| |

সর্বশেষঃ

টাঙ্গাইলে পুলিশের সহায়তায় বিয়ের পাঁচ বছর পর কাবিন!

আপডেটঃ ৬:২৫ অপরাহ্ণ | জুন ১৮, ২০১৯

টাঙ্গাইল প্রতিনিধি : টাঙ্গাইলের সখীপুরে বিয়ের পাঁচ বছর পর পুলিশের সহায়তা নিয়ে নিজের বিয়ের নিবন্ধন (কাবিন) করেছেন রুবি আক্তার নামের এক গৃহবধূ। গত রোববার রাতে সখীপুর পৌরসভার কাজি অফিস এ কাবিন করা হয়।

নতুন রেজিস্ট্রি করা বরের নাম আরিফুল ইসলাম (৩০)। পেশায় তিনি একজন অটোরিকশা চালক। সে সখীপুর পৌরসভার ৩ নং ওয়ার্ডের শিকদার রোড এলাকার খোরশেদ আলমের ছেলে। গৃহবধূ রুবি আক্তার (২৫) একই ওয়ার্ডের রেজিস্ট্রিপাড়ার মৃত হাছেন আলীর মেয়ে।

রুবি আক্তার বলেন, আনুমানিক পাঁচ বছর আগে প্রেম করে আমাদের বিয়ে হয়। একজন মৌলভী ধর্মীয়ভাবে আমাদের বিয়ে পড়ালেও ওই সময় রাষ্ট্রীয় নীতিতে রেজিস্ট্রি (কাবিন) হয়নি। এভাবেই আমাদের সংসার চলতে থাকে। দুই বছর বয়সী আমাদের এক মেয়েও আছে। মাঝে মধ্যেই আমার স্বামী আমাকে নানাভাবে মানসিক নির্যাতন ও মারধর করে। মামলা করলে কাবিন লাগবে বলে ঝগড়া বাঁধলে এই বলে হুমকি দেয় যে, ‘আমাদের বিয়ের কাবিন নেই। তাই তোকে তাড়িয়ে (তালাক) দিলেও কোনো মামলা হবে না। মাঝে মধ্যে বলে সে আমি তোকে বিয়েই করিনি।’

তিনি আরও বলেন, বিষয়টি আমি আমার স্বজনদের জানাই। স্বজনদের মতামত নিয়ে আমি সখীপুর থানার ওসিকে অবগত করি। পরে তিনি পুলিশ দিয়ে আমার স্বামীকে থানায় ডেকে এনে কাজির সঙ্গে কথা বলে কাবিনের ব্যবস্থা করেন।

এ ব্যাপারে সখীপুর থানার ওসি আমির হোসেন বলেন, রুবির মৌখিক অভিযোগ পেয়ে আরিফুলকে থানায় ডেকে এনে কাজির সঙ্গে কথা বলে কাবিন করার ব্যবস্থা করা হয়েছে। এখন আর সহজে আরিফুল বলতে পারবে না যে তোকে আমি বিয়ে করিনি।

সখীপুর পৌরসভার কাজি (নিকাহ রেজিস্ট্রার) ও সখীপুর উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান কাজি শফিউল ইসলাম বাদল ওই দম্পতির কাবিন করার বিষয়ে সত্যতা স্বীকার করে বলেন, পাঁচ লাখ টাকার কাবিন করা হয়েছে।

HostGator Web Hosting