| |

Ad

সর্বশেষঃ

অতিবৃষ্টি-বন্যায় ভারতে ৮৬৮ জনের প্রাণহানি

আপডেটঃ ৭:০১ অপরাহ্ণ | আগস্ট ১৭, ২০১৮

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : চলতি বর্ষা মৌসুমে অতিবৃষ্টি, বন্যা এবং ভূমিধসে ভারতের সাতটি রাজ্যে ৮৬৮ জনের মতো মানুষ মারা গেছেন। এর মধ্যে কেরালাতেই মারা গেছেন ২৪৭ জন। শুক্রবার ভারতের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সূত্রে এ তথ্য দিয়েছে দেশটির সংবাদমাধ্যম হিন্দুস্তান টাইমস।

স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের অধীনে জাতীয় দুর্যোগ মোকাবেলা কেন্দ্র (এনইআরসি) জানায়, কেরালা রাজ্যে এখন পর্যন্ত ২৪৭ জন মারা গেছেন। রাজ্যটির ১৪ জেলায় অতিবর্ষণের ফলে দুই লাখ ১১ হাজার মানুষ ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। সেইসঙ্গে সাড়ে ৩২ হাজার হেক্টর জমির ফসল নষ্ট হয়ে গেছে।

কেরালার মুখ্যমন্ত্রী পি ভিজায়ান শুক্রবার এক সংবাদ সম্মেলনে বলেন, আগস্টের ৮ তারিখ পর্যন্ত মৃতের সংখ্যা ছিল ১৬৪।

এনএইআরসি জানায়, এবারের বর্ষায় অতিবৃষ্টির ফলে সৃষ্ট দুর্যোগে উত্তর প্রদেশে ১৯১ জন, পশ্চিম বাংলায় ১৮৩ জন, মহারাষ্ট্রে ১৩৯ জন, গুজরাটে ৫২ জন, আসামে ৪৫ জন এবং নাগাল্যান্ডে ১১ জন মারা গেছে।

জাতীয় দুর্যোগ মোকাবেলা বাহিনী (এনডিআরএফ) জানায়, দুই লাখের মতো মানুষ কেরালার আশ্রয়কেন্দ্রগুলোতে অবস্থান করছে এখন। সেখানে এনডিআরএফ-এর ৪৩টি দল কাজ করছে। দুই হাজার উদ্ধারকর্মী এবং ১৬৩টি বোট উদ্ধারকাজে নিয়োজিত আছে।

এছাড়া ২৩টি হেলিকপ্টার ও ১১টি বিমান উদ্ধারকাজে নিয়োজিত আছে। কার্নাটক এবং নাগপুর থেকেও কিছু বিমান উদ্ধার কার্যক্রমে যুক্ত হয়েছে।

এনডিআরএফ-এর আরও ১৪টি দল আসামে উদ্ধারকাজ পরিচালনা করছে। সেখানে কাজ করছে ৩৫৭ জন উদ্ধারকর্মী। আসামে সাড়ে ১১ লাখ মানুষ ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। নষ্ট হয়েছে সাড়ে ২৭ হাজার হেক্টর জমির ফসল।

পশ্চিম বাংলায় দুই লাখ ২৭ হাজার লোক ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে বন্যায়। সেখানে নষ্ট হয়েছে সাড়ে ৪৮ হাজার হেক্টর জমির ফসল।

উত্তর প্রদেশে এক লাখ ৭৪ হাজার মানুষ ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। প্রায় ৩৪ হাজার হেক্টর জমির ফসল নষ্ট হয়েছে রাজ্যটিতে।

এনডিআরএফ-এর নয়টি দল উত্তর প্রদেশে, আটটি পশ্চিম বাংলায়, সাতটি গুজরাট, চারটি মহারাষ্ট্র এবং একটি নাগাল্যান্ডে কাজ করছে।

আরোও পড়ুন...