| |

Ad

সর্বশেষঃ

চুল পড়া বন্ধ করবে যে তেল

আপডেটঃ ১২:৫০ পূর্বাহ্ণ | মে ২৫, ২০১৮

লাইফস্টাইল ডেস্ক : প্রতিদিনের ধুলো, দূষণ, কেমিক্যাল ইত্যাদির কারণে আমাদের চুলগুলো ধীরে ধীরে নিস্তেজ হয়ে পড়ে। চুল পড়তে শুরু করে আর একদমই বাড়ে না। লম্বা আর ঘন চুলের শখ থাকে অনেকেরই। কিন্তু এসব কারণে তা আর সত্যি হয়ে ওঠে না। একটু চেষ্টা করলে আপনিও পেতে পারেন কাঙ্ক্ষিত চুল। আর সেজন্য যে খুব একটা কষ্ট করতে হবে, এমনও নয়। সহজেই এমন একটি তেল তৈরি করা যাবে যেটি ব্যবহার করে আপনিও পাবেল ঝলমলে সুন্দর চুলের দেখা।

তেলটি বানাতে যা লাগবে:
কারি পাতা: কারিপাতা ইন্ডিয়ান রান্নায় সুগন্ধি হিসেবে বেশ প্রচলিত। এর পাশাপাশি এটি চুলের জন্যেও বেশ ভালো কাজ করে। কারি পাতা চুলকে ঘন এবং কালো করে তোলে। এতে প্রচুর পরিমাণে ভিটা ক্যারোটিন রয়েছে, যা চুল-পড়া কন্ট্রোল করে। এছাড়াও এতে আছে এমাইনো এসিড এবং অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট যা, চুলে পুষ্টি জোগায়, স্কাল্পকে নারিশ করে হেয়ার গ্রোথ-কে প্রোমোট করে। কারি পাতা আপনারা যে কোনো সুপার শপে পেয়ে যাবেন।

মেহেদি পাতা: মেহেদি চুলের দ্রুত বৃদ্ধি করে, চুল পড়া বন্ধ করে এবং চুলকে ডিপ-কন্ডিশনিং করে।

জবা ফুল: জবা ফুলে রয়েছে এমিনো এসিড, আলফা হাইড্রোক্সি এসিড, ভিটামিট এ ও সি। জবা ফুল চুলে ন্যাচারাল কন্ডিশনার হিসেবে কাজ করে। এছাড়া এটি চুলকে কালো করতেও সাহায্য করে।

কোকোনাট অয়েল: কোকোনাট অয়েল চুলের গ্রোথ বাড়াতে সাহায্য করে, চুল ভাঙা, আগা-ফাটা রোধ করে চুলকে নারিশ করে তোলে।

যেভাবে তৈরি করবেন:
তেল বানাতে ৫-৬ টা করে কারি পাতা এবং মেহেদির ছোট ডাল লাগবে। এছাড়াও জবা ফুল লাগবে ৮-১০ টি। প্রথমে ই কারি পাতা এবং মেহেদী পাতা ডাল থেকে আলাদা করে নিন। জবা ফুলগুলোর পাপড়ি ছাড়িয়ে নিন। সবগুলো পাতা এবং ফুল পানি দিয়ে ধুয়ে পরিষ্কার করে নিন। এবার একটি ছড়ানো বড় প্লেটে পাতা এবং ফুলগুলো রেখে রোদে শুকিয়ে নিন। রোদে শুকাতে কতদিন লাগবে সেটা রোদের তাপের ওপর নির্ভর করে।

প্রথমে একটি ছোট পাতিলে পানি নিয়ে নিন। পানিটা ফুটতে শুরু করলে পাতিলের উপরে একটি হিট প্রুফ বাটি রাখুন। এবার বাটিতে ১৫০ মিলি কোকোনাট অয়েল ঢালুন। এর মধ্যে শুকনো কারি পাতা, মেহেদি পাতা এবং জবা ফুল মিশিয়ে নিন। ১০-১৫ মিনিটের মতো হালকা আঁচে জ্বাল দিন। জ্বাল দেয়া হয়ে গেলে বাটিটা নামিয়ে ৬-৮ ঘণ্টা এভাবেই রেখে দিন।

৬-৮ ঘণ্টা পর তেলটুকু ছেঁকে একটি পরিষ্কার কাঁচের বয়ামে সংরক্ষণ করুন। ফ্রিজে রাখার প্রয়োজন নেই। ১ মাসের মতো ভালো থাকবে। সপ্তাহে ২ দিন রাতে চুলে সিঁথি কেটে কেটে তেলটি পুরো চুলে লাগিয়ে সারারাত রেখে দিন। পরদিন শ্যাম্পু করে কন্ডিশনার লাগিয়ে নিন।

আরোও পড়ুন...