| |

সর্বশেষঃ

স্পেশাল ইনিংস ও জয় পুত্র মায়ানকে উৎসর্গ করলেন মুশফিক

আপডেটঃ ১:১৮ অপরাহ্ণ | নভেম্বর ০৪, ২০১৯

ক্রীড়া প্রতিবেদক : সম্ভাবনা তৈরি হয়েছিল প্রথম ইনিংসেই। বোলারদের দুর্দান্ত নৈপুণ্যে ভারতকে মাত্র ১৪৮ রানে রাখার পর জয়ের ব্যাপারে বিশ্বাস চলে আসে খেলোয়াড়, টিম ম্যানেজম্যান্ট থেকে সকলের মনেই। তবু কাজটা সহজ ছিলো না। বল হাতে নিয়ে বারবার বাংলাদেশের ওপর চড়াও হওয়ার চেষ্টা করেছে ভারতীয়রা। কিন্তু পারেনি সফল হতে।

বলা চলে, ভারতীয় বোলারদের সফল হতে দেননি বাংলাদেশ দলের অভিজ্ঞতম ব্যাটসম্যান মুশফিকুর রহীম। শুরুতে অভিষিক্ত নাইম শেখ ও সৌম্য সরকার এবং পরে সৌম্যকে নিয়ে মুশফিকের জুটিই বাংলাদেশকে ম্যাচের নিয়ন্ত্রণ হারাতে দেয়নি। আর শেষে মাহমুদউল্লাহ রিয়াদকে নিয়ে দারুণভাবেই ম্যাচ জিতিয়ে মাঠ ছাড়েন মুশফিক।

দারুণ দায়িত্বশীলতার পরিচয় দিয়ে খেলা ইনিংসে ৮ চার ও ১ ছয়ের মারে ৪৩ বলে ৬০ রান করেন মুশফিক। টি-টোয়েন্টি ক্যারিয়ারের ৮২তম ম্যাচে পঞ্চম ফিফটি। এর আগেও খেলেছেন বেশ কিছু ম্যাচজয়ী ইনিংস। তবু এই ইনিংসের মাহাত্ম্যই থাকবে আলাদা।

কেননা ভারতকে প্রথমবারের মতো টি-টোয়েন্টি ফরম্যাটে হারানো গেলো মুশফিকের এই ইনিংসে ভর করেই। এছাড়া আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটের ইতিহাসে ১০০০তম ম্যাচের একমাত্র হাফসেঞ্চুরিয়ান যে মুশফিকই। ফলে এই ইনিংস ও জয়টি স্বাভাবিকভাবেই থাকবে মুশফিকের ক্যারিয়ারের ওপরের দিকেই।

আর এই জয় কিংবা নিজের ইনিংসটা কাকে উৎসর্গ করলেন? জানতে চাওয়া হলে মুশফিক জানিয়ে দেন নিজের একমাত্র ছেলে মোহাম্মদ শাহরুজ রহীম মায়ানের কথা। একইসঙ্গে ছেলের ব্যাপারে মজার তথ্যও দেন এ উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যান।

ম্যাচ শেষে সংবাদ সম্মেলনে এসে মুশফিক বলেন, ‘আজকের ইনিংসটি কিংবা আজকের জয়টা কাকে উৎসর্গ করব বললে আমি বলব আমার ছেলের কথা। সে ধীরে ধীরে বড় হচ্ছে, তাকে অনেক বেশি মিস করতেছি। এখনই টিভিতে যখন আমাকে দেখে সে চিনে ফেলে, এটা কে। এটা আসলেই বেশ আনন্দের, আমি আমার আজকের ফিফটি ও জয় আমার ছেলেকে উৎসর্গ করলাম’

এসময় নিজের ইনিংস এগিয়ে নেয়ার পরিকল্পনার ব্যাপারে জানিয়ে তিনি বলেন, ‘আমি নিজের সঙ্গে কথা বলছিলাম। ক্রিজে থাকা ব্যাটসম্যানই কেবল জানে ঠিক কী হচ্ছে। ডাগআউটের কেউ কিংবা পরের ব্যাটসম্যানও বুঝতে পারবে না। আমি নিজের সঙ্গেই কথা বলছিলাম। সৌম্যর সঙ্গেও কথা বলেছি। ১৯তম ওভার পর্যন্ত থেকেও যদি হারি তো হারলাম।’

এর আগে ম্যাচসেরার পুরষ্কার গ্রহণ করতে এসে পুরষ্কার বিতরণী মঞ্চে তিনি জানিয়েছেন, এ জয়টি ব্যক্তিগতভাবে তার নিজের কাছে অনেক বড় কিছু। ভারতকে তাদেরই মাটিতে হারানোর তৃপ্তি ও আনন্দের সঙ্গে অন্য কিছুর তুলনা নেই বলে মন্তব্য করেন মুশফিক।

তিনি বলেন, ‘আমরা যখন ভারতের মতো একটা দলের বিপক্ষে, এত দর্শকের সামনে খেলছি; তখন এই ইনিংসের চেয়ে সেরা কিছু হতে পারে না। ভারতকে ভারতের মাটিতে হারানোর তুলনা আর কিছুই হতে পারে না। তাই এ জয় আমার কাছে অনেক কিছু।’

HostGator Web Hosting