| |

সর্বশেষঃ

মুক্তাগাছা-ময়মনসিংহ বিআরটিসি বাস সার্ভিস উদ্বোধন করলেন সংস্কৃতি প্রতিমন্ত্রী

আপডেটঃ ৯:০৭ অপরাহ্ণ | জুন ২৫, ২০১৯

স্টাফ রিপোর্টার, ময়মনসিংহ প্রতিদিন ডটকম : স্থানীয় যাত্রীদের হয়রানীমুক্ত সেবা প্রদানের লক্ষ নিয়ে মুক্তাগাছা টু ময়মনসিংহ রুটে বিআরটিসি বাস সার্ভিস চালু করা হয়েছে। মঙ্গলবার (২৫ জুন) বেলা ১১টার দিকে উপজেলার ভাবকির মোড়ে এ বাস সার্ভিসের উদ্বোধন করেন সংস্কৃতি প্রতিমন্ত্রী আলহাজ্ব কেএম খালিদ বাবু এমপি। উদ্বোধন শেষে এই বাসের প্রথম যাত্রী হিসেবে তিনি মুক্তাগাছা থেকে ময়মনসিংহ যাত্রা করেন। ভাবকির মোড় থেকে ময়মনসিংহ নগরীর চারটি পয়েন্টে বিআরটিসির বাসগুলো চলবে। এতে মোট ১৬টি বাস রয়েছে। ২০ কিলোমিটার পথের জন্য যাত্রীদের ভাড়া নির্ধারণ করা হয়েছে ২০ টাকা। বাস সার্ভিসের উদ্বোধনকালে প্রতিমন্ত্রী কেএম খালিদ বাবু বলেন, জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশ দ্রুত গতিতে এগিয়ে যাচ্ছে। শেখ হাসিনা দেশের সব প্রান্তের মানুষের কথা চিন্তা করেই দেশের জন্য কাজ করে যাচ্ছেন উল্লেখ করে প্রতিমন্ত্রী বলেন, উপজেলা পর্যায়ে বিআরটিসির এ বাস সার্ভিস মূলত তারই প্রমান। প্রতিমন্ত্রী বলেন, এ বাস সার্ভিস টিকিয়ে রাখার দায়িত্ব সবার। আমরা যেন এসব বাসের রক্ষণাবেক্ষণ করি। তিনি বলেন, নিজেকে ছাত্র, সরকারি দলের নেতা, চাকরিজীবী, যুবলীগ, ছাত্রলীগ পরিচয় দিয়ে ভাড়া অর্ধেক দিতে চাইবেন না। এ ধরনের অপকর্ম মেনে নেওয়া হবে না। আমরা চেষ্টা করবো, মুক্তাগাছা থেকে ঢাকায় একটি এসি বাস চালু করতে। ‘কার ব্যবসা হবে, কার হবে না, এটা দেখলে হবে না। আমাদের দেখতে হবে জনগণের স্বস্তি কীসে, মানুষ কীসে শান্তি পায়।’ প্রতিমন্ত্রী বলেন, ২০১৬ সালের ২২ ডিসেম্বর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা মুক্তাগাছায় একটি জনসভায় এসেছিলেন। সেসময় তিনি বলেছিলেন, আমি খালিদ বাবুকে দিয়ে গেলাম, তাকে নির্বাচিত করুন, মুক্তাগাছার উন্নয়নের দায়িত্ব আমি নিয়ে গেলাম। তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী তার কথা রেখে মুক্তাগাছার মানুষের দুর্দশা লাঘবের জন্য আমাদের যেসব বাস উপহার দিয়েছেন, সেসব রক্ষণাবেক্ষণের মাধ্যমে এলাকাবাসীর লালিত স্বপ্ন বাস্তবায়ন করবো। প্রতিমন্ত্রী বিআরটিসি বাস সার্ভিস উদ্বোধনের পর একসঙ্গে তিনটি বাস মুক্তাগাছা থেকে ময়মনসিংহের উদ্দেশে ছেড়ে যায়। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক আলহাজ্ব বিল্লাল হোসেন সরকার, দায়িত্বপ্রাপ্ত উপজেলা নির্বাহী অফিসার রাজিব-উল-আহসান, কৃষকলীগের কেন্দ্রীয় নেতা ইছাহাক আলী সরকার, উপজেলার ভাইস চেয়াম্যান আলহাজ্ব আরব আলী, থানার ওসি মোহাম্মদ আলী মাহমুদ, উপজেলা যুবলীগের আহবায়ক জাহাঙ্গীর আলম, উপজেলা কৃষকলীগের সাধারণ সম্পাদক আরিফ রব্বানী প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

HostGator Web Hosting