| |

সর্বশেষঃ

বার্সা ছাড়ছেন মেসি

আপডেটঃ 4:42 pm | July 03, 2020

ক্রীড়া ডেস্ক : ফুটবল মানেই মেসি, আর মেসি মানেই বার্সেলোনা। সেই বাচ্চা বয়সে কাতালান শিবিরে আসা। সেখান থেকে ধীরে ধীরে নিজেকে অনন্য উচ্চতায় নিয়ে গেছেন এলএম টেন। জাতীয় দলের হয়ে যা করতে পারেননি, তার সবকিছুই করেছেন বার্সেলোনায়।

সেই বার্সেলোনার সাথেই আর চুক্তি নবায়ন করতে যাচ্ছেন না এই তারকা ফুটবলার। স্প্যানিশ গণমাধ্যম বলছে, ২০২১ সালে তার সবশেষ চুক্তি শেষ হলে, তা আর বাড়াবেন না ফুটবলের এই ছোট্ট জাদুকর। এখানেই শেষ করবেন বার্সা সফর।

সদ্যই ৩৩ বছরে পা রাখা এই আর্জেন্টাইন চলতি সপ্তাহেই করেছেন ৭০০তম গোল। তাহলে কি এবারের লিগ শিরোপা হাতছাড়া হবার কারণে ক্লাবের সাথে চুক্তি নবায়ন করলেন না মেসি! তাই মেসির পরবর্তী ক্লাব কোনটি হবে তাই এখন ফুটবল প্রেমিদের কাছে সবচেয়ে বড় প্রশ্ন।

এদিকে স্প্যানিশ গণমাধ্যম বলছে ভিন্ন খবর। তাদের মতে, ক্লাবের সাথে তার সম্পর্কে চির ধরার সূত্রপাত চলতি বছরের শুরু থেকে। বিভিন্ন সময়ে ক্লাবে ঘটে যাওয়া ঘটনা বাইরে প্রকাশ পাওয়া এবং মেসিকে দোষারোপ করায় চটেছেন এই আর্জেন্টাইন। বিশেষ করে সে সময় দলের কোচ আর্নেস্তো ভালভার্দের চলে যাবার পেছনে নাকি তার হাত রয়েছে, এমন খবরও ছড়িয়ে পড়ে বাইরে।

যে ক্লাবের জন্য তার সবকিছু। অর্থের লোভে যে ক্লাবকে ছাড়েননি, সে ক্লাবের গোপন তথ্য বাইরে আসা আর তাকে দোষারোপ করা কোনভাবেই নিতে পারেননি এলএম টেন। তাই ২০১৭ সালের পর আর কোন চুক্তি নয় মেসির পক্ষ থেকে।

এর আগে ২০১৩ সালে গুঞ্জন উঠেছিলো মেসির বার্সা ছাড়া নিয়ে। তবে সেবার বার্সেলোনা না, মেসি ছাড়তে চেয়েছিলেন স্পেন। তখন বেতন বাড়ানো, পেপ গার্দিওলার সাথে চলে যাওয়া এমন অনেক গুজব ছড়ালেও, মেসির সমস্যা ছিলো স্পেনে ট্যাক্স ফাঁকির অভিযোগে বড় শাস্তির ভয়। কিন্তু ক্লাবের টানে সব যুদ্ধে মুখোমুখি হয়ে সেবার থেকে গেলেন। বিনিময়ে তাকে গুনতে হয়েছে ২৩ লাখ ডলার জরিমানা। সাথে ২১ মাসের জেলও দেয়া হয়েছিলো, কিন্তু সে শাস্তি থেকে তাকে মুক্তি দেয়া হয়।

এবার অবশ্য আর এই জার্সির মায়ায় আটকে রাখা গেলো না মেসিকে। তাহলে কোথায় যাচ্ছেন তিনি? যদিও এর আগে আর্জেন্টিনার জাতীয় দলের হয়ে কয়েক দফায় অবসর নিয়ে, আবারো ফিরেছেন মেসি। তবে চলতি মৌসুমেই ম্যানচেস্টার সিটির সাথে চুক্তি শেষ হবে পেপ গার্দিওলার। নতুন কোন ঠিকানায় এই দুই জনকে একসাথে দেখা গেলে অবাক হবার কিছু থাকবে না।

HostGator Web Hosting