| |

Ad

সর্বশেষঃ

মাঠে নামুন, নির্বাচন ২০১৯ সালেই হবে : স্বাস্থ্যমন্ত্রী

আপডেটঃ ৮:৫২ অপরাহ্ণ | জানুয়ারি ১৩, ২০১৭

নিজস্ব প্রতিবেদক, বরিশাল  : বিএনপিকে উদ্দেশ করে স্বাস্থ্যমন্ত্রী মো. নাসিম বলেছেন, জ্বালাও পোড়াও করে কোনো লাভ হবে না। মাঠে নামুন, নির্বাচন ২০১৯ সালেই হবে।

শুক্রবার (১৩ জানুয়ারি) দুপুরে বরিশালের বাবুগঞ্জ উপজেলায় সুধী সমাবেশে তিনি এ কথা বলেন।

মন্ত্রী বলেন, জ্বালাও পোড়াও করে কোনো লাভ হবে না। জঙ্গি দমনের বিরোধিতা করেও কোনো কাজ হবে না। আসুন, মাঠে নামুন। আওয়ামী লীগের নেতৃত্বে ১৪ দল মাঠে রয়েছে। ২০১৯ সালে নির্বাচন হবে। এই নির্বাচনেও শেখ হাসিনার নেতৃত্বে সরকার গঠিত হবে।

নাসিম আরও বলেন, শেখ হাসিনা স্বাস্থ্যসেবা জনতার দোরগোড়ায় পৌঁছে দেওয়ার জন্য ১৯৯৬ সালে কমিউনিটি ক্লিনিক চালু করেছিলেন। ২০০১ সালে বিএনপি জামায়াত জোট ক্ষমতায় এসে তা বন্ধ করে দেয়। এখন ফের কমিউনিটি ক্লিনিক চালু হয়েছে। স্বাস্থ্য সেবার উন্নতির জন্য আমরা দশ হাজার নার্স নিয়োগ দিয়েছি। দু’বছর আগে নিয়োগ দেওয়া হয়েছিল ৬ হাজার চিকিৎসক। এরই ধারাবাহিকতায় ৮ কোটি ৬১ লাখ টাকা ব্যয়ে বরিশাল বাবুগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ৩১ থেকে ৫০ শয্যায় উন্নীত এবং উত্তর বাহেরচরে ৪ কোটি ৪৫ লাখ টাকা ব্যয়ে দশ শয্যার হাসপাতাল নির্মাণের উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। এসব একমাত্র শেখ হাসিনার নেতৃত্বের জন্যই সম্ভব হয়েছে। পদ্মা সেতুর কাজ সম্পন্ন হলে এই দক্ষিণাঞ্চল সিঙ্গাপুরের ন্যায় উন্নত হবে বলে উল্লেখ করেন স্বাস্থ্য ও পরিবারকল্যাণমন্ত্রী মো. নাসিম এমপি।

সুধী সমাবেশে মন্ত্রী আরও বলেন, উন্নয়নের একমাত্র প্রতীক হলো নৌকা। বিমান ও পর্যটনমন্ত্রী রাশেদ খান মেননকে দেখিয়ে বলেন, তার প্রতীক এখন নৌকা। এই প্রতীকে তিনি বিজয়ী হয়েছেন। এ সময় জনতার উদ্দ্যেশে বলেন, আপনারও প্রস্তুত থাকুন ২০১৯ সালে উন্নয়নের প্রতীক নৌকা মার্কায় ভোট দিয়ে শেখ হাসিনার নেতৃত্বে অগ্রগতির ধারা অব্যাহত রাখবেন।

এই সমাবেশে বিমান ও পর্যটনমন্ত্রী রাশেদ খান মেনন বলেন, উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখতে সামনের নির্বাচনে শেখ হাসিনার নেতৃত্বে সরকার গঠনের জন্য ভোট দিতে হবে। উন্নয়নের অগ্রযাত্রা অব্যাহত রাখতে উপস্থিত জনতার প্রতি এই আহ্বান করেন তিনি।

সংসদ সদস্য অ্যাডভোকেট শেখ মো. টিপু সুলতান এমপির সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সমাবেশে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক অধ্যাপক আবুল কালাম আজাদ, স্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তরের প্রধান প্রকৌশলী ব্রিগেডিয়ার জেনারেল এমএ মাহি, বরিশাল রেঞ্জের ডিআইজি শেখ মুহম্মদ মারুফ হাসান ও বরিশালের সিভিল সার্জন এএসএম শফিউদ্দিন বক্তব্য রাখেন।

আরোও পড়ুন...