| |

Ad

সর্বশেষঃ

/ ভ্রমণ

বিশ্বের বৃহত্তম সেতু নির্মাণ চীনের

এপ্রিল ০১, ২০১৮

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : বিশ্বের সবথেকে বড় সেতু নির্মাণ করে ফের আরও একবার শিরোনামে চীন। রীতিমত ৬০ টি আইফেল টাওয়ারের সমান স্টিল ব্যবহার করে বিশাল সেতু বানিয়ে চমকে দিয়েছে বেইজিং। হংকং, মাকাও, এবং চীনের মূল ভূখণ্ডের সঙ্গে যোগাযোগ রাখবে চীনের তৈরি এই ব্রিজ৷ পার্ল নদীর মোহনার ওপর থেকে ৫৫ কিলোমিটার দীর্ঘ এই ব্রিজটি তৈরির কাজ ৯ বছর আগে শুরু হলেও অবশেষে চীনের সরকার নির্মাণ কাজ শেষ করে বিশ্বে এক নতুন ইতিহাস রচনা করল৷ সূত্রের খবর, ব্রিজটি আগামী ১২০ বছর পর্যন্ত ব্যবহার করলেও কোনও কিছুই এটিকে আঘাত করতে পারবে না৷ শুধুমাত্র তাই নয়, ব্রিজটি তৈরি হওয়ার ফলে যাতায়াতে যে সুবিধা হবে সে বিষয়ে কোন সন্দেহ নেই৷ যাতায়াতের ক্ষেত্রে ৬০ শতাংশ সময় সাশ্রয়...

শেষ মৌসুমে পর্যটকদের পদচারণায় মুখর কক্সবাজার

মার্চ ২৪, ২০১৮

নিজস্ব প্রতিবেদক, কক্সবাজার : গরমের শুরুতে ও পর্যটন মৌসুম শেষ প্রান্তে এসে সপ্তাহিক ও স্বাধীনতা দিবসের ছুটিকে কেন্দ্র করে জমজমাট কক্সবাজার। ফলে পর্যটকে পদচারণায় মুখোরিত সৈকত নগরীর বালিয়াড়ি। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা হতে সৈকতের ডায়াবেটিক পয়েন্ট থেকে কলাতলী পর্যটদের ভিড়ের কারণে এখন সেখানে ঈদের আমেজ বইছে। শেষ মৌসুমে জমজমাট ব্যবসার কারণে খুশি পর্যটন ব্যবসায়ীরাও। বৃহস্পতিবার রাত থেকে ভ্রমণ পিপাসিদের আগাম বুকিং হয়ে আছে কক্সবাজারের সাড়ে ৪শত হোটেল-মোটেল, গেস্ট হাউস, কটেজসহ আবাসনস্থল। কোথাও তিল ধারণের ঠাঁই নেই। কক্সবাজার গেস্ট হাউস মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক আবুল কাশেম সিকদার বলেন, থার্টিফাস্ট নাইট, ইংরেজি বর্ষকে বিদায়-বরণ ও জানুয়ারির শীতকালীন...

বিশ্বের ব্যতিক্রমী কিছু স্থাপনা

ফেব্রুয়ারি ২৬, ২০১৮

বসবাসের প্রয়োজনেই মানুষ ঘর বা থাকার মতো স্থাপনা নির্মাণ করে। তবে সবাই যার যার সাধ্যানুযায়ী বসতবাড়ি বানায়। বিত্তশালীরা তৈরি করে বিলাসবহুল বা ব্যতিক্রমী ভবন। যা মানুষকে অবাক করে আবার আনন্দও দেয়। চিত্তাকর্ষক এমন কিছু স্থাপনা নিয়েই আজকের আয়োজন- ব্যয়বহুল বাড়ি যারা ‘হিজ লাস্ট ভোউ’ দেখেছেন; তাদের খুব আলোড়িত করেছে ‘অ্যাপলডোর’ বাড়িটি। কিন্তু অ্যাপলডোর বাড়িটির আসল নাম নয়। এটির নাম ‘সুইনহে হাউজ’। এর মালিক বিখ্যাত ইঞ্জিনিয়ার স্যার ডেভিড ম্যাকমারট্রাই। বাড়িটি বানাতে খরচ হয়েছে ৩০ মিলিয়ন পাউন্ড। সবুজ ছাদ শিকাগোর সিটি হলের ছাদের দৃশ্য এটি। ইট-পাথরের শহরে একটুখানি সবুজ। যেন নির্মল শান্তির পরশ। গীষ্মের তাপদাহ থেকে রক্ষা পেতে এই ব্যবস্থা। প্রাসাদ এর...

ভাসমান সেতুর পাড়ে গড়ে উঠছে পিকনিক স্পট

জানুয়ারি ২৪, ২০১৮

নিজস্ব প্রতিবেদক : যশোরের মণিরামপুরে স্থানীয়দের উদ্যোগে নির্মিত ভাসমান সেতুটি দেখতে ভিড় করছে মানুষ। দেশের বিভিন্ন জেলা থেকে প্রতিদিনই শত শত মানুষ আসছে ভাসমান এই সেতুটি দেখতে। গত ২ জানুয়ারি বিকালে সেতুটি উদ্বোধন করার পরই তা জনসাধারণের জন্য খুলে দেয়া হয়। এরপর থেকেই প্রতিনিয়ত জনতার ঢল নামছে রাজগঞ্জের ঝাঁপা বাঁওড়ে প্লাস্টিকের ড্রামের ওপর নির্মিত ব্যতিক্রমী এই সেতুটি দেখতে। দর্শনার্থীদের চাহিদার কথা ভেবে সেতুর পশ্চিম পাড়ে গড়ে উঠছে একটি পিকনিক স্পট। সরেজমিন ঘুরে ও স্থানীয়দের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, ভাসমান এই সেতুটি দেখতে প্রতিদিন সকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত উপজেলাসহ দেশের বিভিন্ন এলাকা থেকে বিভিন্ন বয়সী ও শ্রেণিপেশার হাজার হাজার মানুষ...

শীতকালে ঘুরতে যাওয়ার উপযুক্ত কিছু জায়গা

জানুয়ারি ১৩, ২০১৮

ভ্রমন ডেস্ক : শীতকালে সাধারণত স্কুল-কলেজ বন্ধ থাকে। ভ্রমণের জন্যও শীতের আবহাওয়া বেশ উপযোগী। তাই শীতকালেই অনেকে ঘুরতে যাওয়ার প্লেন করে থাকেন। অনেকে হয়তো সিদ্ধান্ত নিতে পারেন না শীতকালে  কোথায় ঘুরতে যাওয়া যায়। দেশের ভেতরেই ঘুরতে যাওয়ার উপযুক্ত কিছু জায়গা রয়েছে। জেনে নিন শীতকালে ভ্রমণ উপযোগী কিছু জায়গা সম্পর্কে। মুজিবনগর মেহেরপুর জেলায় অবস্থিত এটি একটি ঐতিহাসিত স্থান। বাংলাদেশের প্রথম অস্থায়ী সরকারের রাজধানী ছিল এখানে। এখানেই তৎকালীন বৈদ্যনাথতলা বর্তমান মুজিবনগরের আম্রকাননে ১৭ এপ্রিল সরকারের মন্ত্রিপরিষদ শপথ নিয়েছিল। বাংলাদেশের প্রথম রাজধানীর ঐতিহ্য ধরে রাখতে এখানে গড়ে তোলা হয়েছে মুক্তিযুদ্ধ স্মৃতি কমপ্লেক্স। স্মৃতিসৌধের...

সন্তানদের স্কুলে পাঠাতে ৮ কিলোমিটার রাস্তা বানিয়েছেন এক বাবা

জানুয়ারি ১২, ২০১৮

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : ভারতের উড়িষ্যার এক প্রত্যন্ত জেলা কন্ধমাল। পাথুরে রুক্ষ জমি, অনুন্নত পরিবেশ সেই গ্রামের। পাকা রাস্তাতো দূরে থাক, একটা কাঁচা রাস্তা পর্যন্ত নেই। শিক্ষার আলো পৌছায়নি এতদিনেও। এ গ্রামের বাসীন্দারা দুবেলা পেটের ভাত জোটাতেই হিমসিম খায়। সেখানকার ছোট্ট একটি গ্রাম গুমসাহিতে বাস করেন জলন্ধর নায়েক। পেশায় সবজি বিক্রেতা। অক্ষর-জ্ঞানের ছিটেফোঁটাও পড়েনি তার জীবনে। কখনো পড়াশোনা করার সুযোগও পাননি। যে কারণে মনের ভেতর একটা সুপ্তবাসনা কাজ করে জলন্ধরের, সন্তানদের শিক্ষিত করে তুলবেন তিনি। শুরু থেকেই তার ইচ্ছে ছিল ছেলেকে পড়াশোনা করাবেন। বড় মানুষ বানাবেন। ছেলে যতদূর পড়তে চায় ততদূর পড়াবেন। কিন্তু গ্রামে সে ব্যবস্থা নেই। পড়তে হলে জঙ্গলের...