সংবাদ শিরোনাম


স্টাফ রিপোর্টার, ময়মনসিংহ প্রতিদিন ডটকম : ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজের (মমেক) আরটি পিসিআর ল্যাব এখন সারা বাংলাদেশে লিড দিচ্ছে। চমৎকার সমন্বয় ও আন্তরিক পরিবেশে নিরবচ্ছিন্ন সেবাদানের ফলে দেশসেরা করোনা পরীক্ষা কেন্দ্র এখন ময়মনসিংহে বলে জানিয়েছেন স্বাধীনতা চিকিৎসক পরিষদ (স্বাচিপ) কেন্দ্রীয় কমিটির মহাসচিব অধ্যক্ষ ডাঃ এম. এ আজিজ। বৈশ্বিক মহামারি করোনা ভাইরাসের আতঙ্কে যখন সারাদেশ আতংকে। এমনি অবস্থায় সুখবর দিয়েছে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজের (মমেক) আরটি পিসিআর ল্যাব। দেশে রাজধানীর বাইরে একদিনে সর্বাধিক সংখ্যক ১হাজার ২২২টি করোনার নমুনা পরীক্ষা করে রেকর্ড সৃষ্টি করেছে।
মমেক অধ্যক্ষ প্রফেসর ডাঃ চিত্তরঞ্জন দেবনাথ জানান, তার নেতৃতে মাইক্রোবাইলজি বিভাগের টীম অক্লান্ত পরিশ্রম সুদক্ষ নিরবচ্ছিন্ন কর্মতৎপরতার মাধ্যমে দেশে রেকর্ড পরিমাণ নমুনার পরীক্ষা করতে সক্ষম হয়েছে। স্বাধীনতা চিকিৎসক পরিষদ (স্বাচিপ) কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির মহাসচিব ডাঃ এম. এ আজিজ এর নিজ এলাকার আরটি পিসিআর ল্যাবটির সার্বক্ষণিক তদারকি, নির্দেশনা, আন্তরিক সহযোগীতা ও অনুপ্রেরণায় আমাদের কাজের গতি আরো বেড়েছে। মমেক-এ দুটি ল্যাবে স্থাপিত ৩টি আরটি পিসিআর মেশিনে ২৭জুন ১২টি শ্লটে সর্বোচ্চ ১হাজার ২২২টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে। সকাল ৯টা থেকে রাত ১২টা পর্যন্ত পরীক্ষা চলে।
তিনি আরো জানান, ২৭জুন পর্যন্ত মমেক-এ দুটি ল্যাবের ৩টি আরটি পিসিআর মেশিনে ২৭জুন পর্যন্ত মোট ৩১ হাজার ৫৪৭টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়, এতে ৩হাজার ১৩৫জন করোনা রোগী সনাক্ত হয়েছে। যা মোট নমুনার ৯.৯৩ শতাংশ করোনা পজিটিভ হয়েছে। মমেক মাইক্রোবায়োলজি বিভাগের বিভাগীয় প্রধান সহযোগী অধ্যাপক ডাঃ সালমা আহমেদ এর নেতৃত্বে একদল চৌকস মাইক্রোবায়োলজিস্টসহ মেডিকেল টেকনোলজিস্ট টীমের অক্লান্ত নিরবচ্ছিন্ন কর্মতৎপরতায় নমুনা পরীক্ষা এগিয়ে চলছে। স্বাধীনতা চিকিৎসক পরিষদের মহাসচিব ডাঃ এম এ আজিজ, বিএমএ ও স্বাচিপ নেতৃবৃন্দের সার্বক্ষণিক তদারকি ও আন্তরিক সহযোগীতার ফলে আমাদের কর্মউদ্দীপনা বৃদ্ধি পেয়েছে।
মমেক মাইক্রোবায়োলজি বিভাগের বিভাগীয় প্রধান সহযোগী অধ্যাপক ডাঃ সালমা আহমেদ জানান, করোনা ভাইরাসের নমুনা পরীক্ষার জন্য আরটি পিসিআর ল্যাবে নিয়োজিত মাইক্রোবায়োলজি বিভাগের টীমের মনোবল চাঙ্গা রাখতে স্বাচিপ মহাসচিব ডাঃ এম এ আজিজ ও মমেক অধ্যক্ষ ডাঃ চিত্তরঞ্জন দেবনাথ সারাক্ষণ অনুপ্রেরণা, উৎসাহ ও উদ্দীপণা দিয়ে যাচ্ছেন। যার প্রেক্ষিতে তারা আনন্দের সাথে কাজ করে যাচ্ছেন।
কেন্দ্রীয় বি.এম.এ করোনা মনিটরিং সেল বিভাগীয় প্রতিনিধি, জেলা বিএমএ সভাপতি, ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজের সাবেক অধ্যক্ষ প্রফেসর ডাঃ মতিউর রহমান ভূঁইয়া জানান, মাইক্রোবাইলজি বিভাগের টীম দিনরাত অক্লান্ত পরিশ্রম নিরবচ্ছিন্ন কর্মতৎপরতায় সেবা বৃদ্ধি পেয়েছে। দেশসেরা এই পারফরমেন্সের জন্য তাদের জাতীয়ভাবে মূল্যায়ন করা উচিত বলে মন্তব্য করেছেন চিকিৎসক নেতা ডাঃ মতিউর রহমান ভূঁইয়া।
স্বাধীনতা চিকিৎসক পরিষদ (স্বাচিপ) কেন্দ্রীয় পরিষদের ময়মনসিংহ বিভাগীয় করোনা মনিটরিং সেলের সমন্বয়ক ও বি.এম.এ ময়মনসিংহ জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক ডাঃ এইচ. এ. গোলন্দাজ তারা জানান, মাত্র ৩টি মেশিন দিয়ে অধিক সংখ্যক করোনার নমুনা পরীক্ষা দেশের আর কোথাও হয়নি। মমেক অধ্যক্ষ ডাঃ চিত্তরঞ্জন দেবনাথের নেতৃত্বে এবং তার আন্তরিক ও সুদক্ষ ব্যবস্থাপনার প্রেক্ষিতে পরীক্ষায় নিয়োজিত মাইক্রোবাইলজি বিভাগের টীম দিনরাত অক্লান্ত পরিশ্রম করে নিরবচ্ছিন্ন সেবা দিয়ে যাচ্ছেন। করোনা ভাইরাসের নমুনা পরীক্ষায় পিসিআর ল্যাবের সার্বক্ষণিক তদারকির জন্য ৫জন সিনিয়র দায়িত্বশীল অধ্যাপককে দায়িত্ব দিয়ে প্রজ্ঞার পরিচয় দিয়েছেন মমেক অধ্যক্ষ। একটি নতুন পিসিআর মেশিন বরাদ্দে এবং ময়মনসিংহে দেশের সর্বাধিক সংখ্যক করোনার পরীক্ষার উপযোগী পরিবেশ সৃষ্টির জন্য তিনি ময়মনসিংহবাসীর পক্ষ থেকে স্বাধীনতা চিকিৎসক পরিষদের মহাসচিব ডাঃ এম এ আজিজের প্রতি কৃতজ্ঞতা ও ধন্যবাদ জানান।

এদিকে মেডিকেল কলেজের আরটি পিসিআর ল্যাবে করোনা ভাইরাসের নমুনা পরীক্ষা তদারকিতে থাকা অধ্যাপকগণ হলেন, নেত্রকোণা মেডিকেল কলেজের অধ্যক্ষ অধ্যাপক ডাঃ শ্যামল কুমার পাল, মমেক কার্ডিওলজি বিভাগীয় প্রধান অধ্যাপক ডাঃ মোঃ আব্দুল বারী, ফার্মাকোলজি বিভাগীয় প্রধান অধ্যাপক ডাঃ শ্যামল কুমার সাহা, মমেক মাইক্রোবায়োলজি বিভাগীয় প্রধান সহযোগী অধ্যাপক ডাঃ সালমা আহমাদ ও সার্জারী বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ডাঃ মোঃ আবুল কালাম আজাদ।


আপনার মতামত জানান :

 
 
আরও পড়ুন

কপিরাইট © ময়মনসিংহ প্রতিদিন ডটকম - সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত | উন্নয়নে হোস্টপিও.কম