| |

সর্বশেষঃ

গৌরীপুরে শিক্ষককে সাময়িক বহিষ্কারের প্রতিবাদে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ : শিক্ষার্থীদের ক্লাস বর্জন

আপডেটঃ ১২:১১ পূর্বাহ্ণ | মার্চ ০৫, ২০১৭

গৌরীপুর প্রতিনিধি, ময়মনসিংহ প্রতিদিন ডটকম : ময়মনসিংহের গৌরীপুরে শনিবার (৪ মার্চ/১৭) মাওহা উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক শাহিদা আক্তারকে সাময়িক বহিষ্কারের প্রতিবাদে ছাত্রছাত্রীরা ক্লাস বর্জন করে মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশ করে। মানববন্ধন শেষে শিক্ষার্থীরা বিদ্যালয় প্রাঙ্গন থেকে একটি বিক্ষোভ মিছিল মাওহা বাজার প্রদক্ষিণ করে। মিছিলে প্রধান শিক্ষককের স্বৈরাচারী সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে সাবেক-বর্তমান ছাত্রছাত্রীর সঙ্গে অভিভাবক ও এলাকাবাসী অংশ নেন। পরিস্থিতি সামাল দিতে বিদ্যালয় এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়।
বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোঃ শফিকুল ইসলাম জানান, সাময়িক বহিষ্কৃত শিক্ষক (শাহিদা আক্তার) কে ১০টি কারণ উল্লেখ করে পত্র দেয়া হয়েছিলো। সন্তোষজনক জবাব না দেয়ায় ম্যানেজিং কমিটির সিদ্ধান্তক্রমেই সাময়িক বহিষ্কার করা হয়েছে। ম্যানেজিং সভাপতি মোঃ মাসুদ করীম জানান, নিয়মানুযায়ী সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। বহিষ্কার প্রত্যাহার বা পরবর্তী পদক্ষেপ সভায় নেয়া হবে।
এ সাময়িক বহিষ্কার সম্পূর্ণ হয়রানিমূলক উল্লেখ করে শাহিদা আক্তার জানান, নিয়ম-কানুন পুরোপুরিভাবে মেনেচলার পরেও অযৌক্তিক পত্র দেন প্রধান শিক্ষক যার জবাবও দেয়া হয়েছে। বিক্ষুব্ধ অভিভাবকরা জানান, সমাজবিজ্ঞানের সহকারী শিক্ষক শাহিদা আক্তার দীর্ঘদিনযাবত শিক্ষকতা করছেন। অথচ প্রধান শিক্ষক এ পদে শূন্য দেখিয়ে এনটিআরসিতে তথ্য দেয়ায় এনটিআরসি নতুন শিক্ষক প্রেরণ করেন। এ নিয়ে জটিলতার বলি হচ্ছেন শাহিদা আক্তার।
বিক্ষুব্ধ শিক্ষার্থী ইয়াসিন মিয়া, মঞ্জু মিয়া, তুহিন মিয়া জানান, বৃহস্পতিবার (২মার্চ/১৭) ছুটির পর তারা জানতে পারেন তাদের সমাজবিজ্ঞানে সহকারী শিক্ষক শাহিদা আক্তারকে প্রধান শিক্ষক মোঃ শফিকুল ইসলামের ষড়যন্ত্রের মাধ্যমে বিদ্যালয় ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি মোঃ মাসুদ করীম অবৈধভাবে ওই শিক্ষককে সাময়িক বহিষ্কারের পত্র দেন। ঘটনাটি বিদ্যালয়ে ছড়িয়ে পড়লে ছাত্রছাত্রী ও অভিভাবক এবং এলাকাবাসী প্রিয় শিক্ষক সাময়িক বহিষ্কার প্রত্যাহার ও প্রধান শিক্ষকের একের পর এক স্বৈরাচারী সিদ্ধান্তের প্রতিবাদে ক্লাস বর্জন করে এ কর্মসূচী পালন করছে। দেলোয়ার হোসেন, মনোয়ার হোসেন, রাকিব আহম্মেদ জানান, প্রিয় শিক্ষককে বহালের দাবিতে টিফিনের টাকা বাঁচিয়ে ওরা ব্যানার তৈরি করে। এলাকার অভিভাবকদের দাবি, এ বিদ্যালয়ে কিছুদিন পরপর একেক শিক্ষককে সাময়িক বহিষ্কারের মাধ্যমে ম্যানেজিং কমিটি ও প্রধান শিক্ষক অবৈধ অর্থ আদায়ের পন্থা বেঁচে নিয়েছে। এ রির্পোট পাঠানো পর্যন্ত বিকাল (৪টায়) এলাকায় উত্তেজনা বিরাজ করছিলো।

HostGator Web Hosting