| |

সর্বশেষঃ

ব্যতিক্রমী অভিজ্ঞতা অর্জন করলেন ডা. আশিক

আপডেটঃ ৩:৫৪ অপরাহ্ণ | মার্চ ১৪, ২০১৯

মঈন উদ্দিন রায়হান, ময়মনসিংহ প্রতিদিন ডটকম : ডা. আশিকুর রহমান ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালের নাক কান গলা বিভাগের তরুণ চিকিৎসক হিসেবে কর্মরত। সন্ধ্যায় তিনি চরপাড়ার পপুলার সার্ভিসেস প্যাথলজী ক্লিনিকে সাময়িক খন্ডকালীন হিসেবে রোগী সেবায় নিজেকে নিয়োজিত রাখেন। গল্পটা এখান থেকেই সূত্রপাত এবং সত্য অনেকটা অবিশ্বাস্য। সহকারী অধ্যাপক ডা. আশিক এর মতে এমন রোগী তিনি এই প্রথম পেলেন।

গত ৭ মার্চ সন্ধ্যার পরেপরেই ডা. আশিকের চেম্বারে কানে ব্যাথা নিয়ে এক তরুণ রোগী রকি আসলেন। ডা. আশিকের প্রাথমিক চিকিৎসা শুরু হলো শুরুতেই ডা. আশিক চমকে গেলেন। বিশেষায়িত যন্ত্রে তিনি দেখতে পেলেন, রকির কানের একেবারে অভ্যন্তরে একটি বৃহদাকার মাকড়সা অলরেডী জাল বুনে বসবাস করছে কিন্তু কানের দ্বিতীয় পর্দা ভেদ করতে পারছেনা মাকড়সাটি। ডা. আশিক তৎক্ষণাৎ তার উর্ধতন কর্তৃপক্ষের সাথে পরামর্শ বৈঠকে বসলেন পাশাপাশি রোগী রকির কানের ভেতর থেকে মাকড়সাটি জীবিত অবস্থায় উদ্ধারের প্রচেষ্টা চালালেন। এক পর্যায়ে ডা. আশিক সার্থক হলেন।

কোন অপারেশন ছাড়াই কানের ভেতর থেকে জীবিত অবস্থায় মাকড়সাটি বের করে আনলেন। ঘাম ছাড়লেন ডা. আশিক। স্বস্তি পেলেন রোগী রকি। জানা গেছে, এ সময় উৎসুক জনতাও বিষয়টি জেনে ডা. আশিকের চেম্বারে ভিড় জমালেন। ক্ষণিকের জন্য হিরো হয়ে গেল মাকড়সাটি। ডা. আশিক জানান, আমার চিকিৎসক জীবনের প্রথমার্ধে কর্ণ গহ্বর থেকে জীবিত মাকড়সা উদ্ধার একটি ব্যতিক্রমী অভিজ্ঞতা।

HostGator Web Hosting