| |

সর্বশেষঃ

জনগণকে ত্যাজ্য করে ইভিএমে নির্ভরশীল সরকার : রিজভী

আপডেটঃ ২:০৯ অপরাহ্ণ | সেপ্টেম্বর ১৯, ২০১৮

নিজস্ব প্রতিবেদক : জনগণকে ত্যাজ্য করে জালিয়াতির মেশিন ইভিএম এর ওপর নির্ভরশীল হয়েছে সরকার। বুধবার দুপুরে রাজধানীর নয়াপল্টন বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ মন্তব্য করেন।

ইভিএম কেনার পেছনে সরকারের দু’টি উদ্দেশ্য কাজ করছে মন্তব্য করে বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী বলেন, প্রথমটি হচ্ছে, ভোটারবিহীন কারচুপির নির্বাচন। দ্বিতীয়টি হচ্ছে, এই প্রকল্পের মাধ্যমে বিশাল অংকের টাকা হাতিয়ে নেয়া।

রুহুল কবির রিজভী বলেন, সরকার জনগণকে ত্যাজ্য করে জালিয়াতির মেশিন ইভিএম এর ওপর নির্ভরশীল হয়েছে। এছাড়া সরকারের আর উপায় নেই। কারণ সরকারের নির্বাচন দরকার। কিন্তু ভোট দরকার নেই। সরকারের গণতন্ত্রের মুখোশ দরকার। কিন্তু বিরোধী দলের দরকার নেই। সরকারের গণমাধ্যম দরকার। মত প্রকাশের স্বাধীনতার দরকার নেই। পূণরায় ক্ষমতা লাভের কাড়াকাড়িতে ব্যস্ত সরকারের কাছে ইভিএম কেনা অত্যন্ত জরুরী? এজন্য যে, এই মেশিন ভোট গ্রহণের দিন ব্যবহার হলে ভোটারদের প্রয়োজন হবে না।

তিনি বলেন, জনগণের হাজার হাজার কোটি টাকা খরচ করে ইভিএম কেনার সিদ্ধান্তের উদ্দেশ্যই হলো-আরেকটি ভোটারবিহীন নির্বাচন পাকাপাকিভাবে কারচুপি’র বন্দোবস্ত করা এবং লুটপাটের সুযোগ করে দেয়া। একনেকে অনুমোদন হওয়ার বেশ কিছুদিন আগে সরকারের দু’জন কর্মকর্তা ইভিএম ক্রয় করতে বিদেশ গেছেন।

বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়ার চিকিৎসা সেবা দিতে নানাভাবে বাধা দিচ্ছে সরকার মন্তব্য করে রিজভী বলেন, বেগম জিয়াকে আগে নিয়মিত ফিজিওথেরাপি দিতেন ঢাকা মেডিকেল কলেজের একজন সিনিয়র অভিজ্ঞ থেরাপিষ্ট। পরে তাকে পরিবর্তন করে সরকারদলীয় মনোভাবাপন্ন একজন নতুন অনভিজ্ঞ থেরাপিষ্টকে নিয়োগ দেয়া হয়েছে, যা রহস্যজনক।

উদ্দেশ্যপ্রণোদিতভাবেই বেগম জিয়ার ব্যক্তিগত চিকিৎসকদের মেডিকেল বোর্ডে রাখা হয়নি আবারও অভিযোগ করে তিনি বলেন, আমরা খালেদা জিয়ার অসুস্থতা নিয়ে গভীরভাবে উদ্বিগ্ন ও উৎকন্ঠিত।

বিএনপির এই মুখপাত্র বলেন, বিএনপি চেয়ারপার্সন গুরুতর অসুস্থ হলেও এখনও তার পছন্দ অনুযায়ী হাসপাতালে ভর্তি করা হয়নি কিংবা সুচিকিৎসার ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়নি। এতে প্রমানিত হয়, সরকার খালেদা জিয়ার জীবন নিয়ে কোন গভীর চক্রান্ত চালাচ্ছে।

আরোও পড়ুন...

HostGator Web Hosting