| |

Ad

সর্বশেষঃ

শেরপুরে মেয়েকে ধর্ষণের দায়ে বাবার যাবজ্জীবন

আপডেটঃ ৩:০১ অপরাহ্ণ | জুলাই ২০, ২০১৭

শেরপুর প্রতিনিধি : শেরপুরে নিজের ১৫ বছরের কিশোরী মেয়েকে ধর্ষণ করে ৫ মাসের অন্তঃসত্ত্বা করার অপরাধ সন্দেহাতীতভাবে প্রমাণিত হওয়ায় বাবা হানিফ উদ্দিনকে (৪৩) যাবজ্জীবন সশ্রম কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত।

একই সঙ্গে ২০ হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে আরও ৬ মাসের সশ্রম কারাদণ্ডের আদেশ প্রদান করা হয়েছে।

শেরপুর জেলা নারী ও শিশু আদালতের বিচারক এবং অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ মোহাম্মদ মোছলেহ উদ্দিন বৃহস্পতিবার দুপুরে আসামির উপস্থিতিতে এই রায় প্রদান করেন।

দণ্ডপ্রাপ্ত হানিফ উদ্দিন শেরপুর সদর উপজেলার চরশেরপুর ধোপাঘাট হদিপাড়া গ্রামের আব্দুল খালেকের ছেলে।

জেলা শিশু আদালতের স্পেশাল পিপি অ্যাডভোকেট গোলাম কিবরিয়া বুলু মামলার নথির সংক্ষিপ্ত বিবরণ দিয়ে জানান, শেরপুর সদর উপজেলার চরশেরপুর ধোপাঘাট হদিপাড়া গ্রামে শ্বশুর বাড়িতে স্ত্রী ও সন্তানদের নিয়ে বসবাস করতো হানিফ উদ্দিন। নিজের ১৫ বছর বয়সের মেয়েকে মৃত্যুর ভয় দেখিয়ে জোরপূর্বক এক বছর ধরে ধর্ষণ করে। মেয়েটি লোকলজ্জার ভয়ে বিষয়টি প্রকাশ করেনি। সর্বশেষ ২০১৬ সালের ১৪ সেপ্টেম্বর রাতে ধর্ষণ করার পর মেয়ে ৫ মাসের অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পড়লে বিষয়টি ফাঁস হয়ে যায়।

পরে ধর্ষিতার মা বাদী হয়ে ২০১৬ সালে ২০ অক্টোবর শেরপুর সদর থানায় মামলা দায়ের করেন।

ভিকটিম তার বাবার পাশবিক নির্যাতনের বিষয়ে আদালতে জবানবন্দি প্রদান করে।

ধর্ষক বাবা গ্রেফতার হওয়ার পর ২০১৬ সালের ২৫ অক্টোবর ধর্ষণের দায় স্বীকার করে আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেয়।

শেরপুর সদর থানার এসআই  জীবন চন্দ্র বর্মণ মামলাটি তদন্ত শেষে ২০১৭ সালের ১৫ জানুয়ারি হানিফ উদ্দিনকে অভিযুক্ত করে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনের ৯(১) ধারায় আদালতে চার্জশিট প্রদান করেন।

বিচারক ৮ জন সাক্ষীর সাক্ষ্য গ্রহণ শেষে বৃহস্পতিবার দুপুরে এই দণ্ডাদেশের রায় প্রদান করেন।

আরোও পড়ুন...