| |

সর্বশেষঃ

ধর্ষণের পর গলায় রশি পেঁচিয়ে হত্যা করা হয় সায়মাকে

আপডেটঃ ৭:২৬ অপরাহ্ণ | জুলাই ০৬, ২০১৯

নিজস্ব প্রতিবেদক : রাজধানীর ওয়ারীর বনগ্রামে হত্যার শিকার শিশু সামিয়া আফরিন সায়মার (৭) লাশের ময়নাতদন্তে নির্মমতার সব আলামত পাওয়া গেছে বলে জানিয়েছেন ঢাকা মেডিক্যাল কলেজে (ঢামেক) হাসপাতালের ফরেনসিক বিভাগের প্রধান ডা. সোহেল মাহমুদ।

শরিবার দুপুরে ময়নাতদন্ত শেষ তিনি বলেন, প্রাথমিকভাবে তার শরীরে ধর্ষণের আলামত মিলেছে। ধর্ষণের পর তাকে গলায় রশি পেঁচিয়ে শ্বাসরোধ করে হত্যা করা হয়েছে বলে মনে হচ্ছে।

তিনি জানান, ময়নাতদন্তকালে তার যৌনাঙ্গে ক্ষতচিহ্ন, মুখে রক্ত ও আঘাতের চিহ্ন, ঠোঁটে কামরের দাগ দেখা গেছে। এগুলো খুবই স্পষ্ট ছিল।

ডিএনএ পরীক্ষার জন্য তার শরীর থেকে কিছু আলামত সংগ্রহ করা হয়েছে। সব প্রতিবেদন পেলে এ বিষয়ে বিস্তারিত বলা যাবে বলে জানান সোহেল মাহমুদ।

শুক্রবার রাত সাড়ে ৭টার দিকে বনগ্রামে নবনির্মিত একটি ভবনের নবম তলার ফাঁকা ফ্ল্যাটের ভেতরে সায়মাকে মৃত অবস্থায় দেখতে পান পরিবারের সদস্যরা। খবর পেয়ে রাত ৮টার দিকে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে মরদেহ উদ্ধার করে। ওয়ারী সিলভারডেল স্কুলের নার্সারিতে পড়ত সায়মা।

এ ঘটনায় সায়মার বাবা আব্দুস সালাম বাদী হয়ে ওয়ারী থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে একটি মামলা করেছেন। এ মামলায় ভবন মালিকসহ পাঁচজনকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করেছে পুলিশ।

HostGator Web Hosting