জামায়াত জোট ভয় পায়। তাদের একাত্তরের সেই পরাজয়ের কথা মনে হয়। এ কারণেই ডিসেম্বর মাস আসলে তারা আতঙ্কিত হয়।

তিনি বলেন, এ জন্যই নির্বাচন কমিশন তফসিল ঘোষণা করার পর ঐক্যফ্রন্টের পক্ষ থেকে নির্বাচন কমিশনকে একাধিকবার নির্বাচনের তারিখ পেছানোর জন্য জানিয়েছে। নির্বাচন কমিশন তাদের অনুরোধে তারিখ পরিবর্তন করল। এ ব্যাপারে আওয়ামী লীগ কিংবা ১৪ দল কেউ কোনো আপত্তি করেনি। এরপরও তারা আবার আবদার করল। ডিসেম্বর মাসে তারা নির্বাচন করতে চায় না।আমাদের ধারণা, ডিসেম্বর মাস আসলে তারা ভয় পায়, তারা আতঙ্কিত হয় হেরে যাওয়ার ভয়ে।

নয়া পল্টনের ঘটনায় ঐক্যফ্রন্টের নেতা ড. কামাল হোসেনের নিশ্চুপ থাকা অধঃপতন মন্তব্য করে ১৪ দলের মুখপাত্র ও স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম বলেন, ড. কামাল হোসেন অপশক্তির কাছে এতো বেশি বিক্রি হয়ে গেলেন? বিস্মিত হলাম। নয়া পল্টনে পুলিশের ওপর হামলা নিয়ে তিনি একটা কথাও বললেন না। এটা সত্যি খুব দুঃখজনক ঘটনা।

নাসিম বলেন, যারা এখনও ঠিক করতে পারেনি দলনেতা কে হবে, তাদের কাছে জনগণ কী আশা করতে পারে? আমাদের যেমন সিদ্ধান্ত আছে, যখনই নির্বাচন হবে প্রধানমন্ত্রী হবেন শেখ হাসিনা। নির্বাচনকে সামনে রেখে আসন ভাগাভাগি ও মহাজোট নিয়ে শেখ হাসিনা যেকোনো সিদ্ধান্ত নেবেন, ১৪ দল তার পক্ষে থাকব। ১৪ দল নির্বাচনের জন্য প্রস্তুত। মুক্তিযুদ্ধের শক্তি ঐক্যবদ্ধ রয়েছে।

নির্বাচনে প্রচারণার কাজে ১৪ দলের পক্ষ থেকে একটি টিম করা হবে উল্লেখ করে তিনি বলেন, এই টিম গ্রামগঞ্জে সভা সমাবেশ করবে। টিমে নেতৃত্ব দেব আমি নিজেই। বিজয় দিবস থেকে বিজয় মঞ্চ প্রতিটি জেলা উপজেলায় বিজয় মঞ্চ তৈরি করবে। এ মঞ্চে মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস, বিজয়ের ইতিহাসসহ নির্বাচনী প্রচারণা চালানো হবে। আশা করি, আমরা বিজয়ের দিকে এগিয়ে যাব।

তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সফল, সুন্দর ও বিচক্ষণ সংলাপের কারণে দেশের সকল রাজনৈতিক দল সংবিধান অনুসারে নির্বাচনে অংশগ্রহণের ঘোষণা দিয়েছেন। আমরা আশা করি, নির্বাচন পর্যন্ত তারা সংবিধান অনুযায়ী শান্তিপূর্ণভাবে অংশগ্রহণ করবে। নির্বাচন কমিশনকে সহযোগিতা করবে।

নাসিম বলেন, আমরা জনগণের রায়ের জন্য অপেক্ষা করছি। জনগণের রায়ই শেষ কথা। যার মাধ্যমে দেশের জনগণ আগামী ৫ বছরের জন্য একটি সরকার উপহার দেবে।

গণ আজাদী লীগের সভাপতি এস কে শিকদারের সভাপতিত্বে জাসদের সভাপতি ও তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু, সাম্যবাদী দলের সাধারণ সম্পাদক দীলিপ বড়ূয়া, ওয়ার্কার্স পার্টির সাধারণ সম্পাদক ফজলে হোসেন বাদশা, জেপির মহাসচিব শেখ শহীদুল ইসলাম, আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক খালিদ মাহমুদ চৌধুরী, উপ-দফতর সম্পাদক বিপ্লব বড়ূয়া, তরিকত ফেডারেশনের চেয়ারম্যান নজিবুল বশর মাইজভান্ডারী, কমিউনিস্ট কেন্দ্রের আহ্বায়ক ওয়াজেদুল ইসলাম খান, গণতন্ত্রী পার্টির সাধারণ সম্পাদক ওয়াজেদুল ইসলাম খান, বাংলাদেশ জাসদের সাধারণ সম্পাদক নাজমুল হক প্রধান, জাসদের সাধারণ সম্পাদক শিরিন আখতার প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

আরোও পড়ুন...

HostGator Web Hosting