| |

সর্বশেষঃ

দুই দিনে চালের দাম বেড়েছে ৬ টাকা

আপডেটঃ ৬:৩১ অপরাহ্ণ | নভেম্বর ১৫, ২০১৯

নিজস্ব প্রতিবেদক : গত দুই দিনের ব্যবধানে রাজধানীতে চালের দাম বেড়েছে অস্বাভাবিকভাবে। প্রতি কেজি মিনিকেট চালের দাম বেড়েছে পাঁচ থেকে ছয় টাকা। এছাড়া বিরি-২৮ চালের দাম বেড়েছে প্রতি কেজিতে দুই টাকা। তবে খুচরা দোকানগুলোতে বিরি-২৮ চাল বিক্রি হচ্ছে চার থেকে পাঁচ টাকা বেশি দরে। শুক্রবার (১৫ নভেম্বর) রাজধানীর মোহাম্মদপুরের কৃষি মার্কেটসহ অন্যান্য বাজার ঘুরে এ তথ্য জানা গেছে।

কৃষি মার্কেটের রাজশাহী ট্রেডার্সের মালিক মো. মোক্তার হোসেন বলেন, ‘গত বুধবার (১৩ নভেম্বর) মিনিকেটে ৫০ কেজির বস্তা বিক্রি হয়েছে দুই হাজার টাকায়। শুক্রবার সেটি বিক্রি হচ্ছে দুই হাজার ৩০০ থেকে দুই হাজার ৩৫০ টাকায়।’

একই মার্কেটের ‘আলী রাইস’-এর মালিক মো. দেলোয়ার হোসেন বলেন, ‘বুধবার মিনিকেট বিক্রি করেছি ৪২ থেকে ৪৫ টাকা কেজি। আজ বিক্রি করছি ৪৮ থেকে ৫০ টাকা।’

মেসার্স সিমন অ্যান্ড সিফাত রাইস এজেন্সির বিক্রয়কর্মী রাসেল বলেন, ‘গত বুধবারের চেয়ে মিনিকেট আজ প্রতি কেজিতে ছয় টাকা বেশি দামে বিক্রি করছি। বিরি-২৮ চাল ৩০ থেকে ৩২ টাকা কেজি দরে বিক্রি করেছি দুই দিন আগে। আজ তা বিক্রি করছি ৩৬ থেকে ৩৮ টাকায়। প্রতি কেজি স্বর্ণা বিক্রি করেছি ৩২ টাকায়, আজ বিক্রি করছি ৩৫ টাকায়। বুধবার নাজিরশাল ৪৮ টাকায় বিক্রি করেছি, আজ বিক্রি করছি ৫৪ টাকায়। প্রতি কেজি চিনিগুঁড়া ৮০ টাকা থেকে বেড়ে হয়েছে ৯০ টাকা।’

ব্যবসায়ীরা বলছেন, উত্তরাঞ্চলের ধান-চালের সবচেয়ে বড় মোকাম নওগাঁয় এক সপ্তাহের ব্যবধানে চিকন চালের দাম বেড়েছে প্রতি কেজিতে চার থেকে পাঁচ টাকা। আর বস্তাপ্রতি (৫০ কেজি) বেড়েছে প্রায় ২০০ টাকা। বিরি-২৮ জাতের ধানের সরবরাহ কমায় চালের দাম বেড়েছে। মোকাম থেকে বেশি দামে কিনতে হচ্ছে।

দাম বেড়েছে আটা-ময়দারও। রাজশাহী ট্রেডার্সের মালিক মো. মোক্তার হোসেন জানান, ময়দার দাম বেড়েছে বস্তা প্রতি ১৫০ টাকা ২০০ টাকা।

এদিকে, পেঁয়াজের দাম বৃদ্ধি অব্যাহত রয়েছে। বুধবার রাজধানীতে মিশরের পেঁয়াজ প্রতি কেজি বিক্রি হয়েছে ১৪৫ টাকায়। শুক্রবার সেই পেঁয়াজের পাইকারি দর প্রতি কেজি ১৮০ টাকা। আর উন্নত দেশি পেঁয়াজ বুধবার বিক্রি হয়েছে ১৫০ থেকে ১৫৫ টাকায়, সেটি আজ বিক্রি হচ্ছে ২২০ টাকায়।

খুচরা ব্যবসায়ী বিমল মৃধা বলেন, ‘আজই অনেক জায়গায় দেশি পেঁয়াজ খুচরা বিক্রি হচ্ছে ২৫০ টাকায়। সন্ধ্যার পর বা আগামীকাল থেকে খুচরা ব্যবসায়ীরা ৩০০ টাকা পর্যন্ত দাম হাঁকাতে পারে।’

HostGator Web Hosting