| |

সর্বশেষঃ

ভারতের সাবেক পররাষ্ট্রমন্ত্রী সুষমা স্বরাজ আর নেই

আপডেটঃ ১:৫৪ অপরাহ্ণ | আগস্ট ০৭, ২০১৯

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : ভারতের সাবেক পররাষ্ট্রমন্ত্রী ও বিজেপি’র সিনিয়র নেতা সুষমা স্বরাজ মঙ্গলবার রাতে শেষ নি:শ্বাস ত্যাগ করেছেন। তার বয়স হয়েছিল ৬৭ বছর। এআইআইএমএস একথা জানায়। খবর পিটিআই’র।
বিজেপি’র সিনিয়র এ নেতাকে রাত সাড়ে নয়টার দিকে এআইআইএমএসে আনা হলে তাকে সরাসরি জরুরি ওয়ার্ডে নেয়া হয়।
এআইআইএমএস’র চিকিৎসকরা জানান, তিনি হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মারা যান।
প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি টুইটার বার্তায় বলেন, ‘ভারতের রাজনীতির গৌরবান্বিত এক অধ্যায়ের অবসান ঘটলো। ভারত বিশিষ্ট এ নেতার মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করছে। তিনি জনসাধারণের সেবা এবং গরীবদের জীবনযাত্রার মানের উন্নতিসাধনে জীবন উৎসর্গ করেন। সুষমা স্বরাজ ছিলেন খুবই অমায়িক ও বিনয়ী স্বভাবের মানুষ। তিনি কোটি কোটি মানুষের অনুপ্রেরণার উৎস ছিলেন।’ তাকে হাসপাতালে নেয়ার পর হর্ষ বর্ধন, রাজনাথ সিং,স্মৃতি ইরানি প্রকাশ জাভেদাকরসহ সিনিয়র অনেক মন্ত্রী সেখানে যান।
জম্মু ও কাশ্মিরের বিশেষ মর্যাদা প্রত্যাহারের কেন্দ্রের পদক্ষেপের পর প্রধানমন্ত্রী মোদিকে অভিনন্দন জানিয়ে স্বরাজ সন্ধ্যায় টুইটারে একটি বার্তা পোস্ট করেছিলেন।
ওই বার্তায় তিনি বলেছিলেন, ‘নরেন্দ্র মোদি জি- আপনাকে ধন্যবাদ প্রধানমন্ত্রী। আপনাকে অনেক ধন্যবাদ। আমি আমার জীবদ্দশায় এই দিন দেখার অপেক্ষায় ছিলাম।’
প্রধানমন্ত্রী মোদি তার টুইটার বার্তায়, একজন ‘ভাল বক্তা এবং বিশিষ্ট পার্লামেন্ট সদস্য’ হিসেবে স্বরাজের প্রশংসা করেন। মোদি বলেন, তিনি সকল দলের কাছে প্রশংসিত ও শ্রদ্ধেয় ছিলেন।
তিনি আরো বলেন, ‘আদর্শ ও বিজেপি’র স্বার্থের ব্যাপারে তিনি আপোসহীন ছিলেন।
সুষমা স্বরাজের মৃত্যুতে কংগ্রেসের পক্ষ থেকেও শোক প্রকাশ করা হয়েছে।
দলটির পক্ষ থেকে বলা হয়, ‘সুষমা স্বরাজের মৃত্যুর খবর শুনে আমরা শোকাহত হয়েছি। আমরা তার পরিবার ও আত্মীয়-স্বজনের প্রতি শোক প্রকাশ করছি।’
কংগ্রেস নেতা রাহুল গান্ধী টুইটার বার্তায় বলেন, ‘সুষমা স্বরাজের মৃত্যুর খবর শুনে আমি গভীরভাবে শোকাহত হয়েছি। তিনি একজন অসাধারণ রাজনৈতিক নেতা, ভাল বক্তা ও ব্যতিক্রমী পার্লামেন্ট সদস্য ছিলেন। দেশের সকল দলের সাথে তার বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক ছিল। আমি তার বিদেহী আত্মার শান্তি কামনা করছি এবং শোকসন্তপ্ত পরিবারের প্রতি শোক জানাচ্ছি।’
২০১৬ সালে স্বরাজ তার শরীরে একটি কিডনী প্রতিস্থাপন করেছিলেন এবং স্বাস্থ্যগত কারণে এ বছরের গোড়ার দিকে অনুষ্ঠিত লোকসভা নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা থেকে বিরত ছিলেন।

HostGator Web Hosting