| |

Ad

সর্বশেষঃ

  • বিপিএল ২০১৭

সঙ্গীতশিল্পী আব্দুল জব্বার আর নেই

আপডেটঃ ১২:৪৮ অপরাহ্ণ | আগস্ট ৩০, ২০১৭

নিজস্ব প্রতিবেদক : স্বাধীন বাংলা বেতার কেন্দ্রের কণ্ঠশিল্পী, ষাট ও সত্তর দশকের জনপ্রিয় সঙ্গীতশিল্পী, একুশে ও স্বাধীনতা পদকপ্রাপ্ত গায়ক আব্দুল জব্বার আর নেই।

বুধবার সকাল সাড়ে আটটার দিকে রাজধানীর বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে (বিএসএমএমইউ) তিনি শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন। (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৭৯ বছর।

কিডনি, হার্ট, প্রস্টেটসহ বার্ধক্যজনিত নানা রোগে আক্রান্ত দেশবরেণ্য এই সঙ্গীতশিল্পীর শারীরিক অবস্থার অবনতি হলে গত শনিবার তাকে বিএসএমএমইউ’র আইসিইউতে নেয়া হয়। সেখানেই চিকিৎসাধীন অবস্থায় আজ না ফেরার দেশে পাড়ি জমান তিনি। মৃত্যুকালে আব্দুল জব্বার স্ত্রী, দুই ছেলে, এক মেয়ে ও অসংখ্য গুণগ্রাহী রেখে গেছেন।

১৯৩৮ সালের ৭ নভেম্বর কুষ্টিয়া জেলায় জন্মগ্রহণ করেন আবদুল জব্বার। ১৯৫৮ সাল থেকে তৎকালীন পাকিস্তান বেতারে গান গাওয়া শুরু করেন। ১৯৬২ সালে চলচ্চিত্রের জন্য প্রথম গান করেন। ১৯৬৪ সাল থেকে তিনি বিটিভির নিয়মিত গায়ক হিসেবে পরিচিতি পান।

১৯৬৪ সালে জহির রায়হান পরিচালিত তৎকালীন পূর্ব পাকিস্তানের প্রথম রঙিন চলচ্চিত্র ‘সংগম’-এর গানে কণ্ঠ দেন।

কিংবদন্তি এই কণ্ঠশিল্পী ১৯৭১ সালের বাংলাদেশের স্বাধীনতা যুদ্ধ চলাকালীন মুক্তিযোদ্ধাদের মনোবল ও প্রেরণা জোগাতে স্বাধীন বাংলা বেতার কেন্দ্র থেকে প্রচারিত সালাম সালাম হাজার সালাম, জয় বাংলা বাংলার জয়সহ অনেক উদ্বুদ্ধকরণ গানের গায়ক। তাঁর গাওয়া ‘তুমি কী দেখেছ কভু জীবনের পরাজয়, সালাম সালাম হাজার সালাম ও জয় বাংলা বাংলার জয়’ গান তিনটি ২০০৬ সালে মার্চ মাস জুড়ে অনুষ্ঠিত বিবিসি বাংলার শ্রোতাদের বিচারে সর্বকালের শ্রেষ্ঠ ২০টি বাংলা গানের তালিকায় স্থান করে নিয়েছে।

এছাড়া মুক্তিযুদ্ধকালীন ভারতের প্রখ্যাত কণ্ঠশিল্পী হেমন্ত মুখোপাধ্যায়কে নিয়ে মুম্বাইয়ের বিভিন্ন স্থানে বাংলাদেশের স্বাধীনতাযুদ্ধের পক্ষে জনমত তৈরিতে কাজ করেন। তখন গণসংগীত গেয়ে পাওয়া ১২ লাখ রুপি স্বাধীন বাংলাদেশ সরকারের ত্রাণ তহবিলে দান করেছিলেন তিনি।

প্রখ্যাত এই শিল্পী বাংলাদেশ সরকার প্রদত্ত দুটি সর্বোচ্চ বেসামরিক পুরস্কার একুশে পদক ও স্বাধীনতা পুরস্কার ছাড়াও বঙ্গবন্ধু স্বর্ণপদক, বাচসাস পুরস্কার পান।

আরোও পড়ুন...