| |

সর্বশেষঃ

/ বিশেষ সংবাদ

বাংলাদেশ : ফিরে দেখা ২০১৫

ডিসেম্বর ২৬, ২০১৫

বিশেষ প্রতিবেদক : বছরের একেবারে শেষপ্রান্তে এসে বছরের আলোচিত সব ঘটনার সংকলন নিয়ে পড়ুন বর্ষ পরিক্রমা: রাজনীতিতে শুরু, রাজনীতিতে শেষ: বাংলাদেশে এই বছরটা শুরুই হয় প্রচণ্ড রাজনৈতিক উত্তাপ দিয়ে। এক বছর আগের বিতর্কিত যে নির্বাচনটিতে যোগ না দিয়ে সরকার ব্যবস্থা থেকে ছিটকে পড়ে দেশটির অন্যতম বৃহৎ রাজনৈতিক দল বিএনপি, ৫ই জানুয়ারি সেই নির্বাচনের এক বছর পূর্তি পালন নিয়ে তারা ক্ষমতাসীন দলের সাথে মুখোমুখি অবস্থানে দাঁড়িয়ে যায়। ৫ই জানুয়ারি ঢাকায় একটি বড় সমাবেশকে কেন্দ্র করে তার দুদিন আগে থেকে প্রশাসন কার্যত অবরুদ্ধ করে রাখে বিএনপি প্রধান খালেদা জিয়াকে। গুলশানের অফিস থেকে বের হতে না পেরে খালেদা জিয়া অব্যাহতভাবে একটি অবরোধ কর্মসূচি...

ময়মনসিংহের নয় পৌরসভায় আওয়ামীলীগ-বিএনপির ৮ বিদ্রোহী

ডিসেম্বর ২৫, ২০১৫

মোঃ রাসেল হোসেন, ময়মনসিংহ প্রতিদিন : ময়মনসিংহ জেলায় ৯টি পৌরসভায় নির্বাচন হচ্ছে। প্রতীক বরাদ্ধের পর থেকে প্রচন্ড শীত আর কুয়াশাকে উপো করে প্রার্থী ও তাদের সমর্থকরা দিনরাত প্রচারনায় ব্যস্ত থাকায় জমে উঠেছে নির্বাচন। তবে মেয়র পদে ৯ পৌরসভার মধ্যে ৬টিতেই বিদ্রোহের আগুনে জ্বলছে আওয়ামী লীগ মনোনীত নৌকা প্রতীক প্রার্থীরা। এদিকে বিএনপি মনোনীত ধানের শীষের ২টি পৌরসভা বিদ্রোহী প্রার্থী রয়েছে। সাধারণ ভোটারেদের মতে সব পৌরসভায় শেষ পর্যন্ত নৌকা ও ধানের শীষে লড়াই হবে। দু’দলেই বিদ্রোহীরাও বড় ফ্যাক্টর হয়ে দাঁড়িয়েছে। যে ৬টি পৌরসভায় মেয়র পদে আওয়ামীলীগের বিদ্রোহী প্রার্থী হিসেবে রয়েছেন সেগুলো হচ্ছে ত্রিশাল, ভালুকা, ঈশ্বরগঞ্জ, গৌরীপুর, মুক্তাগাছা, ফুলপুর।...

চার কারণে পৌর নির্বাচনে বিএনপি

ডিসেম্বর ২১, ২০১৫

বিশেষ প্রতিবেদক : নির্বাচন সুষ্ঠু হবে না— এমন অভিযোগ থাকলেও চার কারণে দলীয় প্রতীকে পৌরসভা নির্বাচনে অংশ নিচ্ছে বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল (বিএনপি)। প্রায় ৮ বছর পর তৃণমূলে ধানের শীষ প্রতীক পৌঁছে দেওয়া, স্থানীয় পর্যায়ে নেতাকর্মীদের চাঙ্গা করা, বহির্বিশ্বের কাছে দলকে জঙ্গি তকমা এড়ানো ও দলের নেতাকর্মীদের ঐক্যবদ্ধতা যাচাই— এই চার কারণে বিএনপি পৌরসভা নির্বাচনে অংশ নিচ্ছে বলে দলটির সূত্রে জানা গেছে। এই লক্ষ্য অর্জনে দলের শীর্ষ পর্যায় থেকে শুরু করে তৃণমূল পর্যন্ত নেতাকর্মীরা ইতোমধ্যে কাজ শুরু করেছেন। বিএনপি এই নির্বাচনকে ‘চ্যালেঞ্জ’ হিসেবে নেওয়ার ঘোষণাও দিয়েছে। ভোটের মাঠে শেষ পর্যন্ত মাটি কামড়ে হলেও থাকতে চায় দলটি। যে কারণে দলীয়ভাবে নির্বাচনের...

গোপালপুরে নির্মিত হচ্ছে ২০১ গম্বুজ মসজিদ!

ডিসেম্বর ২১, ২০১৫

টাঙ্গাইল প্রতিনিধি, ময়মনসিংহ প্রতিদিন : বাংলাদেশসহ বিশ্বের মসজিদের ইতিহাসে জায়গা করে নিতে যাচ্ছে নির্মাণাধীন টাঙ্গাইলের গোপালপুরের ঐতিহাসিক ২০১ গম্বুজ বিশিষ্ট মসজিদ। নির্মাণাধীন এ ২০১ গম্বুজ মসজিদে থাকবে বিশ্বের সর্বোচ্চ সংখ্যক গম্বুজ ও ৪৫১ ফুট উঁচু একটি মিনার। যা বিশ্বরেকর্ড সৃষ্টি করে গিনেস রেকর্ড বুকে নাম লেখাতে চলেছে। শুধু তাই নয় আল্লাহর ঘর এই ঐতিহাসিক স্থাপনাটি বাংলাদেশকে বিশ্বে নতুন করে পরিচিত করে তুলতে সহায়ক হবে এবং প্রচুর বিদেশি পর্যটক ও অলি আউলিয়ার আগমন ঘটবে বলে মন্তব্য করেছেন টাঙ্গাইল ও গোপালপুরের এলাকাবাসী এবং মসজিদ সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ। জানা যায়, বীর মুক্তিযোদ্ধা রফিকুল ইসলাম কল্যাণ ট্রাস্টের উদ্যাগে মসজিদটি নির্মিত...

দৃষ্টি কাড়বে শেরপুরের ঐতিহ্য ও দর্শনীয় স্থান

ডিসেম্বর ২১, ২০১৫

স্টাফ রিপোর্টার, ময়মনসিংহ প্রতিদিন : শেরপুর, ভারতের মেঘালয়ের কোল ঘেষা ময়মনসিংহ বিভাগের একটি জেলা। পূর্বে (১৮২৯-২০১৫ পর্যন্ত) জেলাটি ঢাকা বিভাগের অন্তর্গত ছিল। স্বাধীনতার পর ১৯৮৪ সালে বৃহত্তর ময়মনসিংহ জেলা থেকে পৃথক হয়ে শেরপুর জেলা গঠিত হয়। যার আয়তন ১ হাজার ৩৬৩ দশমিক ৭৬ বর্গকিলোমিটার ও ২০১১ আদমশুমারি অনুসারে জনসংখ্যা ১৩ লক্ষ ৩৪ হাজার জন। জেলাটি ছোট হলেও মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস সম্বলিত এ অঞ্চলে রয়েছে নানা ঐতিহ্য ও দর্শনীয় স্থান। যা ভ্রমণ পিপাসুদের দৃষ্টি কাড়বে। মসজিদ, জমিদার বাড়ি, মন্দির ছাড়াও জেলাটিতে রয়েছে বিভিন্ন ঐতিহ্যবাহী স্থান। এছাড়া অবকাশ কেন্দ্র, পাহড়ে ঘেড়া ভারত-বাংলাদেশ সীমান্তে ইকো পার্ক, রাজার পাহাড় ও বাবেলাকোনা, নয়াবাড়ির...

শেরপুরে সরিষার আবাদ বাড়ছে : মৌ-চাষিদের বাড়তি আয়ের সুযোগ

ডিসেম্বর ২১, ২০১৫

শেরপুর সংবাদদাতা, ময়মনসিংহ প্রতিদিন : শেরপুরের নকলা উপজেলার উত্তরাংশে সরিষা আবাদ বৃদ্ধির সঙ্গে সঙ্গে ভ্রাম্যমাণ মৌ-চাষিদের বাড়তি আয়ের সুযোগ তৈরি হয়েছে। এখানকার বিস্তৃত এলাকায় সরিষা চাষের উপর ভিত্তি করে এক ভ্রাম্যমাণ মৌ-চাষি মধু আহরণ করে বাণিজ্যিকভাবে বাজারজাত করে আসছেন। সরিষা ক্ষেতের পাশে এই ভ্রাম্যমাণ মৌ-চাষ স্থানীয় সরিষা চাষিদের মধ্যে বাড়তি আয়ের সম্ভাবনার সৃষ্টি করেছে। কৃষকরা জানান, আমন কাটার পর তাদের জমি পতিত থাকতো। এখন আমন এবং বোরোর মাঝে তারা মাত্র ৮০ দিনের বারি-১৪ জাতের সরিষা ঘরে তোলার পরও বোরোর চাষ করতে পারছেন। এজন্য কৃষকরা বেশ খুশি। তারা বলছেন, স্বল্প সময়ে সরিষা উঠে যায়। সরিষা বিক্রির টাকায় তারা বোরোর খরচ তুলতে পারেন। তাছাড়া...