| |

সর্বশেষঃ

রেলওয়ের দায়িত্বহীনতা

রেলওয়ে স্টেশন আঙ্গিনায় ঝোপঝাড় পরিস্কার পরিচ্ছন্ন করছে ময়মনসিংহ সিটি কর্পোরেশন

আপডেটঃ ৮:৩৫ অপরাহ্ণ | সেপ্টেম্বর ০৯, ২০১৯

মোঃ রাসেল হোসেন, ময়মনসিংহ প্রতিদিন ডটকম : পরিচ্ছন্ন নগরী গড়তে ময়মনসিংহ সিটি কর্পোরেশন নগরীর বিভিন্ন ওয়ার্ডে একটানা পরিচ্ছন্নতা কার্যক্রম পরিচালনা করে আসছে। সিটি কর্পোরেশনের মেয়র ইকরামূল হক টিটু এর আগে পরিচ্ছন্ন ও মসকমুক্ত নগরী গড়তে একযুগে সকল ওয়ার্ডে ঝোপঝাড়, খাল, নালা, ড্রেন, স্কুল-কলেজ, মেডিকেল কলেজ, বিশ্ববিদ্যালয়, অফিস, আদালত, বাসস্টেশন, রেলওয়ে স্টেশনসহ নগরীর বিভিন্ন পরিত্যক্ত ও মজা পুকুর পরিস্কার পরিচ্ছন্ন ও মশক নিধন ওষুধ ছিটানো কার্যক্রম উদ্বোধন করেন। এ সময় সিটি কর্পোরেশনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ আনোয়ার হোসেন, নির্বাহী প্রকৌশলী রফিকুল ইসলাম মিঞা, সচিব আব্দুল হালিম, স্বাস্থ্য বিভাগের প্রধান ডাঃ এইচ কে দেবনাথ, সেনিটারী ইন্সপেক্টর দীপক মুজমদার, কঞ্জারভেন্সি ইন্সপেক্টর মহব্বত আলীসহ অন্যান্য উপস্থিত ছিলেন।


নবগঠিত এই সিটি পরিচ্ছন্ন ও মসকমুক্ত রাখতে মেয়রের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধনের পর থেকে নগরীর প্রতিটি ওয়ার্ডে একটানা পরিচ্ছন্নতা ও মশকমুক্ত করতে ওষুধ ছিটানো কার্যক্রম চলে আসছে। পরিচ্ছন্নতা ও মশকমুক্ত করতে ওষুধ ছিটানো কার্যক্রম মেয়র, ওয়ার্ড কাউন্সিলর, সাবেক ওয়ার্ড কাউন্সিলর, এলাকার গণ্যমান্য, শিক্ষিত সচেতন সমাজ পরিদর্শন ও সহযোগীতা করছেন এমন চিত্র প্রতিদিনই দেখা যাচ্ছে। আবার অনেক ওয়ার্ডে স্থানীয় সচেতনবাসির ডাকে সারা দিয়ে সিটি কর্পোরেশন তাদের নিয়োজিত শ্রমিক দিয়ে জরুরী ভিত্তিকে ঐ এলাকার পরিচ্ছন্নতা কার্যক্রম পরিচালনা এবং মশক নিধনের ওষুধ ছিটানোর কাজ করে আসছে।

এভাবে সিটি কর্পোরেশনের সচিব, সেনিটারী ইন্সপেক্টর দীপক মজুমদার ও মহব্বত আলীর নেতৃত্বে প্রতিদিন নগরীর বিভিন্ন খাল, ড্রেন, মজা পুকুর, পচা পুকুর, স্কুল- কলেজ আঙ্গিনা, স্কুলের কলেজের আভ্যন্তরীণ মাঠ, মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতাল ও আশপাশ, বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়, বাসস্টেশন, সরকারী সেরকারী অফিস, আদালত আঙ্গিনা, নতুন ওয়ার্ড এলাকার ঝোপঝাড়, মজা ও পচা পুকুর পরিস্কার পরিচ্ছন্নতা ও মশক নিধণ ওষুধ ছিটানোর কাজ পরিচালনা করা হচ্ছে।

রবিবার শহরের আলোচিত ঝোপঝাড়ে ভড়ে থাকা ময়মনসিংহ রেলওয়ে স্টেশন এলাকা পরিচ্ছন্ন কার্যক্রম পরিচালনা শুরু করেন কঞ্জারভেন্সি ইন্সপেক্টর মহব্বত আলী। ১০/১৫ জন দক্ষ শ্রমিক নিয়ে রেলওয়ে স্টেশন এলাকার ঝোপঝাড় পরিস্কার শুরু করেন। নগরীর আলমগীর মনসুর মিন্টু কলেজ রেল গেইট এলাকা থেকে এ পরিচ্ছন্নতা শুরু করা হয়। কঞ্জারভেন্সি ইন্সপেক্টর মহব্বত আলী বলেন, পুরো রেলওয়ে স্টেশন এলাকার পরিচ্ছন্নতা শেষ না হওয়া পর্যন্ত কাজ চলবে। সিটি কর্পোরেশনের উদ্যোগে স্টেশন এলাকার পরিচ্ছন্নতা কার্যক্রম প্রত্যক্ষকালে দেখা যায়, স্টেশনের রেলওয়ে বিদ্যুতের উপ সহাকারী প্রকৌশলীর কার্যালয় এলাকা থেকে শুরু করে জিআরপি থানা, একাউন্টস কোয়ার্টার, নিরাপত্তা বাহিনী বিভাগের অফিস সংলগ্ন এলাকা ঐ সকল দপ্তরের লোকজন কখনও পরিচ্ছন্ন করেনি। ঐ সকল দপ্তরের দায়িত্বপ্রাপ্তরা ময়লা, আবর্জনা, অফিস আঙ্গিনায় ঝোপঝাড় রেখেই শুধুমাত্র দাপ্তরিক কাজ করছেন। ঐ সকল দপ্তরগুলো যদি একটু পরিচ্ছন্নতার দিকে নজর দিত তাহলে কমপক্ষে এ সব আঙ্গিনা চলাচল উপযোগী হতো। দেশব্যাপী পরিচ্ছন্নতা কার্যক্রম চললেও ময়মনসিংহ রেলওয়ে বিভাগ স্টেশন ও আশপাশ এলাকা পরিচ্ছন্নতায় কোন উদ্যোগ নেয়নি। রেলওয়ের যাত্রী সাধারণ ও নগরবাসি ময়লা আবর্জনা ও ঝোপঝাড় উপেক্ষা করেই চলাচলসহ স্টেশন আঙ্গিনায় যাত্রী হিসাবে অপেক্ষা করছেন। এ নিয়ে নানা ঝল্পনা কল্পনা শুরু হলে পরিচ্ছন্ন নগরী গড়তে অঙ্গিকারাবদ্ধ সিটি মেয়র টিটু রেলওয়ের অঞ্চল হলেও রেলওয়ে স্টেশন পরিচ্ছন্নতায় উদ্যোগ নেওয়ায় স্থানীয়বাসি মেয়রসহ সিটি কর্পোরেশনকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন।

HostGator Web Hosting