| |

Ad

সর্বশেষঃ

নৌকায় ভোট দেন, সোনার বাংলা উপহার দেবো : প্রধানমন্ত্রী

আপডেটঃ ৬:৩৫ অপরাহ্ণ | মার্চ ২৯, ২০১৮

নিজস্ব প্রতিবেদক : নৌকায় মার্কা’য় ভোট চেয়ে প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের সভাপতি শেখ হাসিনা বলেছেন, নৌকায় ভোট দেন, সোনার বাংলা উপহার দেবো। ঠাকুরগাঁওবাসীর উদ্দেশে তিনি বলেন, ‘আমার কাছে দাবি করার প্রয়োজন নাই। এই বাংলাদেশকে আমি চিনি। আমি সমগ্র বাংলাদেশ সফর করেছি। আমি জানি কোথায় মানুষের কী লাগবে।’

বৃহস্পতিবার দুপুরে ঠাকুরগাঁও জেলা সরকারি বালক উচ্চ বিদ্যালয়ের বড় মাঠে আওয়ামী লীগ আয়োজিত জনসভায় তিনি এসব কথা বলেন।

বিশাল এই জনসভায় ঠাকুরগাঁওবাসীর জন্যে তিনি আরও উন্নয়ন করে দেওয়ার ওয়াদা করেন। প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘আজকে যে উন্নয়ন কর্মকাণ্ড উদ্বোধন করলাম ও ভিত্তি প্রস্তর স্থাপন করলাম, সেগুলোর কাজ চলবে। উন্নয়ন নিয়ে ব্যাপকভাবে কাজ করে যাচ্ছি। আমরা চাই, আমাদের দেশ এগিয়ে যাক, দেশ উন্নত হোক। বিশ্বসভায় বাংলাদেশ মর্যাদার আসনে চলুক, সেটাই আমরা চাই। ঠাকুরগাঁও অঞ্চলের ছেলে-মেয়েদের লেখাপড়ার জন্যে যা যা উন্নয়ন দরকার, তা আমরা করেছি। তারপরেও যেসব উপজেলায় সরকারি স্কুল-কলেজ নাই, সেখানে আমরা শিক্ষা প্রতিষ্ঠান করে দেবো। ঠাকুরগাঁও জেলায় যেনও একটা বিশ্ববিদ্যালয় হয়, সে ব্যবস্থা আমরা করবো।’

তিনি বলেন, ‘আমি জানি, এই জেলা খাদ্য উদ্বৃত্তের। এখানে খাদ্য প্রক্রিয়াজাতকরণের অঞ্চল যেন গড়ে উঠে, তার ব্যবস্থা আমরা করবো। বিশেষ অর্থনৈতিক অঞ্চল করবো। ঠাকুরগাঁও, পীরগঞ্জ, রানী শংকৈল, হরিপুর পাকা রাস্তা যাতে প্রশস্ত হয়, তার ব্যবস্থা করে দেবো। ঠাকুরগাঁওয়ে যাতে আইটি পার্ক হয়, তার ব্যবস্থা করে দেবো। কর্মচারি মহিলাদের জন্যে হোস্টেল করে দেবো, যাতে তারা থাকতে পারে। ঠাকুরগাঁও পৌরসভার যত ড্রেন, রাস্তা সেগুলো উন্নত করার ব্যবস্থা করবো। ঠাকুরগাঁওয়ের মানুষ যাতে বিশুদ্ধ পানি পায়, তার জন্যে ওভার হেড ওয়াটার ট্যাঙ্ক করে দেবো। প্রত্যেক উপজেলায় একটি মসজিদ ও একটি ইসলামিক সেন্টার করে দেবো। ইসলাম ধর্মের নামে কেউ সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড করুক, তা আমরা চাই না। খালেদা জিয়া রেল বন্ধ করেছিল, আমরা নতুনভাবে আবারও চালু করেছি। আলাদা মন্ত্রণালয় করে দিয়েছি। রেল যোগাযোগ যাতে উন্নত হয়, ঠাকুরগাঁওয়ে যাতে আন্তঃনগর ট্রেন চালু হয়, সে ব্যবস্থা আমরা করে দেবো। সমস্ত বাংলাদেশ যাতে রেল নেটওয়ার্কে যুক্ত হয়, তার ব্যবস্থা করে দিয়েছি। অল্প খরচে যাতে মালপত্র নেওয়া যায়, যাতায়াত করা যায়, সেই ব্যবস্থা করে দিয়েছি।’

৬৬টি উন্নয়ন প্রকল্পের উদ্বোধন ও ভিত্তি প্রস্তরই নয়, বিশাল জনসভায় উপস্থিত ঠাকুরগাঁওবাসীর জন্যে ভবিষ্যতে আরও উপহার দেওয়ার অঙ্গীকার করেছেন আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। শেখ হাসিনার দেওয়া অঙ্গীকারে ভীষণ উজ্জীবিত এই জেলার মানুষ।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘আমরা দেশের উন্নয়ন চাই। বিএনপি আসা মানে দেশ ধ্বংস হওয়া আগুনে পুড়িয়ে মানুষ মারা। জঙ্গিবাদ, লুটপাট, দুর্নীতি করা। আওয়ামী লীগ আসা মানে উন্নয়ন, শান্তি, দেশের উন্নতি, কর্মসংস্থান সৃষ্টি করা। ছেলে মেয়েদের লেখা পড়া, মানুষের উন্নত জীবন। গ্রামের মানুষ থেকে শুরু করে প্রত্যেকটি মানুষ যাতে শান্তিতে থাকে, সেটাই আমাদের লক্ষ্য। সরকারের ধারাবাহিকতা আছে বলে দেশের উন্নয়ন হচ্ছে। আগামী ডিসেম্বরে যে নির্বাচন হবে, সেই নির্বাচনে নৌকায় ভোট চাই। উন্নয়নের ধারাবাহিকতা বজায় রাখার জন্যে আমি আপনাদের কাছে নৌকা মার্কায় ভোট চাই। নৌকা মার্কা দেবে আপনাদের উন্নতি ও শান্তি, জীবনমানের উন্নতি।’

ঠাকুরগাঁওবাসীর উদ্দেশে তিনি বলেন, ‘আমার কাছে দাবি করার প্রয়োজন নাই। এই বাংলাদেশকে আমি চিনি। আমি সমগ্র বাংলাদেশ সফর করেছি। আমি জানি কোথায় মানুষের কী লাগবে।’

নৌকা মার্কায় ভোট চেয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘নৌকায় ভোট দেন, সোনার বাংলা উপহার দেবো।’

জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি দবিরুল ইসলামের সভাপতিত্বে জনসভায় আরও বক্তব্য রাখেন— কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের, সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য রমেশ চন্দ্র সেন, পররাষ্ট্রমন্ত্রী এএইচএম মাহমুদ আলী, দলের যুগ্ম সাধারণ মাহবুব উল আলম হানিফ, জাহাঙ্গীর কবির নানক, সাংগঠনিক সম্পাদক খালিদ মাহমুদ চৌধুরী, স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাধারণ সম্পাদক পঙ্কজ দেবনাথ, যুব মহিলা লীগের সাধারণ সম্পাদক অপু উকিল, ছাত্রলীগের সভাপতি সাইফুর রহমান সোহাগ প্রমুখ।

 

 

আরোও পড়ুন...