| |

সর্বশেষঃ

ঈদের আগে ব্যাংকে টাকা তোলার হিড়িক

আপডেটঃ ২:৫৬ অপরাহ্ণ | জুন ০৩, ২০১৯

নিজস্ব প্রতিবেদক : ঈদের লম্বা ছুটির কারণে একটানা পাঁচ দিন বন্ধ থাকবে দেশের ব্যাংকগুলো। এ সময় চাহিদা মেটাতে টাকা তোলার হিড়িক পড়েছে ব্যাংকগুলোতে। সাধারণ গ্রাহক থেকে শুরু করে অনেক ব্যবসায়ী-শিল্পপতিরাও ব্যাংক থেকে টাকা তুলে নিচ্ছেন।

সোমবার (৩ জুন) ঈদের আগে শেষ কর্মদিবসে রাজধানীর ব্যাংকপাড়া মতিঝিলে বিভিন্ন ব্যাংকের শাখায় গিয়ে গ্রাহকদের টাকা তোলার এমন চিত্র দেখা গেছে।

রাষ্ট্রায়ত্ত সোনালী ব্যাংকের স্থানীয় শাখায় গিয়ে দেখা যায়, টাকা তোলার জন্য লম্বা লাইনে গ্রাহকরা অপেক্ষা করছেন। আবার অনেক গ্রাহক এসেছেন সঞ্চয়পত্রের সুদের টাকা নিতেও।

সেখানে কথা হয় বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তা আব্দুর রাজ্জাকের সঙ্গে। তিনি বলেন, ঈদের ছুটিতে এক টানা পাঁচদিন বন্ধ থাকবে ব্যাংক। আমাদের অফিস খুলবে আগামী শনিবার। ওই দিন অফিসের কাজে নগদ টাকার প্রয়োজন মেটাতে সোমবার টাকা তোলা হচ্ছে।

অবসরপ্রাপ্ত সরকারি কর্মকর্তা নাজির উদ্দিন এসেছেন সঞ্চয়পত্রের সুদের টাকা নিতে। তিনি বলেন, ঈদের আগে বাজার-সদাই করতে টাকার প্রয়োজনে তিনি ব্যাংকে এসেছেন।

সোনালী ব্যাংকের স্থানীয় শাখার ক্যাশ কর্মকর্তা রুপম চাকমা বাংলানিউজকে বলেন, ঈদের আগে একদিনের অফিসে সব ধরনের লেনদেন করছেন তারা। ঋণপত্র খোলা, সঞ্চয়পত্র বিক্রি, আমানত জমা ও গ্রাহকের জমানো টাকা দেওয়া হচ্ছে।

সোনালী ব্যাংকের মতো, রূপালী, অগ্রণী ব্যাংক ও জনতা ব্যাংকের স্থানীয় শাখায় গিয়ে গ্রাহকের লম্বা লাইনে টাকা তোলার জন্য দাঁড়িয়ে থাকতে দেখা গেছে। একইভাবে গ্রাহকদের ভিড় রয়েছে মতিঝিলে অবস্থিত বেসরকারি ব্যাংকের শাখাগুলোতে।

জানতে চাইলে সোনালী ব্যাংকের স্থানীয় শাখার মহা-ব্যবস্থাপক (জিএম) মো. সাহাজাহান বাংলানিউজকে বলেন, আমরা গ্রাহকদের সবধরনের সেবা দিচ্ছি। যারা টাকা নিতে আসছেন তাদের দেওয়া হচ্ছে, যারা জমা দিতে আসছেন তাও নেওয়া হচ্ছে। এছাড়া আমদানি-রফতানি কার্যক্রমসহ সবধরনের কার্যক্রম চালু রয়েছে।

গ্রাহক ভোগান্তির বিষয়ে তিনি বলেন, গত কয়েকদিনের তুলনায় গ্রাহকদের চাপ একটু বেড়েছে। ঈদের আগে সোমবারই শেষ কর্মদিবস হওয়াতে অনেক গ্রাহক আগামী পাঁচদিনের জন্য প্রয়োজনীয় টাকা তুলতে এসেছেন। একারণে চাপ একটু বেড়েছে।

HostGator Web Hosting