| |

সর্বশেষঃ

  • মুজিব বর্ষ

সড়কে মানা হচ্ছে না স্বাস্থ্যবিধি

আপডেটঃ 2:14 pm | May 31, 2020

নিজস্ব প্রতিবেদক : মহামারি করোনাভাইরাসের কারণে টানা ৬৬ দিন সরকারি ছুটির পর আগামীকাল থেকে শুরু হচ্ছে বাস চলাচল। তবে আজ থেকেই খুলেছে বিভিন্ন অফিস, শিল্প কারখানা ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠান। তাই সকালে বাসা থেকে বের হয়ে ভোগান্তিতে পড়তে হয় সাধারণ যাত্রীদের। বাস না চলায় লেগুনা, অটোরিকশা, রিকশা করে যেতে হয়েছে তাদের কর্মস্থলে। সেখানে মানা হয়নি স্বাস্থ্যবিধি।

রোববার (৩১ মে) রাজধানীর ধানমন্ডি, জিগাতলা, সায়েন্সল্যাব, শাহাবাগ, পল্টন, মতিঝিল এলাকা ঘুরে এমন চিত্রই দেখা গেছে। আজ থেকে সরকারি অফিস খোলার কারণে বিআরটিসি’র বাস বা সরকারি স্টাফদের পরিবহণ করা বাসের সংখ্যা ছিল বেশি। সড়কে স্টাফ বাসের যাত্রীরা স্বাস্থ্যবিধি মানলেও লেগুনাগুলো একাবারেই স্বাস্থ্যবিধি মানছেন না বলে অভিযোগ করেছেন যাত্রীরা।

সরেজমিনে দেখা গেছে, ধানমন্ডি, শাহবাগ, পল্টন এয়াকায় অনেক যাত্রী সড়কে অপেক্ষা করছেন। তারা রিকশা বা সিএনজি অটোরিকশাতে করে করে গন্তব্যে যাচ্ছেন।

এসব এলাকা ঘুরে দেখা গেছে, করোনাভাইরাসের সংক্রমণ প্রতিরোধে প্রয়োজনীয় স্বাস্থ্যবিধি মেনে নির্দিষ্ট শারীরিক দূরত্ব বজায় রেখে অফিসের স্টাফ বাসগুলোতে যাত্রী ওঠাচ্ছেন নামাচ্ছেন। যাত্রীরা নিজেদের নিরাপত্তার জন্য মুখে মাস্ক ও হাতে গ্লাভস এমনকি ব্যক্তিগত সুরক্ষার সামগ্রী (পিপিই) পরিধান করছেন।

মতিঝিলে একটি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে চাকরি করেন মোহাম্মদ ইমরান হোসেন। তিনি বলেন, ‘সকালে রাস্তায় বের হয়ে অনেকক্ষণ বাসের জন্য অপেক্ষা করি। পরে শুনতে পেলাম কাল থেকে বাস চলবে। তাই লেগুনাতে করে মতিঝিল এলাম। কিন্তু লেগুনায় ছয়জন যাত্রী নিয়ে চলাচল করার কথা থাকলেও তা মানা হচ্ছে না।’

তিনি বলেন, ‘যাত্রীরা প্রতিবাদ করেছি। চালকদের বলেছি অতিরিক্ত যাত্রী না নিতে। কিন্তু তারা সেটা মানছেন না।’

রাতুল হাসান নামে একজন বলেন, ‘লেগুনার চালকগুলো বেশি চালাক। পুলিশ দেখলেই যাত্রী নামিয়ে দেয়। কিন্তু ভাড়া ঠিকই আগে আগে রেখে দেয়। আর পুলিশ দেখলে নামিয়ে দিয়ে বলে একটু হেঁটে যান। সামনে গিয়ে আবার গাড়িতে আপনাদের তুলছি।’

এ বিষয়ে আরমান আলী নামে এক লেগুনা চালক বলেন, ‘অনেকদিন পরে আজ লেগুনা নিয়ে বের হয়েছি। আমরাতো চাই কম যাত্রী নিয়েই লেগুনা চালাতে কিন্তু যাত্রীরাই জোর করে ওঠে। এখন আমরা কী করতে পারি বলেন।’

মতিঝিল জোনের ট্রাফিক ইনেস্পেক্টর ইমরান আলী বলেন, ‘আজ সকাল থেকেই কিছু সংখ্যক সরকারি ও বেসরকারি স্টাফ বাস চলাচল করতে দেখা গেছে। এই বাসগুলো শুধু তাদের স্টাফদের নিয়েই যাতায়াত করছে। আগামীকাল থেকে গণপরিবহন চলাচল শুরু হবে। ডিএমপি থেকে আমাদের নির্দেশনা দেওয়া আছে যাত্রীরা ও পরিবহন শ্রমিকরা যেন স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলাচল করে সেই বিষয়টি আমাদের নিশ্চিত করতে। আমরাও সজাগ দৃষ্টিতে রাখবো।’

লেগুনায় অতিরিক্ত যাত্রী নেওয়ার বিষয়ে নিতে বলেন, ‘আমি কিছু লেগুনা চালককে সাবধান করে দিয়েছি। যদি বেশি যাত্রী নেওয়া হয় তাহলে তাদেরকে আর রাস্তায় লেগুনা চালাতে দেওয়া হবে না।’

HostGator Web Hosting