| |

সর্বশেষঃ

  • মুজিব বর্ষ

হাইকোর্টে আটকে গেল রানা প্লাজার সোহেল রানার জামিন

আপডেটঃ 1:57 pm | June 08, 2020

নিজস্ব প্রতিবেদক : জ্ঞাত আয়বহির্ভূত সম্পদ অর্জনের অভিযোগে দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) করা মামলায় রানা প্লাজার মালিক সোহেল রানাকে দেয়া বিচারিক (নিম্ন) আদালতের জামিন স্থগিত করেছেন হাইকোর্ট।

জামিন বাতিলের দাবিতে দুদকের করা ফৌজদারি রিভিশন আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে হাইকোর্টের বিচারপতি মো. নজরুল ইসলাম তালুকদারের ভার্চুয়াল বেঞ্চ এ আদেশ দেন। ভার্চুয়াল আদালতের কার্যক্রম শেষে নিয়মিত বেঞ্চ চালু হওয়ার পর এক সপ্তাহ পর্যন্ত এই স্থগিতাদেশ বহাল থাকবে। আদেশের বিষয়টি জাগো নিউজকে নিশ্চিত করেছেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল একেএম আমিন উদ্দিন মানিক।

আদালতে আজ দুদকের পক্ষে আইনজীবী ছিলেন মো. খুরশিদ আলম খান। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল একেএম আমিন উদ্দিন মানিক ও সহকারী অ্যাটর্নি জেনারেল কাজী শামসুন নাহার কনা। সোহেল রানার পক্ষে শুনানি করেন আইনজীবী মো. আলমগীর হোসেন ও মো. কায়সার জাহিদ।

এর আগে গত ১৭ মে ঢাকার বিশেষ জজ আদালত নং ৬ ভার্চুয়াল কোর্ট তাকে জামিন দেন। এরপর জামিন বাতিল চেয়ে দুদক ফৌজদারি রিভিশন আবেদন করেন হাইকোর্টে। আজ ভার্চুয়াল আদালত নিয়মিত বেঞ্চ চালু হওয়ার পর এক সপ্তাহ পর্যন্ত এই স্থগিতাদেশ দিয়েছেন।

সাভারে ধসে পড়া রানা প্লাজার মালিক সোহেল রানার বিরুদ্ধে জ্ঞাত আয়বহির্ভূত সম্পদ অর্জনের অভিযোগে ২০১৭ সালের ৩১ ডিসেম্বর সাভার মডেল থানায় মামলাটি দায়ের করেন দুদকের উপ-পরিচালক মুহ. মাহবুবুল আলম।

এ মামলায় দুই কোটি ৫৪ লাখ ৪৩ হাজার ৭৯৩ টাকার জ্ঞাত আয়বহির্ভূত সম্পদ অর্জনের বিষয় উল্লেখ করা হয়েছে। ২০০৪ সালের দুর্নীতি দমন কমিশন আইনে অসাধু উপায়ে অর্জিত জ্ঞাত আয়ের সঙ্গে অসঙ্গতিপূর্ণ সম্পদ অর্জন করা ও ভোগদখল করার অপরাধে এ মামলাটি দায়ের করা হয়। এজাহার মতে, ২০১২-১৩ অর্থবছরে সোহেল রানার আয়কর রিটার্ন দাখিলে তার ব্যাংকে এক লাখ ৭৮ হাজার ৯৫৩ টাকা প্রদর্শন করা হয়। কিন্তু দুদক অনুসন্ধানে গিয়ে দেখে তিনটি ব্যাংক হিসাবে তার নামে ২৭ লাখ ৮০ হাজার ৭৬৭ টাকা জমা আছে। এখানে তিনি ২৬ লাখ এক হাজার ৮১৪ টাকা আয়কর নথিতে প্রদর্শন করেননি।

এ ছাড়া সাভার বাজার রোড এলাকায় রানা টাওয়ারের চতুর্থ তলা পর্যন্ত নির্মাণ ব্যয় এক কোটি ৩০ লাখ ৮৬ হাজার ৫৯৪ টাকা দেখানো হলেও প্রকৃতপক্ষে তিন কোটি ৫৯ লাখ ২৮ হাজার ৫৯৪ টাকা ব্যয় হয় বলে দুদক অনুসন্ধানে জানতে পারে। এখানেও তিনি দুই কোটি ২৮ লাখ ৪১ হাজার ৯৭৯ টাকা কম দেখান।

২০১৫ সালের ১ এপ্রিল রানা প্লাজার মালিক সোহেল রানার সম্পদের হিসাব চেয়ে কারাগারে নোটিশ পাঠায় দুদক। তখন কারাগার থেকে সম্পদের কোনো হিসাব দিতে পারবেন না বলে জানিয়ে দেন সোহেল রানা। এরপরই আয়কর বিভাগ থেকে তার সম্পদ ও আয়ের তথ্য সংগ্রহ করা হয়।

HostGator Web Hosting