| |

সর্বশেষঃ

শিশুদের নিয়ে পত্রিকাগুলোর কর্মকাণ্ড আগের মতো নেই : সংস্কৃতিমন্ত্রী

আপডেটঃ ৫:৫৮ অপরাহ্ণ | এপ্রিল ২৯, ২০১৮

নিজস্ব প্রতিবেদক : পত্রিকাগুলো শিশুদের জন্য আগের মতো জায়গা দিচ্ছে না বলে অভিযোগ করেছেন সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূর।

মেধা বিকাশের জন্য পত্রিকাগুলোতে এক সময় শিশুরা যে যার মতো লিখতো, চিত্রকর্ম প্রকাশ করতো এবং গল্প প্রকাশ করতো, পুরনো সেই চিত্র এখন আর নেই পত্রিকার পাতাগুলোতে।

রোববার দুপুরে নীলফামারী শিল্পকলা একাডেমি মিলনায়তনে নবকলি খেলাঘর শিশু আনন্দ মেলার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রী ও নীলফামারী-২ আসনের সংসদ সদস্য আসাদুজ্জামান নূর।

তিনি বলেন, এক সময় পত্রিকাগুলোই শিশু সংগঠন পরিচালনা করতো সারাদেশে, সে রকম সংগঠনও দেখা যাচ্ছে না এখন। খোদ দৈনিক প্রথমআলো ‘বন্ধুসভা’ করলেও শিশু সংগঠন করছে না বলে মন্তব্য করেন তিনি।

মন্ত্রী বলেন, এক সময়ে ইত্তেফাক, পূর্বাণী, সংবাদ শিশুদের সংগঠন করলেও এখন আর সেটি নেই তাদের মাঝে।

সংগঠন থাকলে সেখানে আলাপ-আলোচনা, বিভিন্ন প্রতিযোগিতা ছাড়াও মুক্তচর্চায় অংশগ্রহণ করতে পারে কিন্তু সেটি করতে পারছে না শিশুরা।

শিশুদের বেড়ে উঠা, মেধা বিকাশ, বুদ্ধিবৃত্তিক কার্যক্রমে সম্পৃক্তকরণের জন্য সবার প্রতি আহ্বান জানান তিনি।

নবকলি খেলাঘর আসর নীলফামারী সদর উপজেলা কমিটির সভাপতি জিয়াউল ইসলামের সভাপতিত্বে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য দেন খেলাঘর কেন্দ্রীয় কমিটির সাধারণ সম্পাদক আবুল ফারাহ পলাশ।

এতে জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ খালেদ রহীম, পুলিশ সুপার মোহাম্মদ আশরাফ হোসেন, জেলা আ’লীগের সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট মমতাজুল হক, সদর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আবুজার রহমান, পৌর আ’লীগের সভাপতি মসফিকুল ইসলাম রিন্টু, খেলাঘর কেন্দ্রীয় পরিষদের সদস্য আমিনুল হক বাবলু এবং শিশু আনন্দ মেলা উদযাপন কমিটির আহ্বায়ক আহসান রহিম মঞ্জিল উপস্থিত ছিলেন।

অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন সদর উপজেলার স্যানিটারি ইন্সপেক্টর আল আমিন।

নবকলি খেলাঘর আসর নীলফামারী জেলা কমিটির সাধারণ সম্পাদক আফরোজা বিনতে আজিজ গ্লোরী জানান, নীলফামারী, সৈয়দপুর, ডোমার, জয়পুরহাট, পাঁচবিবিসহ আটটি ইউনিটের ৩০০ শিশু অংশগ্রহণ করে উৎসবে।

তিনি জানান, দিনব্যাপী কবিতা আবৃত্তি, চিত্রাঙ্কন এবং বই পড়া প্রতিযোগিতায় ১২০ জনকে পুরস্কৃত করা হবে। এর মধ্যে তিন গ্রুপের সেরা তিনজনকে তালিকায় রাখা হবে।

আলোচনা সভার আগে বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা শহরের বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে। এতে জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান জয়নাল আবেদীনও অংশগ্রহণ করেন।

মন্ত্রী অনুষ্ঠানস্থলে পৌঁছলে জাতীয় ও সাংগঠনিক পতাকা উত্তোলন শেষে বেলুন ও পায়রা উড়িয়ে শিশু আনন্দ মেলার উদ্বোধন করেন মন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূর।

নবকলি খেলাঘর আসর জেলা কমিটির সহ-সভাপতি সোনালী সরকার জানান, মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় নতুন প্রজন্ম গড়ে তোলো প্রতিপাদ্যে নীলফামারীতে শিশু আনন্দ মেলা অনুষ্ঠিত হচ্ছে।

আরোও পড়ুন...

HostGator Web Hosting