| |

সর্বশেষঃ

চিটাগংকে ‍উড়িয়ে প্রথম জয় পেল সিলেট

আপডেটঃ ৫:৫৬ অপরাহ্ণ | জানুয়ারি ০৯, ২০১৯

স্পোর্টস ডেস্ক : চলমান বিপিএলের সপ্তম ম্যাচে মুখোমুখি হয়েছিল চিটাগং ভাইকিংস এবং সিলেট সিক্সার্স। নিজেদের প্রথম ম্যাচে রংপুর রাইডার্সের বিপক্ষে জিতেছিল মুশফিকের চিটাগং আর কুমিল্লার বিপক্ষে হেরেছিল ডেভিড ওয়ার্নারের সিলেট। এই ম্যাচের মধ্যদিয়ে নিজেদের প্রথম জয় পেয়েছে নাসির-সাব্বির-লিটন-ওয়ার্নারদের নিয়ে সাজানো সিলেট। মুশফিকের ভাইকিংসকে মাত্র ৫ রানে হারিয়েছে সিক্সার্সরা।

টস জিতে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেন সিলেট দলপতি ওয়ার্নার। নির্ধারিত ওভারে ৫ উইকেট হারিয়ে সিক্সার্সরা তোলে ১৬৮ রান। জবাবে, ব্যাটিংয়ে নেমে শেষ ওভারে হারতে হয় ভাইকিংসকে। শেষ ওভারে ১৮ রান তুলেও ৫ রানের হার এড়াতে পারেনি মুশফিকের দলটি। ৭ উইকেট হারানো ভাইকিংসের ইনিংস থেমে যায় ১৬৩ রানের মাথায়।

আগে ব্যাটিংয়ে নেমে শুরুতেই বিপাকে পড়ে সিলেট। সেখান থেকে দলকে টেনে তুলেন দলপতি ওয়ার্নার এবং আফিফ হোসেন ধ্রুব। পরে নিকোলাস পুরানের দায়িত্বশীল ব্যাটিংয়ে লড়াইয়ের মতো সংগ্রহ দাঁড় করায় সিলেট।

সিলেটের হয়ে ওপেনিংয়ে নামেন ওয়ার্নার-লিটন দাস। কোনো রান না করেই বিদায় নেন লিটন। এবারের বিপিএলে প্রথমবার খেলতে নামা গতবারের সিলেট অধিনায়ক নাসির হোসেন ব্যক্তিগত ৩ রান করে সাজঘরে ফেরেন। সাব্বির রহমান (০) ছিলেন ব্যর্থ। দলীয় ৬ রানের মাথায় তিন উইকেট হারিয়ে বিপাকে পড়ে সিলেটের ব্যাটিং ইনিংস।

সেখান থেকে দারুণ এক ইনিংস খেলে ভাইকিংসের বোলিং আক্রমণকে বুড়ো আঙ্গুল দেখান আফিফ হোসেন। ওয়ার্নারকে দর্শক বানিয়ে ২৮ বলে করেন ৪৫ রান। তাতে ছিল পাঁচটি বাউন্ডারি আর তিনটি ওভার বাউন্ডারি। ওয়ার্নারের সঙ্গে জুটিতে আফিফ তোলেন ৭১ রান। আফিফের বিদায়ের পর জুটি গড়েন ওয়ার্নার-নিকোলাস পুরান। এই জুটিতে আসে ৭০ রান। ১৯তম ওভারে বিদায় নেন ওয়ার্নার। বিদায়ের আগে ৪৭ বলে তিনি দুটি চার আর একটি ছক্কায় করেন ৫৯ রান। নিকোলাস পুরান ৩২ বলে করেন ৫২ রান। অপরাজিত থেকে মাঠ ছাড়া এই ব্যাটসম্যানের ইনিংসে ছিল তিনটি চার আর তিনটি ছক্কার মার। অলোক কাপালি ২ বলে ২ রান করে অপরাজিত থাকেন।

ভাইকিংসের পেসার রব্বি ফ্রাইলিঙ্ক ৪ ওভারে ২৬ রান দিয়ে নেন তিনটি উইকেট। নাঈম হাসান ৪ ওভারে ২০ রান খরচায় তুলে নেন একটি উইকেট। খালেদ আহমেদ ৩ ওভারে ৩৩ রানের বিনিময়ে পান একটি উইকেট। উইকেট পাননি আবু জায়েদ রাহি, সিকান্দার রাজা, মোসাদ্দেক হোসেনরা।

চিটাগংয়ের আফগান ওপেনার মোহাম্মদ শাহজাদ শুরুতে ছক্কা হাঁকালেও ব্যক্তিগত ৬ রানে বিদায় নেন। আরেক ওপেনার ক্যামেরুন ডেলপোর্ট ২২ বলে চারটি চার আর তিনটি ছক্কায় করেন ৩৮ রান। ২৩ বলে ২২ রান করার পথে মোহাম্মদ আশরাফুল পান তিনটি বাউন্ডারি। দলপতি মুশফিকের ব্যাট থেকে আসে মাত্র ৫ রান। জিম্বাবুয়ের তারকা সিকান্দার রাজা রানের গতি ধরে রাখেন। আউট হওয়ার আরে দুটি চার আর দুটি ছক্কায় ২৮ বলে করেন ৩৮ রান।

মোসাদ্দেক হোসেনের ব্যাট থেকে আসে ৭ রান। শেষ দিকে ব্যাটে ঝড় তোলেন রব্বি ফ্রাইলিঙ্ক। ২৪ বলে একটি চার আর চারটি ছক্কায় ৪৪ রান করে অপরাজিত থাকেন। ০ রানে ফেরেন নাঈম হাসান আর সানজামুল ইসলাম ২ বলে ২ রান করে অপরাজিত থাকেন।

সিলেটের পেসার তাসকিন ৪ ওভারে ২৮ রান দিয়ে তুলে নেন চারটি উইকেট। অলোক কাপালি ২ ওভারে ৬ রান দিয়ে নেন দুটি উইকেট। মোহাম্মদ ইরফান, নাসির হোসেন, আল আমিন হোসেন, সন্দীপ লামিচান, আফিফ হোসেনরা কোনো উইকেট পাননি।

বিপিএল ষষ্ঠ আসরের সবকটি ম্যাচ সরাসরি সম্প্রচার করছে র‌্যাবিটহোলবিডি। এছাড়া ইউটিউবে র‍্যাবিটহোলবিডি এন্টারটেইনমেন্ট চ্যানেল, র‍্যাবিটহোল অ্যাপ এবং ওয়েবসাইট র‍্যাবিটহোল প্রাইমে ইংরেজিতে ধারাভাষ্য শোনা গেলেও র‍্যাবিটহোলবিডি স্পোর্টস চ্যানেলে চলছে বাংলা ভাষায় ধারাভাষ্য।

HostGator Web Hosting