| |

সর্বশেষঃ

গৌরীপুরে পৃথক সংঘর্ষে আহত দুই ব্যক্তির মৃত্যু : প্রতিপক্ষের বাড়িতে বিক্ষুব্দদের অগ্নিসংযোগ-ভাংচুর

আপডেটঃ 3:32 pm | May 22, 2020

শামীম খান, স্টাফ রিপোর্টার, ময়মনসিংহ প্রতিদিন ডটকম : ময়মনসিংহের গৌরীপুর উপজেলার পালুহাটি গ্রামে সংঘর্ষে আহত ব্যবসায়ী আব্দুল ওয়াহাব (৪৫) ২০ দিন মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ে বৃহস্পতিবার (২১ মে) সকাল সাড়ে ১০ টার দিকে মারা গেছেন। এ মৃত্যুর ঘটনায় এ দিন দুপুর ১২ টার দিকে পালুহাটি গ্রামে প্রতিপক্ষ রতন মিয়া (৩৫) ও তার লোকজনের বাড়ি-ঘরে ভাংচুর লুটপাট-অগ্নিসংযোগ করেছেন বিক্ষুব্দরা।
অপরদিকে সিংরান্দ গ্রামে প্রতিপক্ষের হামলায় আহত যুবক আদিল (৩২) বুধবার রাত সাড়ে ৭ টার দিকে মৃত্যুবরন করেন। এ ঘটনায় সিংরান্দ গ্রামে ওইদিন রাতে প্রতিপক্ষের বাড়ি ঘরে ভাংচুর, লুটপাট ও অগ্নিসংযোগ করেছে বিক্ষুব্দ জনতা।
নিহত আব্দুল ওয়াহাবের ভাগ্নে নাজমুল আহমেদ (২৪) জানান, তারা মামা এ উপজেলার পালুহাটি বাজারে কাপড় ও গ্যাস সিলিন্ডার ব্যবসায়ী ছিলেন। পূর্ব বিরোধের জের ধরে একই গ্রামের রতন মিয়া (৩৫) ও কাউয়ূম মিয়ার নেতৃত্বে ১ মে সকাল সাড়ে ১০ টার দিকে পালুহাটি বাজারে হামলা চালিয়ে তার মামা আব্দুল ওয়াহাবকে গুরুতর আহত করা হয়। এ হামলার ঘটনায় গৌরীপুর থানায় একটি মামলা দায়ের করা হয়।
এদিকে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আব্দুল ওয়াহাবের অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় ১৬ মে তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রেফার্ড করা হয়। কিন্তু ওই হাসপাতালের কর্তৃপক্ষ তার মামাকে ভর্তি না করায় তাকে গৌরীপুরে নিয়ে আসেন তারা। অবশেষে ২০ দিন মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ে বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে তিনি মৃত্যুবরন করেন।
অপরদিকে ২০ মে বিকেলে সিংরান্দ গ্রামে গ্রাম্য সালিশে কথাকাটির একপর্যায়ে মেরাজুল (৪৫) ও তার লোকজন আদিলের ওপর হামলা চালিয়ে তাকে গুরুতর আহত করে। আহত আদিলকে হাসপাতালে নেয়া পথে এদিন রাত সাড়ে ৭ টার দিকে তিনি মারা যান।
এ বিষয়ে গৌরীপুর থানার এস আই নজরুল ইসলাম জানান, গৌরীপুর সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সাখের হোসেন সিদ্দিকী ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। বর্তমানে এলাকায় উত্তপ্ত পরিস্থিতি শান্ত রয়েছে বলে জানান তিনি।

HostGator Web Hosting