| |

সর্বশেষঃ

মৌলভীবাজারে আগাম বন্যায় নিহত ৫

আপডেটঃ ৭:২৭ অপরাহ্ণ | জুন ১৬, ২০১৮

মৌলভীবাজার প্রতিনিধি : মৌলভীবাজারে আগাম বন্যায় পরিস্থিতির অবনতি হয়েছে। এখন পর্যন্ত সেখানে ৫ জনের মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছে। বন্যার্তদের উদ্ধার করে নিরাপদ আশ্রয়ে সরানোর পাশাপাশি শহরের ঝুঁকিপূর্ণ প্রতিরক্ষা বাঁধ মেরামতে কাজ শুরু করেছে সেনাবাহিনী।

শহরের চাঁদনীঘাটের কাছে মনু নদীর পানি বিপদসীমার ১৫৯ সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। কুশিয়ারা নদী শেরপুরে কাছে ৪০ সেন্টিমিটার এবং কমলগঞ্জে ধলাই নদীর পানি বিপদসীমার ৫৯ সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে।

মনু নদীর পানি বৃদ্ধি অব্যাহত থাকলে যে কোন মুহুর্তে প্রতিরক্ষা বাঁধ (গাইড ওয়াল) ভেঙ্গে বন্যার পানি প্রবেশ করতে পারে।

মনু ও ধলাই নদীর এ পর্যন্ত ২২টি স্থানে প্রতিরক্ষা বাঁধ ভেঙ্গে বন্যার পানি প্রবেশ করে কুলাউড়া, কমলগঞ্জ, রাজনগর ও সদর উপজেলার বিস্তৃর্ণ এলাকা প্লাবিত করেছে। তলিয়ে গেছে এ সব বাড়ি ঘর সহ রাস্তাঘাট। পানি বন্দী রয়েছে জেলায় প্রায় ৫ শত গ্রামের ৩ লাখ মানুষ।

মনু নদীর শহর প্রতিরক্ষা বাঁধের ২২টি পয়েন্টে ভাঙন দেখা দিয়েছে। শহরবাসীকে শতর্ক থাকতে ও নিরাপদ স্থানে সরে যেতে মাইকিং করা হচ্ছে। বন্যাকবলিতদের জন্য এ পর্যন্ত ১৪৩ মেট্রিক টন চাল এবং নগদ অর্থ বরাদ্দ দেয়া হয়েছে।

জেলা প্রশাসক মো. তোফায়েল ইসলাম জানান, জেলার ৩টি উপজেলায় সেনাবাহিনী কাজ করছে। মনু নদীর শহর প্রতিরক্ষা বাঁধের ঝুকিপূর্ণ স্থানগুলো গতকাল শুক্রবার রাতে সেনাবাহিনীর একটি দল পরিদর্শন করেছে। আজ দুপুরের দিকে মনু নদীর শহর প্রতিরক্ষা বাঁধ রক্ষায় সেনাবাহিনী নামবে।

মৌলভীবাজার পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী রনেন্দ্র শংকর চক্রবর্তী জানান, এ পর্যন্ত ২২টি স্থানে ভাঙ্গন দিয়েছে। ভারতের উত্তর ত্রিপুরায় প্রচুর বৃষ্টিপাত হচ্ছে। পানি বৃদ্ধি অব্যাহত থাকলে মনু নদীর শহর প্রতিরক্ষা বাঁধ উপচে বন্যার পানি প্রবেশ করে শহর তলিয়ে যেতে পারে।

আরোও পড়ুন...

HostGator Web Hosting