| |

Ad

সর্বশেষঃ

ধরা পড়ছে ঝাঁকে ঝাঁকে ইলিশ : আনন্দে ভাসছে জেলেরা

আপডেটঃ ১:২০ অপরাহ্ণ | সেপ্টেম্বর ২৩, ২০১৭

বিশেষ সংবাদদাতা : গত দুই সপ্তাহ ধরে বঙ্গপসাগরের গভীর সমুদ্রগামী জেলেদের জালে ধরা পড়ছে ঝাঁকে ঝাঁকে ইলিশ। বরগুনার পাথরঘাটা উপজেলা দেশের দ্বিতীয় মৎস্য অবতরণ কেন্দ্র (বিএফডিসি) এখন ইলিশে সয়লাব।

প্রশাসন বলছে মা ইলিশ রক্ষা এবং অবৈধ জাল বন্ধে কঠোর অভিযান পরিচালনা করায় এখন গভীর সমুদ্রে এত ইলিশ পাচ্ছে জেলেরা। এই ইলিশের জন্য জেলে পল্লীতে আনন্দের জোয়ারে ভাসছে।

সকাল সন্ধ্যা কিংবা রাতে সমুদ্রে ইলিশ শিকার করে ট্রলার বোঝাই করে ফিরছে সমুদ্রের জেলেরা। মাছ বিক্রি করে আবার সমুদ্রে ইলিশ শিকারে আবার ছুটছে জেলেরা।

গত দুই সপ্তাহ ধরে এক একটি ট্রলারে ৫ হাজার থেকে ১৫ হাজার পর্যন্ত ইলিশ পেয়েছে। প্রতিমন ইলিশ ১৪ হাজার থেকে ১৮ হাজার পর্যন্ত বিক্রি করা হচ্ছে। গত দুই সপ্তাহ (৮ থেকে ১৯ সেপ্টম্বর) মৎস্য আবতরন কেন্দ্রে ৮৬৬ মেট্রিকটন ইলিশ বিক্রি করা হয়। এ থেকে সরকারী রাজস্ব আদায় হয় ২০ লাখ ৯৬হাজার ৫শ ৩০টাকা।

গত কয়েক সপ্তাহে মাছের দাম বৃদ্ধি পাওয়ায় সাধারন মানুষে নাগালের বাইরে এ সব মাছ। বাংলাদেশের দ্বিতীয় বৃহত্তম মৎস্য অবতরণ কেন্দ্র পাথরঘাটা বিএফডিসি ঘাটে সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায় ইলিশে সয়লাব থাকায় জেলে ট্রলার মালিক পাইকার ও আড়ৎদারদের পদচারনায় এখন মুখরিত মৎস্য ঘাট। তাদের ব্যস্ততায় এখন এমন অবস্থা যেন ধম ফেলার সুযোগ নেই।

২৪ ঘন্টাই চলছে ইলিশ কেনা বেচা। দেশের বিভিন্ন স্থানে যাচ্ছে ট্রাক বোঝাই ইলিশ। বিগত দিনে প্রশাসন হস্তক্ষেপে জলদস্যু বাহিনীদের দমন করায় এখন বেশি জেলে দস্যু কতৃক হামলার শিকার হয়নি। পর্যাপ্ত ইলিশ পাওয়াতে জেলেরা ট্রলার মালিক ও শ্রমিকরা বিগত দিনের ধার দেনায় যে ভাবে জর্জরিত হয়েছিল তা থেকে হয়তো এখন তাদের মুক্তি মেলবে।

এফবি নুরজাহান ট্রলারের জাকির মাঝি, নাসির, রিপন, ইউসুব আলী ও জলিল বলেন, এখন আবহাওয়া কিছুটা ভাল হওয়াতে এবং পূবাল বাতাস না থাকায় গভীর সমুদ্রে এখন অনেক মাছ পওয়া যাচ্ছে। বিশখালী ও বলেশ্বর নদীতেও পাওয়া যাচ্ছে মাছ। এ সকল প্রান্তিক জেলেদের জালেও ধরা পড়ছে প্রচুর ইলিশ এবং প্রশাসনের নজরদারীতার কারণে এত ইলিশ পাচ্ছে বলে দাবি করেন এই জেলেরা।

বরগুনা জেলা মৎস্যজীবি ট্রলার মালিক সমিতি সভাপতি গোলাম মোস্তফা চৌধুরী বলেন, বিগত দিনে মা ইলিশ রক্ষায়, অবরোধের সময় এবং অবৈধ জাল বন্ধে কঠোর অভিযান পরিচালনা করার কারণে এতটা ইলিশ জেলেদের জালে ধরা পরছে বলে বলে মনে করেন তিনি। তিনি আরও বলেন, সমুদ্র থেকে মাছ ভারত পাচার হওয়ায় এই সকল এলাকায় মাছের দাম চরা থাকে বলে মনে হচ্ছে আমার।

এদিকে ইলিশের প্রধান প্রজনন মৌসুম আগামী ১ অক্টবর থেকে ২২ অক্টবর পর্যন্ত ২২ দিন সারাদেশে ইলিশ মাছ আহরন, পরিবহন, মজুদ, বাজারজাতকরন, অথবা বিক্রয় নিষিদ্ধের জন্য পাথরঘাটা উপজেলা সিনিয়র মৎস্য কর্মকর্তা মুরাদ হোসেন প্রামানিক নজরদারিতে রাখবেন বলে যানান।

আরোও পড়ুন...