| |

Ad

সর্বশেষঃ

ময়মনসিংহে জমে উঠেছে খোলা আকাশের নীচে পিঠা বিক্রি

আপডেটঃ ৩:০৫ অপরাহ্ণ | নভেম্বর ২৯, ২০১৫

মো: রাসেল হোসেন, ময়মনসিংহ প্রতিদিন :

রসুন মরিচবাটা,শুয়াচ পাতাবাটা, শুটকির ঝোল মিলিয়ে চিতই পিঠার সঙ্গে। বিকেলে হিমেল হাওয়ায় খোলা আকাশের নীচে দাঁড়িয়ে অনেকেই তাই চিতই পিঠা খাওয়ায় লোভ যেন সামলাতে পারছেন না। চাইলে নতুন ধানের চাল, নারকেল ও খেজুরগুরের তৈরি গরম গরম ভাপা পিঠারও স্বাদ নেওয়া যায়। পিঠা ব্যবসায়ীরা বলছে শীতের আগে এই সামান্য ঠান্ডায় বিকেল থেকে রাত পর্যন্ত ক্রেতারা ভিড় জমাচ্ছেন ময়মনসিংহের বিভিন্ন অলিগলিতে বসা খোলা আকাশের নীচে পিঠার দোকানে। মাটির চুলোতে পিঠা বানানোর ধুম লেগেছে ময়মনসিংহ শহরের বিভিন্ন আনাচে-কানাচে। সন্ধ্যায় একটু ঠান্ডা বাতাসে পিঠার সঙ্গে জ্বলন্ত লাকড়ির ওমও পাচ্ছেন ক্রেতারা। ময়মনসিংহ শহরের এবার যেন একটু আগে ভাগেই হাজির হয়েছে শীত! সাত-সকালে ঘুম ভাঙলেই দেখা মিলছে কুয়াশা, গাছিদের খেজুর গাছের গলাকেটে রস সংগ্রহ করে গ্রামে রস, এই রস, রস রাখবেননি রস ডাক শুনে ঘুম ভাঙ্গা,সবুজ পাতা থেকে একটু একটু করে ঝরে পড়ছে শিশির হেমন্তের শেষে রুপ বদলাচ্ছে প্রকৃতি। ঘরে ঘরে শীতের আগেই পিঠা বানানো হচ্ছে। সেই পিঠা আবার তৈরি হচ্ছে সদ্য কাঁটা আমন ধানের নতুন চালে। ময়মনসিংহ শহরের অধিকাংশ হোটেলে-রেস্তোরাতেও নানা পদের পিঠা তৈরি করা হচ্ছে । ময়মনসিংহ শহরের গাঙ্গিনাপাড়ের পিঠা বিক্রিতা হান্নান বলেনে, এই বাজারে দীর্ঘ ৩ বছর ধরে শীত মৌসুমে ভাপা পিঠা, চিতই পিঠা বিক্রি করছি। আরেক পিঠা বিক্রিতা কালাম বলেন, নতুন চাল, নারকেল ও খেজুরের তৈরি গুর দিয়ে ভাপা পিঠা তৈরী প্রতিদিন গড়ে ৩০০ ভাপা পিঠা বিক্রি করি সাথে ২০০টি চিতই পিঠা বিভিন্ন সু-স্বাদু সব বাটা দিয়ে বিক্রি করে থাকি। প্রতিদিন আমার ৩০০ বাপা পিঠা বিক্রি হয়। গত কয়েক দিনে সরেজমিনে ময়মনসিংহ শহরের গাঙ্গিনারপাড়, নওমহল, নতুন বাজার, মিন্টু কলেজ, দূর্গাবাড়ী, আঠারোবাড়ী বিল্ডিং, বড় বাজার, ছোট বাজার, মাসকান্দা, মালগুদাম, ব্রীজ মোড়, চড়পাড়া মোড়, ফুলবাড়ীয়া বাসস্ট্যান্ড, কাচিঝুলি, পাটগুদাম,  আকুয়া, জুবলিঘাট, সানকিপাড়া, আমপট্টিসহ বিভিন্ন স্থানে কয়েক শ’ ভ্রাম্যমান ব্যবসায়ীরা বিকেল থেকে রাত পর্যন্ত পিঠা বিক্রি করছে।
এ পিঠা খেতে আসতে যুবক বৃদ্ধা শিশুসহ প্রায় সকল শ্রেণীপেশার মানুষদের ল করা যায়। গতকাল সন্ধ্যায় পিঠা খেতে আসা কয়েক জন লোকের সাথে কথা বললে তারা জানান, শীতের সন্ধ্যায় গরম গরম ভাপা পিঠা খেতে খুবি মজা লাগে তারা আরো বলেন,এ পিঠার দামও কম এবং খেতেও খুব সু-স্বাদু তাই সন্ধ্যাবেলায় বন্ধুরা মিলে পিঠা খেতে এসেছি।

আরোও পড়ুন...