| |

Ad

সর্বশেষঃ

সামাজিক নিরাপত্তার আওতা আগামীতেও বাড়বে : অর্থমন্ত্রী

আপডেটঃ ৬:৪৪ অপরাহ্ণ | মার্চ ১৭, ২০১৮

নিজস্ব প্রতিবেদক, টাঙ্গাইল : অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আব্দুল মুহিত বলেছেন, আগামী অর্থবছরের সম্ভব্য বাজেটের আকার ৪ লাখ ৬০ থেকে ৪ লাখ ৭৫ হাজার কোটি টাকা হবে। সামাজিক নিরাপত্তার আওতা প্রতি বছরই বাড়ছে আগামীতেও বাড়নো হবে বলে তিনি উল্লেখ করেন।

তিনি বলেন, জনসংখ্যা, আয়তন, সম্পদ, মানবসম্পদ বিবেচনা করে প্রতিটি জেলাকে ক্লাসিফিকেশন করা হয়েছে। এই ক্লাসিফিকেশন অনুযায়ী আগামী তিন বছরের মধ্যে সারাদেশে জেলাওয়ারি বাজেট করা হবে।

শনিবার দুপুরে টাঙ্গাইলের মির্জাপুরে দানবীর রণদা প্রসাদ সাহা প্রতিষ্ঠিত নারী শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ভারতেশ্বরী হোমসে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৯৯তম জন্মদিবস ও জাতীয় শিশু দিবস এবং ভারতেশ্বরী ছাত্রীদের বার্ষিক পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে এসে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী এসব কথা বলেন।

এ সময় বাংলাদেশকে জাতিসংঘের উন্নয়শীল দেশের তালিকায় স্বীকৃতির বিষয়ে মন্ত্রী বলেন, চলতি মাসের ১৫ তারিখ এ বিষয়ে আমরা একটি চিঠি পেয়েছি। ২০২৪ সাল পর্যন্ত তারা আমাদের এ কার্যক্রম পর্যবেক্ষণ করবেন। আর আমরা এর মধ্যেই মধ্যম আয়ের দেশে পরিণত হব এবং ২০৪১ সালের মধ্যে আমরা উন্নত দেশের তালিকায় আমরা স্থান করে নিব। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা উন্নয়নের যে লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করেছেন সরকার সেই সঠিক পথেই আছে।

আসন্ন সংসদ নির্বাচন প্রসঙ্গে অর্থমন্ত্রী বলেন, একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের তিন মাস আগে বর্তমান মন্ত্রী পরিষদ ভেঙে দেবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। চলতি সংসদে যেসব দলের প্রতিনিধিত্ব রয়েছে শুধু সেসব দল থেকে প্রতিনিধি নিয়ে নির্বাচনকালীন নতুন মন্ত্রী পরিষদ গঠন করবেন তিনি। কিন্তু বর্তমান সংসদে বিএনপির কোনো প্রতিনিধিত্ব না থাকায় নির্বাচনকালীন সেই মন্ত্রী সভায় তাদের কোনো প্রতিনিধিত্ব থাকবে না বলেও তিনি জানান।

এ সময় মন্ত্রী আরও বলেন, ছবিসহ ভোটার আইডি কার্ড হওয়ার ফলে এখন আর জালিয়াতির নির্বাচন করা সম্ভব নয়। তবে দু-এক জায়গায় গুণ্ডাবাহিনী দিয়ে ভোটকেন্দ্র দখল করার সম্ভাবনা রয়েছে। সেজন্য পর্যাপ্ত আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী দিয়ে সারাদেশে কয়েক ধাপে জাতীয় সংসদ নির্বাচন আয়োজন করার পরিকল্পনাও করা হয়েছে বলে মন্ত্রী জানান।

এর আগে সকাল সাড়ে ১০টায় আবুল মাল আব্দুল মুহিত সেনাবাহিনীর একটি হেলিকপ্টারে মির্জাপুর কুমুদিনী কমপ্লেক্স মাঠে এসে পৌঁছালে সেখানে তাকে স্বাগত জানান সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি একাব্বর হোসেন এমপি, কুমুদিনী ওয়েল ফেয়ার ট্রাস্টের ব্যবস্থাপনা পরিচালক রাজিব প্রসাদ সাহা, পরিচালক (শিক্ষা) প্রতিভা মুৎসুদ্দি, শ্রীমতি সাহা প্রমুখ।

মন্ত্রী কুমুদিনী ভারতেশ্বরী হোমসে গেলে তাকে ছাত্রীরা বরণ করেন এবং মনোজ্ঞ ডিসপ্লে প্রদর্শন করেন।

পরে বিকেলে তিনি কুমুদিনী হাসপাতালে আধুনিক আইসিও উদ্বোধন করেন। বিকেল সাড়ে ৪টার দিকে তিনি ঢাকার উদ্দেশে মির্জাপুর ত্যাগ করেন।

আরোও পড়ুন...