| |

সর্বশেষঃ

ড. কামালরা সরকার পতনের ষড়যন্ত্রে লিপ্ত : আইনমন্ত্রী

আপডেটঃ ৫:৫১ অপরাহ্ণ | আগস্ট ১০, ২০১৮

নিজস্ব প্রতিবেদক : আইনমন্ত্রী আনিসুল হক বলেছেন, ‘ড. কামাল হোসেনরা মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রকে সঙ্গে নিয়ে সরকার পতনের অপচেষ্টায় লিপ্ত রয়েছেন। সম্প্রতি ঢাকায় মার্কিন রাষ্ট্রদূতকে নিয়ে তারা বৈঠকও করেছেন। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা শিক্ষার্থীদের সব দাবি মেনে নেয়ার পরও তারা সরকার পতনের ষড়যন্ত্র করেছেন।’

শুক্রবার দুপুরে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আখাউড়া উপজেলার মোগড়া উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে মোগড়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ আয়োজিত জাতীয় শোক দিবসের আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

আইনমন্ত্রী বলেন, ‘ড. কামাল হোসেনরা এসকে সিনহাকে নিয়ে জুডিশিয়ালি ক্যু’র চেষ্টা করেছিলেন। কিন্তু সেই চেষ্টা নস্যাৎ করা হয়েছে। নতুন করে আবার সরকার পতনের গভীর যড়যন্ত্রের অংশ হিসেবে মার্কিন রাষ্ট্রদূতকে নিয়ে ঢাকার একটি বাসায় গোপন বৈঠক করেন। পরে আমার মোবাইলে এসএমএস (ক্ষুদে বার্তা) পাঠিয়ে হুমকি দেয়া হয়েছে, ‘ক্ষমতা তো গেল, বেরুবেন কোন দিক দিয়ে।’

আইনমন্ত্রী হুঁশিয়ার উচ্চারণ করে বলেন, ‘আমাদের ভয় দেখিয়ে লাভ নেই। আমরা ছোট মন নিয়ে রাজনীতি করি না। আমরা জনগণকে নিয়ে, তাদের ভালোবাসায় রাজনীতি করি, আমাদের মন বিশাল। আমাদের ভয় দেখাতে আসবেন না।’

আখাউড়া উপজেলার মোগড়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি নোয়াব মিয়ার সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন আখাউড়া উপজেলা আওয়ামী লীগের আহ্বায়ক অধ্যাপক জয়নাল আবেদীন, আখাউড়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মো. শামছুজ্জামান, আইনমন্ত্রীর এপিএস রাসেদুল কাউছার জীবন, আবুল কাশেম ভূঁইয়া, সেলিম ভূঁইয়া, পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি আব্দুল্লাহ্ ভুঁইয়া বাদল, উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি সৈয়দ তানজিল শাহ তচ্ছন প্রমূখ।

‘ইসিকে প্রশ্নবিদ্ধ করার অপচেষ্টায় বিএনপি-জামায়াত’

এদিকে শুক্রবার ব্রাহ্মণবাড়িয়ার কসবা মূলগ্রাম ইউনিয়নের চারগাছ কলেজ মাঠে ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ আয়োজিত শোকসভায়ও বক্তৃতা করেন আইনমন্ত্রী। সেখানে তিনি বলেন, ‘আগামী ডিসেম্বর মাসে জাতীয় সংসদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। নির্বাচন সুষ্ঠু হবে না এমন অবান্তর অভিযোগ তুলে এখন থেকেই বিএনপি ও তার দোসররা নির্বাচন কমিশনকে প্রশ্নবিদ্ধ করার অপচেষ্টা চালাচ্ছে। কিন্তু বিএনপি-জামায়াতকে দেশের মানুষ প্রত্যাখ্যান করেছে।’

মন্ত্রী বলেন, ‘সম্প্রতি ছাত্রদের দুই সতীর্থকে বাসচালক খুন করায় ছাত্ররা আন্দোলন করেছে। তারা নিরাপদ সড়ক পরিবহন আইনের দাবি তুলেছে। তাদের যৌক্তিক আন্দোলনকে আমরা সমর্থন দিয়েছি এবং তাদের দাবি বাস্তবায়নের লক্ষ্যে আইনের খসড়া চূড়ান্ত করেছি। কিন্তু বিএনপি-জামায়াত ও তাদের দোসররা ওই আন্দোলনকে উত্তাপ দিয়ে সরকার পতনের অপচেষ্টা করেছিল।’

‘ড. কামাল মার্কিন রাষ্ট্রদূতের সঙ্গে ষড়যন্ত্র করেছিলেন সরকারকে ফেলে দিতে। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র কখনো আমাদের বন্ধু ছিল না। ১৯৭১ সালে পাকিস্তানিদের পক্ষ হয়ে আমাদের চরম বিরোধিতা করেছিল। এখনও তারা পাকিস্তানের দোসর বিএনপি-জামায়াতের পক্ষ হয়ে বাংলাদেশের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করছে।’

বঙ্গবন্ধু বিশাল হৃদয়ের মানুষ ছিলেন জানিয়ে আনিসুল হক বলেন, ‘আমার বাবা ছিলেন বঙ্গবন্ধুর ঘনিষ্ঠ বন্ধু। ষাটের দশকে এক মামলায় বিচারক বঙ্গবন্ধুকে উদ্দেশ্য করে বিভিন্ন ফৌজদারি অপরাধের ফিরিস্তি গেয়েছেন। আমার বাবা তাকে শেখালেন ওই সমস্ত অভিযোগ অস্বীকার করে নিজেকে নির্দোষ দাবি করতে। বিচারক আবার তাকে জিজ্ঞেস করায় তিনি বলেন, যা করেছি বেশ করেছি। আমার বাংলার মানুষের জন্য আমি আরও করবো। এই হলো বঙ্গবন্ধু।’

‘বঙ্গবন্ধু কখনও অন্যায়ের সঙ্গে আপস করেননি। তার কন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনাও কোনো অন্যায়ের সঙ্গে আপস করবেন না। তিনি বাংলাদেশকে একটি উন্নত জাতি হিসেবে সারাবিশ্বে পরিচয় করিয়েছেন। ইনশাআল্লাহ তার নেতৃত্বেই ২০৪১ সালে বাংলাদেশ হবে পৃথিবীর একটি উন্নত রাষ্ট্র।’

মূলগ্রাম ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ সভাপতি মো. শাহ আলমের সভাপতিত্বে শোকসভায় বিশেষ অতিথি ছিলেন উত্তরা গ্রুপের চেয়ারম্যার মতিউর রহমান, উপজেলা চেয়ারম্যান আনিসুল হক, আওয়ামী লীগের যুগ্ম-আহ্বায়ক এমজি হাক্কানী, কাজী আজহারুল ইসলাম, মন্ত্রীর এপিএস রাশেদুল কাউসার জীবন, রুহুল আমিন ভূঁইয়া বকুল, কসবা প্রেসক্লাব সভাপতি মো. সোলেমান খান, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান শাহীন সুলতানা, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান বিলকিছ বেগম, ডা. একে আজাদ, মূলগ্রাম ইউপি চেয়ারম্যান মো. মাইনুল ইসলাম, কসবা পৌর কাউন্সিলর আবু জাহের, উপজেলা ছাত্রলীগ সভাপতি মনির হোসেন ও সাধারণ সম্পাদক আফজাল হোসেন রিমন।

আরোও পড়ুন...

HostGator Web Hosting