| |

সর্বশেষঃ

দেবর-ভাবির বিরোধের মধ্যেই সংসদ অধিবেশন বসছে রোববার

আপডেটঃ ৩:২৯ অপরাহ্ণ | সেপ্টেম্বর ০৭, ২০১৯

নিজস্ব প্রতিবেদক : সংসদের বিরোধী দল জাতীয় পার্টির দুই নেতা দেবর গোলাম মোহাম্মদ (জিএম) কাদের ও ভাবি রওশন এরশাদের মধ্যে বিরোধের কারণে বিরোধী দলীয় নেতা নির্বাচন ছাড়াই সংসদ অধিবেশন বসছে আগামীকাল রোববার। চলমান একাদশ সংসদের চতুর্থ এ অধিবেশন বিকেল পাঁচটায় শুরু হবে। এটি কতদিন চলবে তা কার্য উপদেষ্টা কমিটির বৈঠকে সিদ্ধান্ত হবে।

বরাবরের মতো অধিবেশন শুরুর এক ঘণ্টা আগে সংসদ ভবনে কার্য উপদেষ্টা কমিটির বৈঠক হবে। স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত বৈঠকে সংসদ নেতা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উপস্থিত থাকার কথা রয়েছে।

এদিকে সংসদে জাতীয় পার্টির সভাপতি ও বিরোধীদলীয় নেতার আসন পেতে মরিয়া হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের ছোট ভাই জিএম কাদের ও স্ত্রী রওশন এরশাদ। এরশাদ মারা যাওয়ার পর জাতীয় পার্টির যৌথ সভায় জিএম কাদেরকে চেয়ারম্যান হিসেবে অভিনন্দন জানানো হয়। কিন্তু রওশন পন্থীরা তা মানতে নারাজ। এ দ্বন্দ্বের মধ্যেই নিজেকে সংসদের বিরোধীদলীয় নেতা করার জন্য স্পিকারের কাছে চিঠি দেন জিএম কাদের। সেই চিঠির যৌক্তিকতা নিয়ে প্রশ্ন তুলে পরদিনই নিজেকে বিরোধীদলীয় নেতা দাবি করে স্পিকারকে আরেকটি চিঠি দেন রওশন এরশাদ।

গত বৃহস্পতিবার (৫ সেপ্টেম্বর) জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান প্রশ্নে দুই পক্ষই পাল্টাপাল্টি সংবাদ সম্মেলন করে। জাতীয় পার্টির একাংশ রওশন এরশাদকে দলের চেয়ারম্যান ঘোষণা করায় ‘গঠনতন্ত্র অনুযায়ী ব্যবস্থা নেয়ার’ হুমকি দেন জিএম কাদের। এর ঘণ্টাখানেক আগেই রওশনের উপস্থিতিতে তার বাসভবনে একটি সংবাদ সম্মেলন করে জাতীয় পার্টির আরেক অংশ। দলের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য আনিসুল ইসলাম মাহমুদ সেখানে বলেন, ‘রওশন এরশাদ পার্টির চেয়ারম্যানের দায়িত্ব পালন করবেন। আগামী ছয় মাসের মধ্যে কাউন্সিল করে গণতান্ত্রিক উপায়ে স্থায়ী চেয়ারম্যান ঠিক করব।’

তাদের এ পদ নিয়ে কাড়াকাড়ির মধ্যেই মুখ খুলেছেন স্পিকার শিরীন শারমিন চৌধুরী। তিনি বলেন, ‘তাদের চিঠি নিয়ে আইন-কানুন খতিয়ে দেখা হবে। আর বিরোধীদলীয় নেতা কে হবেন তা কর্যপ্রণালী বিধিতে বলা আছে- সেই অনুযায়ী ব্যবস্থা নেয়া হবে।’

জাতীয় পার্টির মধ্যকার সমস্যার বিষয়ে জানতে চাইলে স্পিকার বলেন, ‘এটা জাতীয় পার্টির অভ্যন্তরীণ বিষয়। এটা তার দেখার সুযোগ নেই। তবে বিরোধী দলের মধ্যে যে সমস্যা সৃষ্টি হয়েছে তারা নিজেরাই সমাধান করবেন। আশা করি তারা সমস্যা সমাধান করে আসবেন।’

সংসদে বিরোধীদলীয় নেতা মন্ত্রী এবং উপনেতা প্রতিমন্ত্রীর মর্যাদা পান। জাতীয় সংসদের কার্যপ্রণালী-বিধি অনুযায়ী বিরোধীদলীয় নেতা ও উপনেতার নিয়োগ দেন স্পিকার।

সংসদের আইন শাখা সূত্র জানায়, এ অধিবেশনে বাংলাদেশ চলচ্চিত্র ও টেলিভিশন ইনস্টিটিউট (সংশোধন) বিল, ২০১৯ পাসের অপেক্ষায় রয়েছে। আর দুটি বিল উত্থাপনের পর তা অধিকতর পরীক্ষা-নিরীক্ষা করার জন্য সংসদীয় কমিটিতে আছে। এগুলো হলো বাংলাদেশ সুগারক্রপ গবেষণা ইনস্টিটিউট বিল, ২০১৯ ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা ইনস্টিটিউট (সংশোধন) বিল, ২০১৯। এ ছাড়াও আরও নতুন বিল আসতে পারে সংসদে।

জানা গেছে, এর আগে সংসদের বাজেট ও তৃতীয় অধিবেশন ১২ জুলাই শেষ হয়। সংবিধান অনুযায়ী একটি অধিবেশন শেষ হওয়ার পর ৬০ কার্যদিবসের মধ্যে আরেকটি অধিবেশন আহ্বানের বাধ্যবাধ্যকতা রয়েছে।

HostGator Web Hosting