| |

সর্বশেষঃ

গৌরীপুরে তরুণের ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার

আপডেটঃ ৩:৪৩ অপরাহ্ণ | নভেম্বর ০৭, ২০১৯

শামীম খান, গৌরীপুর ময়মনসিংহ প্রতিদিন ডটকম : প্রেমের কারণে বাড়ি থেকে নিরুদ্দেশ হন হৃদয় চন্দ্র ঘোষ ও তার প্রেমিকা। কিন্তু দুজন ভিন্নধর্মের হওয়ায় পরিবার তাদের বিষয়টি মেনে নিতে পারেনি। একপর্যায়ে মেয়ের পরিবার হৃদয়ের সঙ্গে দেখা করে মেয়েটিকে ফিরিয়ে নিয়ে যায়। এর পর নিজবাড়ির কাঁঠালগাছে পাওয়া যায় হৃদয়ের ঝুলন্ত মরদেহ।
বৃহস্পতিবার ময়মনসিংহের গৌরীপুর উপজেলার পৌর শহরের ঘোষপাড়া এলাকায় নিজ বাড়ি থেকে যুবকের ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ।
নিহত প্রেমিক হৃদয় চন্দ্র ঘোষ উপজেলার ঘোষপাড়া মহল্লার অজিত চন্দ্র ঘোষের ছেলে। তিনি পেশায় ট্রাকের হেলপার ছিলেন।
নিহত হৃদয়ের মা রিনা রানী ঘোষের দাবি, তার ছেলেকে মেরে মরদেহ ঝুলিয়ে রাখা হয়েছে।
পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে, কয়েক বছর আগে প্রতিবেশী ছহুর উদ্দিনের মেয়ের সঙ্গে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে হৃদয়ের। কিন্তু দুজন ভিন্নধর্মের হওয়ায় পরিবার তাদের বিষয়টি মেনে নিতে পারেনি।
গত মঙ্গলবার সন্ধ্যার পর মেয়েটিকে নিয়ে হৃদয় বাড়ি থেকে পালিয়ে গাজীপুর জেলার মাওনা এলাকায় আশ্রয় নেন। খবর পেয়ে মেয়ের পরিবারের লোকজন বুধবার রাতে মাওনা এলাকায় হৃদয়ের সঙ্গে দেখা করে মেয়েটিকে নিয়ে ঘোষপাড়া নিজ বাড়িতে ফিরিয়ে নিয়ে যায়।
বৃহস্পতিবার সকালে ঘোষপাড়ার বাড়ির সামনে কাঁঠালগাছের সঙ্গে হৃদয়ের ঝুলন্ত লাশ দেখতে পায় ওই ছেলেটির মা রিনা রানী ঘোষ।
হৃদয়ের চাচাতো ভাই গোপাল চন্দ্র ঘোষ বলেন, বুধবার রাত ৯টা ৫৯ মিনিটে হৃদয়ের সঙ্গে আমার মোবাইল ফোনে কথা হয়। ওই সময় সে জানায় আমি (হৃদয়) আসতে চাচ্ছি না মেয়ের পরিবারের লোকজন আমাকে জোর করে নিয়ে আসতে চাচ্ছে। এতটুকু বলার পরেই হৃদয় লাইন কেটে দেয়।
এদিকে প্রেমিকা বলেন, আমাদের প্রেমের সম্পর্ক ৪-৫ বছর। এ সম্পকের টানেই আমি হৃদয়ের সঙ্গে চলে যাই। বুধবার রাতে পরিবারের লোকজন যখন আমাকে নিয়ে আসে, তখন হৃদয় বলছিল- আমাকে না পেলে আত্মহত্যা করবে। রাতে আমরা যে গাড়িতে বাড়ি ফিরি, হৃদয় সেই গাড়িতে আমাদের সঙ্গে আসেনি।
গৌরীপুর থানার এসআই নজরুল ইসলাম বলেন, ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। ময়নাতদন্তের জন্য মরদেহ মর্গে পাঠানোর প্রস্তুতি চলছে। তবে এটি হত্যা না আত্মহত্যা তদন্ত রিপোর্ট না পাওয়া পর্যন্ত বলা যাচ্ছে না।

HostGator Web Hosting