| |

Ad

সর্বশেষঃ

১০ হাজার টাকা মুচলেকায় জামিন পেলেন ইমরান

আপডেটঃ ১:৩০ অপরাহ্ণ | সেপ্টেম্বর ২১, ২০১৭

নিজস্ব প্রতিবেদক : প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে কটূক্তি করে স্লোগান দেয়ার অভিযোগে করা মামলায় আদালতে আত্মসমর্পণ করে জামিন পেয়েছ্নে গণজাগরণ মঞ্চের একাংশের মুখপাত্র ইমরান এইচ সরকার ও তার সহযোগী সনাতন উল্লাহ। ১০ হাজার টাকা মুচলেকায় তারা জামিন পান।

বৃহস্পতিবার সকালে ঢাকার অতিরিক্ত চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট ছাবিদুল ইসলামের আদালতে আত্মসমর্পণ করে জামিন আবেদন করলে বিচারক ২৬ অক্টোবর পর্যন্ত তাদের জামিন মঞ্জুর করেন।

আদালতে আসামিদের পক্ষে জামিন আবেদনের শুনানি করেন অ্যাডভোকেট প্রকাশ বিশ্বাসসহ কয়েকজন আইনজীবী। মামলার বাদী গোলাম রব্বানী আদালতে উপস্থিত ছিলেন।

এর আগে বুধবার একই আদালত ইমরান-সনাতনের বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করে ২৬ অক্টোবর অভিযোগ গঠনে শুনানির দিন ধার্য করেন। মামলার ধার্য তারিখে আসামিরা উপস্থিত না হওয়ায় আদালত এই পরোয়ানা জারি করে।

ইমরান এইচ সরকারের বিরুদ্ধে করা মামলায় বলা হয়, সুপ্রিম কোর্ট থেকে ভাস্কর্য সরিয়ে নেয়ার প্রতিবাদে গত ২৮ মে রাজধানীর শাহবাগে গণজাগরণ মঞ্চের এক সমাবেশে ‘ছি. ছি. হাসিনা, লজ্জায় বাঁচি না’ শিরোনামে প্রধানমন্ত্রীকে নিয়ে মানহানিকর স্লোগান দেয়া হয়। সমাবেশে ইমরান এইচ সরকার এবং সনাতন উল্লাস নেতৃত্ব দেন।

শেখ হাসিনাকে নিয়ে দেয়া স্লোগানের ভিডিও ফেসবুকে ভাইরাল হওয়ার পর ছাত্রলীগের নেতাকর্মীদের মধ্যে ক্ষোভ দেখা দেয়। পরে ২৯ মে রাতে ছাত্রলীগের মিছিল থেকে শাহবাগে ইমরান সরকারকে অবাঞ্ছিত ঘোষণা করা হয়।

প্রধানমন্ত্রীকে নিয়ে কটূক্তি করা হয়েছে এমন অভিযোগ করে ৩১ মে ঢাকা মহানগর হাকিম এস এম মাসুদ জামানের আদালতে ইমরান এইচ সরকার ও তার সহযোগীর বিরুদ্ধে একটি মামলাটি করেন ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় শিক্ষা ও পাঠ চক্রবিষয়ক সম্পাদক গোলাম রব্বানী।

এরপর ১৬ জুলাই ঢাকা মহানগর হাকিম এস এম মাসুদ জামানের আদালতে আত্মসমর্পণ করে জামিন নেন ইমরান ও তার সহযোগী। এই মামলায় আদালতে হাজিরা দিতে গিয়ে এবং পরে শাহবাগে হামলার শিকার হন ইমরান।

গত ৩০ জুলাই ঢাকার অতিরিক্ত চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট ছাবিদুল ইসলাম মামলার অভিযোগ গঠনে শুনানির জন্য ২০ সেপ্টেম্বর দিন ধার্য করেন। তবে নির্ধারিত দিনে অভিযুক্তরা আদালতে হাজির হননি।

আরোও পড়ুন...