| |

সর্বশেষঃ

বিশ্রামের সুযোগ পাওয়ায় ‘খুশি’ সাকিব

আপডেটঃ ১২:০২ অপরাহ্ণ | নভেম্বর ২৫, ২০১৮

ক্রীড়া প্রতিবেদক: প্রথম ম্যাচ খেলতে নেমেছিলেন নাঈম হাসান। দ্বিতীয় দিন ৬ উইকেট নিয়ে সংবাদ সম্মেলনে এসে নাঈম জানিয়েছেন, কোনো চাপ অনুভব করেননি তিনি।’ অথচ সাকিব শনিবার ম্যাচ শেষে সংবাদ সম্মেলনে এসে জানালেন, নার্ভাস ছিলেন তিনি।’

ক্যারিয়ারের ৫৫তম টেস্ট খেলছেন সাকিব আল হাসান। অথচ মাঠে নামার আগে তিনি ছিলেন নার্ভাস! সংবাদ সম্মেলনে যখন এ কথা বলছিলেন তখন নিজেও হাসছিলেন। উপস্থিত গণমাধ্যমের মুখেও হাসি। তবে তার নার্ভাসের কারণ ভিন্ন।

চট্টগ্রাম টেস্টে নিজের খেলা নিয়ে সংশয় ছিল সাকিবের। কারণ মাত্রই তিনি ইনজুরি কাটিয়ে ফিরেছেন। বাঁ হাতের কনিষ্ঠার চোট কাটিয়ে টেস্টের আগে পুরোদমে চার সেশন অনুশীলন করেছেন । দলের সঙ্গে নিজেকে ঝালিয়ে নিয়েছেন দুই সেশন, বাকি দুই সেশনে ঐচ্ছিক অনুশীলন করেছেন। ব্যাটিং-বোলিং-ফিল্ডিং সবই করেছেন। কিন্তু ম্যাচ ফিটনেস নিয়ে ছিল সংশয়। তাইতো প্রথম বল খেলার আগ পর্যন্ত ড্রেসিং রুমে ‘ছটফট’ করেছেন।

‘‘ড্রেসিং রুমে অনেক নার্ভাস ছিলাম। তবে যখন মাঠে এসেছি তখন যতটা ভেবেছি ততটা নার্ভাস লাগেনি। আর ফার্স্ট বল পুরাই আল্লাহর ওপর ছেড়ে দিয়েছিলাম। খুব লাকি ছিলাম।’’

পুরো ম্যাচে তার ওপর চাপ পড়েছিল শেষ ক্যাচ ধরার সময়। নবম উইকেটে জোমেল ওয়ারিক্যান ও অ্যামব্রিস ৬৩ রানের জুটি গড়েছিলেন। জয়ের জন্য এ জুটি ভাঙার প্রয়োজন ছিল। মিরাজের বলে তুলে মারতে গিয়ে সাকিবের হাতে ক্যাচ দেন ৪১ রান করা ওয়ারিক্যান। ওই ক্যাচ নিয়ে সাকিবের ভাষ্য,‘‘চাপ সবথেকে বেশি ছিল শেষ ক্যাচটা। কারণ পার্টনারশিপ হওয়া শুরু হয়েছিল, সবাই দেখি হালকা হালকা প্যানিক হওয়া শুরু করছিল। যদিও আমার কাছে মনে হয় আমি অনেক ঠাণ্ডা ছিলাম। ওই সময় বল যখন মাথার উপরে ঘুরছিল, তখন ওই জিনিস গুলো মাথায় আসছিল। মনে হচ্ছিল যদি মিস হয় তখন বাকিরা আরও প্যানিক হয়ে যাবে। তবে সব ঠিকঠাক মত শেষ হয়েছে এটাই আসলে সবথেকে বড় পাওয়া।’’

২৭ নভেম্বর পর্যন্ত বিশ্রামে থাকবেন ক্রিকেটাররা। রাতের ফ্লাইটে সাকিবসহ আরও ৮ ক্রিকেটার চলে এসেছেন ঢাকায়। টিম ম্যানেজম্যান্টসহ অন্যরা চলে এসেছেন আজ সকালে। আগেভাগে ম্যাচ শেষ হওয়ায় এবং বিশ্রামের বাড়তি সময় পাওয়ায় বেশ ‘খুশি’ সাকিব,‘‘বেশ কয়েকটা দিন সময় আছে, তাই ফিটনেসের কিছু কাজ করতে পারবো। আমি প্রথম টেস্ট খেলার আগে তিনটা সেশন ব্যাট করেছি। দুই মাস পরে এসে এটা খুবই সামান্য। আমার জন্য কঠিন ছিল। আল্লাহ রহমতে আমি ভালো মত ম্যাচটা শেষ করেছি। আর আমি নিশ্চিত আরেকটু ভালো অবস্থায় আমি পরের ম্যাচটা খেলতে পারবো।’’

৩০ নভেম্বর মিরপুরে শুরু হবে ঢাকা টেস্ট।

আরোও পড়ুন...

HostGator Web Hosting