| |

সর্বশেষঃ

  • মুজিব বর্ষ

আদা, রসুন, পেঁয়াজের সরবরাহ বাড়ছে, দাম কমছে

আপডেটঃ 2:38 pm | May 04, 2020

বিশেষ সংবাদদাতা : আদা, রসুন, পেঁয়াজের সরবরাহ বাড়ায় পাইকারি বাজারে ক্রমে দাম কমছে। অনেক আড়তে ক্রেতার দেখাও মিলছে না।

সোমবার (৪ মে) দেশের সবচেয়ে বড় ভোগ্যপণ্যের পাইকারি বাজার খাতুনগঞ্জের আড়তে প্রতিকেজি চীনা আদা ১১৫ টাকা, মিয়ানমারের ১০৫ টাকা, দেশি ও মিয়ানমারের পেঁয়াজ ৩৫ টাকা ও চীনা রসুন ১১৫ টাকা, দেশি ৯০ টাকায় বিক্রি হয়েছে।

ব্যবসায়ী ও ক্রেতারা বলছেন, চট্টগ্রাম বন্দর থেকে কনটেইনার ডেলিভারি বৃদ্ধিতে বাজারে পেঁয়াজ, রসুন, আদার সরবরাহ বেড়েছে। মিয়ানমার থেকে টেকনাফ স্থলবন্দর দিয়ে আদা ও পেঁয়াজ আমদানি হচ্ছে। এর বাইরে রমজানের প্রথম সপ্তাহে বাজারে বাড়তি চাহিদা ও সরবরাহ ঘাটতি থাকাকালে জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদফতর ও জেলা প্রশাসনের অভিযানও ইতিবাচক প্রভাব ফেলেছে।

বন্দর সূত্রে জানা গেছে, চীন থেকে আদা, রসুন এবং মিশরের পেঁয়াজ কনটেইনারে করে বন্দরে আসছে। এসব কনটেইনার দ্রুত খালাসের জন্য বন্দরের ইয়ার্ড টার্মিনাল থেকে ডেলিভারির পাশাপাশি বেসরকারি আইসিডিতেও পাঠানো হচ্ছে।

চট্টগ্রাম সমুদ্র বন্দরের উদ্ভিদ সংগনিরোধ কেন্দ্রের উপ পরিচালক ড. মোহাম্মদ আসাদুজ্জামান বুলবুল জানান, গত এপ্রিলে চীন থেকে ১ হাজার ৭৩৩ টন আদা এসেছে। এর আগের মাসে (মার্চে) এসেছে ৩ হাজার ২৬৭ টন। পাইপলাইনে আছে আমদানি অনুমতিপত্র (আইপি) নেওয়া ৪ হাজার ১৯৩ টন আদা।

তিনি জানান, এপ্রিলে চীন থেকে ৩ হাজার টন, মার্চে ৫ হাজার ১৫৮ টন রসুন এসেছে। আইপি নেওয়া হয়েছে ১ হাজার ৬৬৯ টনের। মিশর থেকে এপ্রিলে ১ হাজার ৬৮১ টন, মার্চে ৩ হাজার ৬৯১ টন পেঁয়াজ এসেছে। আইপি নেওয়া হয়েছে ১ হাজার ৫৪২ টনের।

এবার রমজান সামনে রেখে অস্ট্রেলিয়া থেকে প্রচুর ছোলা আমদানি হয়েছে জানিয়ে এ কর্মকর্তা বলেন, শুধু এপ্রিলে ১৬ হাজার ১০৭ টন, মার্চে ১৯ হাজার ১৫০ টন ছোলা এসেছে। পাইপলাইনে আছে ৩ হাজার ৮৩৫ টন।

খাতুনগঞ্জের হামিদুল্লাহ মার্কেট ব্যবসায়ী সমিতির সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ ইদ্রিস বলেন, আদা পচনশীল পণ্য। চীনা আদা এক সপ্তাহের বেশি আড়তে রাখা যায় না। পচন ধরে। করেনাভাইরাস প্রতিরোধে সারা দেশে সামাজিক দূরত্ব নিশ্চিতে সাধারণ ছুটিতে নানা কারণে বন্দরে কনটেইনার জট হওয়ায় একদিকে চীনা আদার সরবরাহে ঘাটতি দেখা দেয় অন্যদিকে রমজানের প্রথম সপ্তাহে অস্বাভাবিক চাহিদা বেড়ে যাওয়ায় দাম বেড়ে গিয়েছিলো। সরবরাহ বৃদ্ধি ও ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযানে এখন দাম নিম্নমুখী।

HostGator Web Hosting