| |

সর্বশেষঃ

জয়ে নতুন প্রণোদনা খুঁজে পেয়েছে জিম্বাবুয়ে

আপডেটঃ ১:৪৫ অপরাহ্ণ | নভেম্বর ১৬, ২০১৫

স্পোর্টস ডেস্ক  : বাংলাদেশের সফরকে কঠিন মেনেই জিম্বাবুয়ে পা রেখেছিল। তাদের মনে ছিল আগের সিরিজের কথা। বাংলাদেশের সাম্প্রতিক ফর্মও তাদের জানা ছিল। তাই স্বাগতিক বাংলাদেশের বিপে জয় পেতে সব বিভাগেই ভাল খেলার তাগিদ ছিল জিম্বাবুয়ে অধিনায়কের। সিরিজের প্রস্তুতি ম্যাচে জয় পেয়ে বিশ্বাসী হয়ে উঠেছিল জিম্বাবুয়ে। কিন্তু পরের ৪ ম্যাচ তাদের হতাশার রাজত্বে ঠেলে দিয়েছিল। অবশেষে এসেছে সেই অধরা জয়। যেখানে নতুন প্রণোদনা খুঁজে পেয়েছে জিম্বাবুয়ে। বরিবার মিরপুরে ম্যাচ উত্তর সাংবাদিক সম্মেলনে সে কথাই বলেছেন জিম্বাবুয়ের অধিনায়ক এলটন চিগাম্বুরা।
শেষ ওভারে ১৮ রানের হিসেবটা জিম্বাবুয়ের ওয়েলার-মাদজিভা ঠিকই মাথায় রেখেছিলেন। কিন্তু প্রথম বলেই ইনফর্ম ওয়েলারকে ফিরিয়ে দিয়েছিলেন নাসির। প্রান্ত বদল করেই মাদজিভা স্ট্রাইকিংয়ে। সেখান থেকেই মাত্র ৪ বলে ১৮ রান করে অসাধারণ এক জয় তুলে নিয়েছেন তিনি। এমন জয় পেয়ে হারের পিঠে হার দেখা জিম্বাবুয়ে নতুন জীবনী শক্তি সঞ্চার করেছে। ম্যাচোত্তর কথাবর্তায় তেমনটাই বলেছেন নেভিল মাদজিভা এবং অধিনায়ক চিগাম্বুরা। দেশে ফেরার আগে এমন একটি জয়ের স্বপ্নই সফরকারীদের তাড়িয়ে বেড়াচ্ছিল।
মিরপুর শের-ই-বাংলা ক্রিকেট স্টেডিয়ামে রবিবার বাংলাদেশকে ১৩৫ রানে আটকে ফেলেই এগিয়ে গিয়েছিল জিম্বাবুয়ে। শেষমেশ তাই প্রমাণিত। ম্যাচে জয়ের নায়ক মাদজিভা বলেছেন, ‘মুস্তাফিজের করা ১৯তম ওভারে আমাকে বেশ সংগ্রাম করতে হয়েছে। আমি তার স্লোয়ারের ভাষা বুঝতেই পারছিলাম না। অন্য বোলারদের তুলনায় সে বেশ আলাদা।’ তবে নাসিরের বোলিং নিয়ে তার ভাষ্য, ‘আমি যখন বোলিংয়ে নাসিরকে পেলাম তখন আমি নিজে নিজেই মারার সিদ্ধান্ত নিলাম। তখনই মনে হয়েছে ম্যাচটি আমরা জিততে যাচ্ছি। আমি আসলে স্পিনারদের খেলতেই বেশি এনজয় করি। আমি দেশের জন্য একটি জয় নিয়ে ফিরতে আত্মবিশ্বাসী ছিলাম। শেষ ওভারে আমরা কোনো চাপ অনুভব করিনি। আমার কাছে মনে হয়েছে জয়-পরাজয়ের কিছু নেই। তবে আমি জয়ের ব্যাপারে শতভাগ আশাবাদী ছিলাম।’
অধিনায়ক এলটন চিগাম্বুরা বলেছেন, ‘আমরা এখানে আসার পর থেকে একটি জয় নিয়ে দেশে ফিরতে চেয়েছিলাম। ভাল লাগছে অবশেষে আমরা সেই জয় পেয়েছি। সব বিভাগেই আমরা ভাল খেলেছি। সকলেই কঠিন পরিশ্রম করেছে। যে ৫ বোলার আজ বোলিং করেছে, তারা অল্প রানে প্রতিপকে আটকিয়ে আমাদের পথটা সহজ করে দিয়েছে।’
বাংলাদেশের হারার পেছনে কারণ একজন কম বোলার নিয়ে খেলা, এ ব্যাপারে চিগাম্বুরা বলেছেন, ‘আমাদের জানতে ভুল ছিল না বাংলাদেশের শেষ অপশন হিসেবে নাসিরের বাইরে কেউ ছিল না। আমাদের ধারণা ছিল, নাসির ১৯তম ওভারে বোলিং করবেন। আমরা নিশ্চিত ছিলাম শেষ ৩ ওভারে একজন স্পিনারকে আমরা পাচ্ছি। সেখানেই আমরা জয়ের ব্যাপারে আত্মবিশ্বাসী হয়েছিলাম।’ এই সফর নিয়ে চিগাম্বুরার ভাষ্য, ‘এখানে এসে আমরা দারুণ একটি ইতিবাচক দিক খুঁজে পেয়েছি। আমাদের দলের খেলোয়াড়রা ভাল ব্যাটিং এবং বোলিংও করতে পারে। এ েেত্র আমি ওয়েলার এবং জংউইকে এগিয়ে রাখছি। টোয়েন্টি২০ ভার্সনে আমরা দারুণ এক কম্বিনেশন খুঁজে পেয়েছি।’ সিরিজে সমতা নিয়ে তিনি বলেছেন, ‘টোয়েন্টি২০ সিরিজে সমতায় ফেরাটা জিম্বাবুয়ের জন্য অবশ্যই ইতিবাচক। ওয়ানডে সিরিজ হারাটা ছিল হতাশার। এই জয় আমাদের আত্মবিশ্বাসী করে তুলবে। এই জয় আমাদের এগিয়ে যেতে অনুপ্রাণিত করবে।’

আরোও পড়ুন...

HostGator Web Hosting