| |

সর্বশেষঃ

  • মুজিব বর্ষ

আওয়ামী লীগ নির্বাচনী আচরণ বিধি মেনে চলবে : ওবায়দুল কাদের

আপডেটঃ ৭:০৪ অপরাহ্ণ | জানুয়ারি ১০, ২০২০

নিজস্ব প্রতিবেদক : সিটি নির্বাচনে আওয়ামী লীগ নির্বাচন কমিশনের আচরণ বিধি মেনে চলবে-এটা প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশ বলে জানিয়েছেন দলের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।
তিনি বলেন, দলীয়ভাবে আমরা আমাদের নেতাকর্মীদের নির্দেশনা দিয়েছি। প্রধানমন্ত্রী মন্ত্রীদের জানিয়ে দিয়েছেন কোনভাবেই যেনো নির্বাচনের আচরণবিধি লঙ্ঘন না হয়।
সেতুমন্ত্রী আজ শুক্রবার রাজধানীর এলেন বাড়িতে সড়ক ও জনপথ অধিদপ্তরে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতি এবং সংস্কার কাজ উদ্বোধন শেষে আলোচনা সভায় এসব কথা বলেন।
তিনি বলেন, ‘আমি তার পরেও বলব, নির্বাচন কমিশনের যে আচরণবিধি, আমরা তা পালন করব। আমি আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক, আমি মন্ত্রী-এমপি হিসেবে আচরণবিধি মেনে চলছি। আচরণ বিধি যেহেতু হয়েই গেছে। তবে এটা নিয়ে প্রশ্ন আছে, বিতর্ক আছে, যেটা আমি বললাম।’
লেভেল প্লেয়িং ফিল্ড নিয়ে বিএনপির অভিযোগের বিষয়ে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘আমি আপনাদের বিবেকের কাছেই প্রশ্ন রাখছি। লেভেল প্লেয়িং ফিল্ড কাকে বলে? বিএনপি মহাসচিব, তিনি প্রকাশ্যে জনসভা করতে পারবেন, নির্বাচনী প্রচারণা করতে পারবেন, গণসংযোগ করতে পারবেন। আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সেটা করতে পারবেন না।
তিনি বলেন, ব্যারিষ্টার মওদুদ আহমদ, খন্দকার মোশাররফ প্রচারণায় অংশ নিতে পারবেন, কিন্তু আমির হোসেন আমু, তোফায়েল আহমেদ, তারা এমপি, সে কারণে প্রচারে অংশ নিতে পারবেন না। সেটা কি লেভেল প্লেয়িং ফিল্ড হলো?
নির্বাচন কমিশনের প্রতি প্রশ্ন রেখে ওবায়দুল কাদের বলেন, ফিল্ডে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আছেন, আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক নেই। এ কেমন লেভেল প্লেয়িং ফিল্ড? আমি এটা নির্বাচন কমিশনের কাছে জানতে চাই। এই বিষয়টার আমি কোনো সুরাহা খুঁজে পাচ্ছি না।
পৃথিবীর বিভিন্ন গণতান্ত্রিক দেশের নির্বাচন প্রক্রিয়ার কথা তুলে ধরে তিনি বলেন, ত্রিপুরা, কর্নাটকের বিধানসভা নির্বাচনে ভারতের প্রধানমন্ত্রীও প্রচারণায় অংশ নেন। পৃথিবীর অন্যান্য গণতান্ত্রিক দেশেও স্থানীয় সরকার নির্বাচনে কেন্দ্রীয় নেতারা অংশ নেন। সেখানে লেভেল প্লেয়িং ফিল্ডের কোনো প্রশ্ন উঠছে না। আইন লঙ্ঘন হয় না। বাংলাদেশে কেন লঙ্ঘন হবে।
সড়কের ক্ষতি কমাতে ২৮টি লোড কন্ট্রোল স্থাপনের সিদ্ধান্ত হয়েছে জানিয়ে সড়ক পরিবহন মন্ত্রী বলেন, একনেকে ২৮টি লোড কন্ট্রোল স্থাপনের সিদ্ধান্ত নেওয়ার হয়েছে। ভারী পরিবহন সড়ক নষ্ট করে দিচ্ছে। ক্ষতি থেকে সড়কগুলোকে রক্ষা করতে হলে আমাদের প্রয়োজন লোড কন্ট্রোল স্থাপন ব্যবস্থা কার্যকর করা। দ্রুতই এটা স্থাপন করা হবে।
সড়কে শৃঙ্খলা ফিরিয়ে আনার বিষয়ে সেতুমন্ত্রী বলেন, সড়ক পরিবহনে শৃঙ্খলা ফিরিয়ে আনতে শুধু মুখের কথায় সীমাবদ্ধ থাকলে চলবে না। মানুষ দেখতে চায় কথার সঙ্গে কাজের সামঞ্জস্য। তাই মুজিববর্ষে আমাদের বড় এজেন্ডা সড়কে শৃঙ্খলা ফিরিয়ে আনা।
এ সময় জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী যথাযোগ্য মর্যাদায় উদযাপন উপলক্ষে ১৭ মার্চ থেকে বছরব্যাপী ধারাবাহিকভাবে তা পালনের জন্য সড়ক ও জনপথ অধিদপ্তরের নেয়া বিভিন্ন কর্মসূচির কথাও তিনি উল্লেখ করেন।

HostGator Web Hosting