সংবাদ শিরোনাম

 

কুয়েত আমিরের তত্ত্বাবধানে ১১তম বিশ্ব কোরআন প্রতিযোগিতায় অংশ নিয়ে তৃতীয় স্থান অর্জন করেছেন বাংলাদেশের হাফেজ আবু রাহাত। তিন ক্যাটাগরিতে ১১৭টি দেশকে পেছনে ফেলে এ অ্যাওয়ার্ড অর্জন করেন তিনি।

বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন মারকাজুত তাহফিজ ইন্টারন্যাশনাল মাদরাসার প্রতিযোগিতা বিষয়ক সম্পাদক মাওলানা জুবায়ের আহমদ ফারুক।

 

স্থানীয় সময় বুধবার (১৯ অক্টোবর) সকালে সালওয়ার নিকটবর্তী হোটেল রেজিন্সির হল রুমে অনুষ্ঠিত বর্ণাঢ্য অনুষ্ঠানে তিন ক্যাটাগরির চূড়ান্ত বিজয়ীদের নাম ঘোষণা করা হয়।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন কুয়েতের শিক্ষা ও ইসলামিকবিষয়ক মন্ত্রী আব্দুল আজিজ মাজিদ, বিভিন্ন রাষ্ট্রে বিচারকের দায়িত্বপালনকারী মিশরের ড. ফুয়াদ আব্দুল মাজিদ, মিশরের বিশ্ববিখ্যাত কারী শায়েখ ড. জিবরিল, দুবাইয়ে অনুষ্ঠিত বিশ্ব কোরআন প্রতিযোগিতার উপস্থাপক শায়েখ যায়েদসহ আরো অনেকে।

 

বাংলাদেশ ধর্ম মন্ত্রণালয়ের অধীন ইসলামিক ফাউন্ডেশন বায়তুল মোকাররম আয়োজিত কুয়েতে অনুষ্ঠিত আন্তর্জাতিক কোরআন প্রতিযোগিতার জন্য বাংলাদেশ থেকে প্রতিযোগিতার মাধ্যমে মারকাজুত তাহফিজ ইন্টারন্যাশনাল মাদ্রাসার দুজন শিক্ষার্থীর দুটি গ্রুপে বাংলাদেশের প্রতিনিধি নির্বাচিত হয়।

এর আগে বুধবার (১৩ অক্টোবর) কুয়েতের ধর্মমন্ত্রী আনুষ্ঠানিকভাবে এটি উদ্বোধন করেন। ১৩ অক্টোবর শুরু হওয়া প্রতিযোগিতাটি ১৯ অক্টোবর শেষ হয়।

 

 

হাফেজ আবু রাহাত মারকাজুত তাহফিজ ইন্টারন্যাশনাল মাদরাসার পরিচালক শায়েখ নেছার আহমাদ আন নাছিরীর ছাত্র। তার বাড়ি সিরাজগঞ্জ। এর আগে হাফেজ আবু রাহাত জাতীয় হিফজুল কোরআন প্রতিযোগিতা-২০২০ পিএইচপি কোরআনের আলোয় প্রথম স্থান অধিকার করে।

আবু রাহাত ছাড়াও একই প্রতিষ্ঠানের হাফেজ তাওহিদুল ইসলাম নামে আরেকজন প্রতিযোগিতায় অংশ নিয়েছিলেন অনূর্ধ্ব ৩৫ বছরের গ্রুপে। বিজয়ীদের কাতারে তিনি নাম লেখাতে পারেননি এবার। তবে হাফেজ তাওহিদুল ইসলাম এর আগে দুবাইয়ে অনুষ্ঠিত বিশ্ব হিফজুল কোরআন প্রতিযোগিতায় ৭০টি দেশের মধ্যে ১০ম স্থান অধিকার করে।

 

 


মতামত জানান :

 
 
 
কপিরাইট © ময়মনসিংহ প্রতিদিন ডটকম - সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত | উন্নয়নে হোস্টপিও.কম