| |

Ad

সর্বশেষঃ

আপডেটঃ ৫:৩৮ অপরাহ্ণ | আগস্ট ০৯, ২০১৭

মোঃ রাসেল হোসেন, ময়মনসিংহ প্রতিদিন ডটকম : ময়মনসিংহকে মাদক, সন্ত্রাস দুর্নীতিমুক্ত করে শিল্প সংস্কৃতি নগরী গড়ে তোলা হবে। এ জন্য যুব সমাজের মধ্যে থাকা মেধাকে চর্চাকে করে তাদের মধ্যে থাকা উদভাবনী (সৃষ্টিশীল) শক্তি প্রয়োগ করতে হবে। ময়মনসিংহ জেলা পরিষদের উদ্যোগে এসএসসি, এইচএসসি ও সমমানের মেধাবী ও দরিদ্র কৃতি শিার্থীদের বৃত্তি প্রদান অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে জেলা প্রশাসক মোঃ খলিলুর রহমান বুধবার কৃতি শিার্থীদের উদ্দেশ্যে এ সব কথা বলেন।
জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ইউসুফ খান পাঠানের সভাপতিত্বে এবং সচিব বনানী বিশ্বাসের পরিচালনায় প্রধান অতিথি কৃতি শিার্থীদের উদ্দেশ্যে আরো বলেন, শুধু শিা গ্রহণ করলেই চলবে না। নিজেদের ভিতরে দেশাত্ববোধ থাকতে হবে। দেশকে ভালবাসতে হবে। ভাষা আন্দোলন থেকে শুরু করে মুক্তিযুদ্ধের প্রকৃত ইতিহাস জানতে হবে। একই সাথে জাতির জনক সম্পর্কে আরো ভাল করে জানার চেষ্ঠা করতে হবে। তিনি আরো বলেন, বাংলাদেশ ২১ সালের মধ্যে মধ্যম আয়ের দেশ হতে চলছে। মধ্যম আয়ের দেশ হতে হলে শিা ও টেকসই, স্থায়িত্বশীল উন্নয়ন অবশ্যই প্রয়োজন। মধ্যম আয়ের দেশ গড়তে দেশ থেকে বাল্য বিয়ে রোধ, মাদক, দুর্নীতি ও সন্ত্রাসমুক্ত সমাজ গড়ে তুলতে হবে। তিনি আরো বলেন, দুর্নীতিকে ছোট করে দেখার সুযোগ নেই। দুর্নীতির আগ্রাসন থেকে বের হতে পারলেই দেশের উন্নয়নকে আরো দ্রুত গতিতে এগিয়ে নেওয়া সম্ভব। তিনি আরো বলেন, ৫ কোটিরও বেশী মানুষ আজ মধ্যম আয়ের সীমায় রয়েছে। দেশের প্রবৃদ্ধি বেড়েছে।
বিশেষ অতিথি হিসাবে মহানগর আওয়ামীলীগের সভাপতি আলহাজ এহতেশামূল আলম বলেন, দেশে এগিয়ে যাচ্ছে। নিজেদের অর্থায়নে পদ্মা সেতু হচ্ছে। বছরের প্রথম দিনে শিার্থীদের হাতে নতুন বই বিতরণ, বিদ্যুৎ সরবরাহের উন্নয়ন হয়েছে। এছাড়া অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন, জেলা পরিষদের প্যানেল মেয়র মমতাজ উদ্দিন, ফারজানা শারমীন বিউটি, সদস্য এস এম মজিবুর রহমান, আঞ্জুমানারা, সাংবাদিক এম এ আজিজ, অভিভাবক মোস্তফা কামাল, শিার্থী শাহ ইফতেখার আলম চৌধুরী, সোহাগী আক্তার প্রমুখ।

অনুষ্ঠানের সভাপতি জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ইউসুফ খান পাঠান সমাপনী বক্তব্যে বলেন, নতুন প্রজন্ম ও কৃতি শিার্থীদেরকেই দেশ প্রেমে উজ্জীবিত হয়ে সুন্দর আগামী ঘুষ, দুর্নীতিমুক্ত দেশ গড়ার দায়িত্ব নিতে হবে। এসময় তিনি আগামী বছর থেকে বৃত্তির পরিমাণ বৃদ্ধি করার আশ্বাস প্রদান করেন। অনুষ্ঠানটিকে সুন্দর ও স্বার্থক করতে জেলা পরিষদের সহকারী প্রকৌশলী ওয়াহিদুজ্জামান, হিসাব রণ কর্মকর্তা মাহমুদুর রহমান তসলিমসহ সকল পর্যায়ের কর্মকর্তা কর্মচারীগন দায়িত্ব পালন করেন।

আরোও পড়ুন...