| |

সর্বশেষঃ

ময়মনসিংহ ডিবি’র ওসি শাহ কামালসহ রেঞ্জে ১০ পুলিশ শ্রেষ্ট পুরস্কারে ভুষিত

আপডেটঃ ৭:২৭ অপরাহ্ণ | জুলাই ১৪, ২০১৯

মোঃ রাসেল হোসেন, ময়মনসিংহ প্রতিদিন ডটকম : ময়মনসিংহ জেলা গোয়েন্দা পুলিশের ওসি শাহ কামাল আকন্দসহ রেঞ্জে ১০ জনকে শ্রেষ্ট পুরস্কারে পুরস্কৃত করা। এ সকল শ্রেষ্ট পুলিশ সদস্যদেরকে সম্মাননা ক্রেস্ট, সনদ ও আর্থিকভাবে পুরস্কৃত করা হয়। রবিবার ময়মনসিংহ রেঞ্জ ডিআইজি কার্যালয়ের সম্মেলন কক্ষে জুন মাসের মাসিক ও এপ্রিল-জুন মাসের ত্রৈমাসিক অপরাধ সভায় তাকে পুরস্কার প্রদান করা হয়। ময়মনসিংহ রেঞ্জ ডিআইজি জনাব নিবাস চন্দ্র মাঝি এ পুরস্কার প্রদান করেন।


সভায় এছাড়া রেঞ্জের শ্রেষ্ট পুলিশ সুপার হিসাবে শেরপুরের পুলিশ সুুপার কাজী আশরাফুল আজীম, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (অপরাধ) নেত্রকোনা মোঃ শাহজাহান মিয়াকে শ্রেষ্ট অতিরিক্ত পুলিশ সুপার, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আলী হায়দার চৌধুরীকে শ্রেষ্ট অতিরিক্ত পুলিশ সুপার, মোহাম্মদ আজিজুর রহমান ওসি ত্রিশালকে শ্রেষ্ট পুলিশ পরিদর্শক, ময়মনসিংহ শহরের ১নং ফাঁড়ির এসআই মোঃ ফারুক হোসেনকে শ্রেষ্ট এসআই, ময়মনসিংহ ডিবি পুলিশের এসআই নাজিম উদ্দিনকে শ্রেষ্ট মাদক দ্রব্য উদ্ধারকারী অফিসার, জামালপুর থানার এসআই জহিরুল ইসলাম ও শ্রীবরদী থানার এএসআই নজরুল ইসলামকে শ্রেষ্ট ওয়ারেন্ট নিষ্পত্তিকারী অফিসার হিসাবে নির্বাচিত করা হয়।

এছাড়া শ্রেষ্ট কনস্টেবল হিসাবে ময়মনসিংহ ডিবি পুলিশের কনস্টেবল/৫৭৭ আবু সামাকে উত্তম ও সর্বাধিক নৈপুণ্যপুর্ণ হাতের কাজের জন্য শ্রেষ্ঠ কনস্টেবল নির্বাচিত করা হয়। একই সাথে শ্রেষ্ট দফাদার হিসাবে জামালপুর জেলার দেওয়ানগঞ্জের পাররামপুর ইউনিয়নের দফাদার মোহাম্মদ নূরনবী শেখকে পুরস্কৃত করা হয়।


পুলিশ সুত্রে জানা গেছে, ময়মনসিংহ ডিবি পুলিশের ওসি শাহ কামাল আকন্দ জুন মাসে অস্ত্র ও গুলি, রিভালভার, ১টি পাইপগান, ০৩ রাউন্ড গুলি, ০ টি কার্তুজসহ বেশ কয়েকটি আগ্নেয়াস্ত্র উদ্ধার করেন। এছাড়া ডিিিব পুলিশের ব্যাপক তৎপরতায় ৭ হাজার ১০২ পিচ ইয়াবা, ৫৫৩ গ্রাম হেরোইন, ২টি চোরাই মোটর সাইকেল উদ্ধার করে। এ সময়ে ৩ চাঁদাবাজ ও ৫ ছিনতাইকারীকে গ্রেফতার করা হয়। একইসাথে কোতোয়ালী মডেল থানা এলাকার পৃথক দুটি হত্যা মামলায় ২জনকে গ্রেফতারের মধ্য দিয়ে ঐ দুটি মামলার রহস্য উদঘাটন দায়িত্বশীল ভুমিকা পালন করেন। এছাড়া ওসি শাহ কামালের দায়িত্বশীলতায় ১৮টি চোরাই মোবাইল উদ্ধার করা হয়। এ সময়ে ৩৭টি মামলা রুজু হয়েছে। এছাড়া জনগুরুত্বপূর্ণ ১০টি দরখাস্ত নিষ্পত্তি করা হয়।


অপরদিকে আইন শৃংখলা নিয়ন্ত্রণে রাখার লক্ষ্যে ২৯ জুয়ারি গ্রেফতার করা হয়। একই সাথে জিডি মূলে সাত ভিকটিম উদ্ধারসহ বিভিন্ন স্থানে অভিযান পরিচলনা করে আলোচিত জমজ তিনক্যান ও সাবেক স্বারাষ্ট্রমন্ত্রীর ভাগিনা সহ ০৭ জন ভিকটিম উদ্ধার করা হয়।
অপরদিকে ময়মনসিংহ শহরের ১নং ফাঁড়ি এলাকায় আইন শৃংখলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক ও অপরাধমুক্ত শহর গড়তে দায়িত্বশীলতার পরিচয় দিয়ে মাদক উদ্ধার, ওয়ারেন্ট তামিল ও সাজাপ্রাপ্ত পলাতক আসামী গ্রেফতার, ছিনতাইকারী গ্রেফতার করায় শ্রেষ্ট এসআই হিসাবে ফারুক হোসেনকে নির্বাচিত করা হয়েছে।


এছাড়া ময়মনসিংহ অঞ্চলে প্রথমবারের মত জুতার মধ্যে করে ৩ হাজার পিচ ইয়াবা বহনকালে তিন মাদক ব্যবসায়ীসহ ইয়াবা, মাদক, অস্ত্রসহ চাঁদাবাজ গ্রেফতার, চেরোই মোটর সাইকেল, চোরাই অটো উদ্ধার করায় শ্রেষ্ট মাদক উদ্ধারকারী এসআই হিসাবে ময়মনসিংহ ডিবির এসআই নাজিম উদ্দিনকে শ্রেষ্ট অফিসার নির্বাচিত করা হয়।


এর আগে রেঞ্জ ডিআইজি নিবাস চন্দ্র মাঝির সভাপতিত্বে সভা হয়। সভায় অতিরিক্ত ডিআইজি রেঞ্জ ড.মোঃ আক্কাছ উদ্দিন ভূঁঞা, পুলিশ সুপার ময়মনসিংহ শাহ আবিদ হোসেন, পুলিশ সুপার নেত্রকোণা জয়দেব চৌধুরী, পুলিশ সুপার রেঞ্জ অফিস সৈয়দ হারুন অর রশীদ, পুলিশ সুপার শেরপুর কাজী আশরাফুল আজীম, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার জামালপুর (পুলিশ সুপার পদে পদোন্নতি প্রাপ্ত) মোহাম্মদ বাছির উদ্দিন, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (অপস্) রেঞ্জ অফিস একেএম মনিরুল ইসলাম, পিবিআই জামালপুরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সীমা রানী সরকারসহ অনান্য ইউনিটের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ও রেঞ্জের কর্মকর্তাগণ উপস্থিত ছিলেন।



HostGator Web Hosting