| |

সর্বশেষঃ

  • মুজিব বর্ষ

টাঙ্গাইল ও লক্ষ্মীপুরে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত ৩

আপডেটঃ 1:54 pm | April 07, 2016

টাঙ্গাইল ও লক্ষ্মীপুর প্রতিনিধি : টাঙ্গাইল ও লক্ষ্মীপুরে র‌্যাব-পুলিশের সঙ্গে কথিত বন্দুকযুদ্ধে তিনজন নিহত হয়েছেন। পৃথক এ বন্দুকযুদ্ধ হয় বৃহস্পতিবার রাত ১টা থেকে পৌনে ৩টার মধ্যে।

নিহতরা হলেন- টাঙ্গাইল সদর উপজেলার যুগনী হাটখোলা এলাকার ফজলু ড্রাইভার (৪০) ও তার সহকারী উজ্জ্বল (৩৫)। এবং লক্ষ্মীপুর সদর উপজেলার চন্দ্রগঞ্জের পশ্চিম লতিফপুর গ্রামের ইউনুছ মিয়ার ছেলে কাউসার (৩২)।

জেলা প্রতিনিধিদের খবরে বিস্তারিত :

টাঙ্গাইল : র‌্যাব-১২ এর কোম্পানি কমান্ডার মহিউদ্দিন ফারুকী  জানান, চরমপন্থী দল পূর্ব বাংলা কমিউনিস্ট পার্টির সদস্যরা গোপন বৈঠক করছে-এমন সংবাদের ভিত্তিতে উপজেলার যুগনী হাটখোলা এলাকায় রাত ১টার দিকে অভিযান চালায় র‌্যাব। এ সময় র‌্যাবকে লক্ষ্য করে তারা গুলি ছোড়ে। র‌্যাবও পাল্টা গুলি ছুড়লে চরমপন্থী দলের দুই সদস্য নিহত হন। লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য টাঙ্গাইল মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। এ সময় র‌্যাবের দুই সদস্য আহত হয়েছেন। তারা টাঙ্গাইল মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসা নিয়েছেন। ঘটনাস্থল থেকে একটি পিস্তল ও একটি রিভলবার উদ্ধার করা হয়েছে। নিহত ফজলুর বিরুদ্ধে থানায় একাধিক হত্যা মামলা রয়েছে বলেও জানান তিনি।

লক্ষ্মীপুর : লক্ষ্মীপুর সদরের চন্দ্রগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) একেএম আজিজুর রহমান জানান, সন্ত্রাসী কাউসারকে গ্রেফতারের পর তার দেওয়া তথ্যমতে রাত পৌনে ৩টায় উপজেলার চন্দ্রগঞ্জের লতিফপুর গ্রামের ৩ নম্বর পুল এলাকায় অস্ত্র উদ্ধারে যায় পুলিশ। এ সময় তার সহযোগীরা পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলি ছোড়ে। আত্মরক্ষার্থে পুলিশও পাল্টা গুলি ছোড়ে। একপর্যায়ে সন্ত্রাসীদের ছোড়া গুলিতে কাউসার নিহত হন। এ ছাড়া এসআইসহ পুলিশের তিন সদস্য আহত হন। ঘটনাস্থল থেকে একটি এলজি ও চার রাউন্ড গুলি উদ্ধার করা হয়। কাউসারের বিরুদ্ধে হত্যা, চাঁদাবাজি, অস্ত্র, অগ্নিসংযোগ ও পুলিশের ওপর হামলাসহ ৬টি মামলা রয়েছে। লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে।

লক্ষ্মীপুরের সহকারী পুলিশ সুপার (এএসপি) নাসিম মিয়া  জানান, বন্দুকযুদ্ধে এসআই কাউসার উদ্দিন চৌধুরী, কনস্টেবল ইব্রাহিম খলিল ও মহসিন খান আহত হয়েছেন। তাদের প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে।

HostGator Web Hosting