| |

সর্বশেষঃ

উন্নয়ন অব্যাহত রাখতে সবার সহযোগিতা চাই : প্রধানমন্ত্রী

আপডেটঃ ৫:০১ অপরাহ্ণ | মে ২৪, ২০১৯

নিজস্ব প্রতিবেদক : প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, বাংলাদেশ উন্নয়নের পথে এগিয়ে যাচ্ছে। এ ধারাটা যেন অব্যাহত রাখতে পারি, সেজন্য সবার দোয়া ও সহযোগিতা চাই।
তিনি বলেন, দেশ ও দেশের মানুষের জীবনে শান্তি-শৃঙ্খলা বজায় থাকুক; সন্ত্রাস, জঙ্গিবাদ, দুর্নীতি ও মাদককের হাত থেকে সমাজ মুক্তি পাক সে চেষ্টাই আমরা করে যাচ্ছি।

বৃহস্পতিবার গণভবনে বিচারপতি, কূটনীতিক, সামরিক-বেসামরিক কর্মকর্তা, শিল্পী ও সাংস্কৃতিক কর্মীদের সম্মানে আয়োজিত ইফতার মাহফিলে তিনি একথা বলেন। গণভবনের সবুজ লনে বিশাল প্যান্ডেলে আগত অতিথিদের আপ্যায়নের ব্যবস্থা করা হয়। বিকাল ৬টা ১৫ মিনিটে প্রধানমন্ত্রী হাত নেড়ে আগত অতিথিদের অভিবাদন জানান। পরে সংক্ষিপ্ত বক্তব্যে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, আপনাদের আগমনে গণভবন ধন্য হয়েছে। আপনারা গণভবনে এসেছেন, দাওয়াত কবুল করেছেন আমি খুব আনন্দিত। এজন্য সবাইকে আন্তরিক অভিনন্দন ও ধন্যবাদ জানাই।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘সব দেশের সঙ্গে বন্ধুত্ব, কারও সঙ্গে বৈরিতা নয়’- এটা আমাদের পররাষ্ট্র নীতির মূলনীতি। আমরা সেটা সবসময় মেনে চলি। সবার সঙ্গে আমাদের বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক রয়েছে। আর্থ সামাজিক উন্নয়নের ক্ষেত্রে বাংলাদেশ এগিয়ে যাচ্ছে মন্তব্য করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘আগামী মাসে আমরা বিশাল আকারের বাজেট দেব। আশা করছি আমাদের উন্নয়নের ধারাটা অব্যাহত থাকবে।’

দেশবাসীকে ঈদের আগাম শুভেচ্ছা জানিয়ে শেখ হাসিনা বলেন, ‘আমি খুব দুঃখিত। এবার হয়তো ঈদে দেশে থাকব না। কারণ আমার বেশ কয়েকটি বিদেশ সফর রয়েছে। জাপান যাচ্ছি। সেখান থেকে সৌদি আরবে ওআইসি সম্মেলন। সেখান থেকে ইংল্যান্ড যাব। এরপর ৭ তারিখে দেশে ফিরব। ঈদে যেহেতু থাকতে পারব না। তাই এ ইফতার মাহফিল থেকে সবাইকে ঈদের আগাম শুভেচ্ছা জানাচ্ছি।

এ সময় প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেন, আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের, প্রধানমন্ত্রীর রাজনৈতিক উপদেষ্টা এইচটি ইমাম, পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. একে আবদুল মোমেন, প্রধানমন্ত্রীর নিরাপত্তা বিষয়ক উপদেষ্টা মেজর জেনারেল (অব.) তারিক আহমেদ সিদ্দিক, জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন, মন্ত্রিপরিষদ সচিব মোহাম্মদ শফিউল আলম, মুখ্য সচিব নজিবুর রহমান, ভ্যাটিকান সিটির রাষ্ট্রদূত ও কূটনৈতিক কোরের ডিন জর্জ কোচারি ও তিন বাহিনীর প্রধানগন মঞ্চে উপস্থিত ছিলেন।

ইফতারের আগে দেশের শান্তি, সমৃদ্ধি ও উন্নতি কামনা করে বিশেষ মোনাজাত করা হয়। মোনাজাতে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও ১৫ আগস্টে শহীদ এবং মুক্তিযুদ্ধে শহীদের আত্মার শান্তি কামনার পাশাপাশি প্রধানমন্ত্রীর সুস্বাস্থ্য ও দীর্ঘায়ু কামনা করা হয়। মোনাজাত পরিচালনা করেন জাতীয় মসজিদ বায়তুল মোকাররমের পেশ ইমাম মাওলানা মুহাম্মদ মহিউদ্দিন কাসেম।

HostGator Web Hosting