| |

সর্বশেষঃ

  • মুজিব বর্ষ

ময়মনসিংহ মেডিক্যালের ৫০০ শয্যার নতুন ভবনকে কোভিড ডেডিকেটেড হাসপাতাল ঘোষণা

আপডেটঃ 5:39 pm | May 21, 2020

স্টাফ রিপোর্টার, ময়মনসিংহ প্রতিদিন ডটকম : করোনাভাইরাসের হটসপট এখন ময়মনসিংহ বিভাগ। আক্রান্ত, মৃত্যু, ঝুঁকি, আতংক এই বিভাগে সবই বাড়ছে লাফিয়ে লাফিয়ে। ময়মনসিংহ বিভাগের দেড় কোটি মানুষের উন্নত ও প্রধান সরকারি চিকিৎসালয় ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের (মমেকহা) ৫০০ শয্যা বিশিষ্ট নতুন ভবনকে অবশেষে করোনা ডেডিকেটেড হাসপাতালের ঘোষণা দিয়েছে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর। এ সংক্রান্ত একটি পত্র পেয়েছে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। এ বিষয়টি বুধবার নিশ্চিত করে হাসপাতালের উপ-পরিচালক ডাঃ লক্ষী নারায়ন মজুমদার জানান, কোভিড হাসপাতাল বাস্তবায়ন করতে বুধবার একটি সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। ঈদের পর নতুন ভবনটি কোভিড হাসপাতাল হিসেবে বাস্তবায়নের কাজ সম্পন্ন করা হবে। পরিস্থিতি আরও খারাপ হতে পারে, এমন আশঙ্কা থেকেই ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের নতুন ভবনকে করোনা ডেডিকেটেড হাসপাতাল করার জন্য বেছে নেওয়া হয়েছে। এদিকে কোভিড রোগীদের উন্নতমানের চিকিৎসা দেয়ার লক্ষ্যে কেন্দ্রীয় অক্সিজেন সমৃদ্ধ নতুন ভবনটিকে কোভিড হাসপাতাল হিসেবে ঘোষণা দেয়ার জন্য স্থানীয় বিএমএ ও স্বাচিপসহ বিভিন্ন নাগরিক নেতৃবৃন্দ দাবী জানিয়ে আসছিলো। একটি পক্ষ এটাকে কোভিড না করার জন্য নানা অপপ্রচার চালায় বলে অভিযোগ বিএমএ নেতৃবৃন্দের।

কোভিড রোগীদের উন্নতমানের চিকিৎসা দেয়ার লক্ষ্যে কেন্দ্রীয় অক্সিজেন সমৃদ্ধ নতুন ভবনটিকে কোভিড হাসপাতাল হিসেবে ঘোষণা দেয়ার জন্য জেলা বিএমএ দীর্ঘদিন ধরে দাবী জানিয়ে আসছিলো। এই দাবী বাস্তবায়নে সমর্থণ ও সহযোগীতা দেয়ার জন্য স্বাস্থ্যমন্ত্রী, ও গৃহায়ন ও গণপূর্ত প্রতিমন্ত্রী, স্বাস্থ্য অধিদপ্তর, বিভাগীয় কমিশনার, ডিআইজি, জেলা প্রশাসক, পুলিশ সুপার,স্বাস্থ্য পরিচালক স্বাস্থ্য, সিভিল সার্জন সহ নাগরিক নেতৃবৃন্দ ও সাংবাদিক সহ সকলের প্রতি আন্তরিক ধন্যবাদ জানিয়েছেন জেলা বিএমএ ও স্বাচিপ সভাপতি ডাঃ মতিউর রহমান ভূইয়া ও স্বাধীনতা চিকিৎসক পরিষদ (স্বাচিপ) কেন্দ্রীয় পরিষদের ময়মনসিংহ বিভাগীয় করোনা মনিটরিং সেলের সমন্বয়ক, বি.এম.এ ও স্বাচিপ ময়মনসিংহ জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক ডাঃ এইচ. এ. গোলন্দাজ তারা।

এদিকে গত ২৮ এপ্রিল ময়মনসিংহ জেলা প্রশাসন সম্মেলন কক্ষে করোনা প্রতিরোধ কমিটির এক সভা হয়। এতে গণপূর্ত প্রতিমন্ত্রী শরীফ আহমেদ প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন। ওই সভার সুপারিশের ভিত্তিতে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের নতুন ভবনকে করোনা ডেডিকেটেড হাসপাতালের ঘোষণা দিয়েছে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর।

স্বাস্থ্য বিভাগ সূত্র বলছে, ওই সভায় বক্তারা করোনা পরিস্থিতি নিয়ে বিভিন্ন বক্তব্য তুলে ধরেন। তাঁরা বলেন, ময়মনসিংহে করোনায় আক্রান্ত ব্যক্তির সংখ্যা বৃদ্ধি পাচ্ছে। তাই তাঁদের চিকিৎসার জন্য পর্যাপ্ত ব্যবস্থা গ্রহণ ও প্রস্তুতি এখনই নিতে হবে। সভায় ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের আটতলা নতুন ভবনটিকে করোনা ডেডিকেটেড হাসপাতালে রূপান্তরের প্রস্তাব দেওয়া হয়। ওই সুপারিশ বিবেচনায় নেওয়া হয়। পরে স্বাস্থ্য বিভাগ এই প্রস্তাব অনুমোদনের সিদ্ধান্ত নেয়।
এর আগে ময়মনসিংহ শহরের এস.কে হাসপাতালে প্রথমে ৩০ শয্যা ও পরে ৭০ শয্যার আইসোলেশন ইউনিট প্রস্তুত করা হয়। একই সঙ্গে সদরের পরাণগঞ্জ হাসপাতালে ৩০ শয্যা এবং মুক্তাগাছার শারীরিক শিক্ষা কলেজে ৫০শয্যার আইসোলেশন ইউনিট প্রস্তুত আছে। বেসরকারি হাসপাতালগুলোতে আরও ২৪০ শয্যার প্রস্তুতি নেওয়া হয়েছিল। অন্যান্য উপজেলা মিলিয়ে সর্বমোট সাড়ে চারশ’ শয্যা প্রস্তুত রাখা হয়েছে বলে জেলা প্রশাসন সূত্র জানায়।

বিলম্বে হলেও করোনা ডেডিকেটেড হাসপাতাল স্থাপনের সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানিয়েছেন বিএমএ ময়মনসিংহ শাখার সাধারণ সম্পাদক হোসাইন আহাম্মদ গোলন্দাজ। তিনি বলেন, এই সিদ্ধান্তের ফলে করোনায় আক্রান্ত ব্যক্তিদের যথাযথ চিকিৎসাসেবা দেওয়া সম্ভব হবে। কারণ, এই হাসপাতালে আইসিইউ, ভেন্টিলেটর এবং পর্যাপ্ত অক্সিজেনসহ সব ব্যবস্থা রয়েছে।

ময়মনসিংহ বিভাগীয় পরিচালক স্বাস্থ্য ডাঃ মোঃ আবুল কাশেম জানান, ময়মনসিংহ বিভাগের চার জেলায় গত ২০ মে পর্যন্ত মোট নমুনা পরীক্ষা হয়েছে ১০ হাজার ৭০৫টি তন্মধ্যে মোট করোনায় আক্রান্ত হয়েছে ৬৭১ জন এবং মারা গেছে ১১ জন। সুস্থ্য হয়ে বাড়ি ফিরে গেছেন ২৫৮জন।

HostGator Web Hosting