| |

সর্বশেষঃ

ময়মনসিংহে শীতের আগমনে লেপ-তোষক তৈরিতে কারিগররা ব্যস্ত

আপডেটঃ ৫:৫১ অপরাহ্ণ | নভেম্বর ২২, ২০১৫

মো: রাসেল হোসেন, ময়মনসংহ প্রতিদিন :

শীত আসছে দিন দিন শীতল বাতাসের সঙ্গে রাতে হালকা হিমেল হাওয়ায় শীতের তীব্রতা বাড়িয়ে দিচ্ছে। গত সপ্তাহের চেয়ে এ সপ্তাহে দিনে গরম অনুভব করলেও রাতের ঘন কুয়াশায় ও তীব্র থেকে তীব্রতম ঠাণ্ডা পড়তে শুরু করেছে।
সাতসকালে ঘাস, লতাপাতার ওপর জমে থাকা শিশির বিন্দু জানান দেয় শীতের আগমণী বার্তা। শীতের শুরু না হলেও জলবায়ু পরিবর্তনে অনুভূত হচ্ছে শীতের আমেজ।
অগ্রহায়ণ, পৌষ ও মাঘ এই তিন মাস শীত মৌসুম হিসেবে বিবেচিত হয়। আর শীত মোকাবিলায় আগাম প্রস্তুতি হিসেবে হিঁড়িক পড়েছে লেপ-তোষক বানানোর।
জানা গেছে, একদিকে শীত মৌসুম অন্যদিকে কম-বেশী বিয়ের ধুম। ময়মনসিংহের ১৩টি উপজেলার বিভিন্ন হাট-বাজার ও পাড়া-মহল্লাতে লেপ-তোষক তৈরির কারিগররা এখন হাঁক-ডাক করে ঘুরে বেড়াচ্ছেন।
মধ্যবিত্ত- নিম্নবিত্ত মানুষের কম্বল খোঁজাখুঁজি শুরু না হলেও শীত মোকাবেলায় বিভিন্ন শ্রেণীর মানুষের লেপ-তোষকের দোকানগুলোতে ভীড় করতে শুরু করেছেন।

Mymensingh PIC 02
লেপ কিনতে আশা মুফাকখারুল ইসলাম তিনি জানান, প্রকারভেদে গত বছরের চেয়ে এবছর ২০০ থেকে ৩০০ টাকা খরচ বেশি হচ্ছে একটি লেপ বানাতে। গতবছর ১২০০ টাকা দিয়ে একটি লেপ তৈরি করেছি কিন্তু এবার সেই লেপ বানাতে খরচ হয়েছে ১৭০০টাকা।
এ বছর লেপের দাম কেমন হবে জানতে চাইলে মেসার্স আরজু বেডিং স্টোর এর ম্যানেজার রেজাউল করিম বলেন, সিঙ্গেল রেডিমেড লেপ কিনতে খরচ পড়বে ১০০০ থেকে ১২০০ টাকা আর সেমি-ডবল লেপ ১৫০০ থেকে ১৮০০ শ’ টাকা, ডবল লেপ পাওয়া যাবে ২ হাজার টাকার মধ্যে। তা ছাড়া বর্তমানে বেচা ভালই হচ্ছে। তবে সামনে আরো ভালো হবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন।
কারিগর মোঃ সুলাইমান ও আসলাম জানান, একটা লেপ বানাতে মালিক মুজুরি দেয় ১০০শ টাকা আর একটা তোষক বানোলে দেয় ৩০০শ টাকা। দিনে প্রায় ৪০০-৬০০ টাকা উপার্জন করতে পারি। তিনি বলেন পরিশ্রম অনুজায়ি পুশেনা।

আরোও পড়ুন...

HostGator Web Hosting