| |

সর্বশেষঃ

প্রতিমা বিসর্জনের মধ্যদিয়ে সনাতন ধর্মাবলম্বীদের শ্রী শ্রী শ্যামা পূজা সমাপ্ত

আপডেটঃ 9:03 pm | November 17, 2020

মোঃ রাসেল হোসেন, ময়মনসিংহ প্রতিদিন ডটকম : ময়মনসিংহে ব্রহ্মপুত্র নদে প্রতিমা নিরঞ্জনের মধ্যদিয়ে সনাতন ধর্মাবলম্বীদের ধর্মীয় উৎসব শ্রী শ্রী শ্যামা পূজা উৎসাহ উদ্দিপনার মধ্য দিয়ে শান্তিপূর্ন ভাবে শেষ হয়েছে। এদিন সকালে সিটি কর্পোরেশনের মেয়র মো: ইকরামুল হক টিটু নগরীর কাচারী ঘাটস্থ প্রতিমা বিসর্জনের স্থান স্বরজমিনে পরিদর্শণ করেন। এসময় সাথে ছিলেন প্রধান বর্জ্য ব্যবস্থাপনা কর্মকর্তা আরিফুর রহমান, সহকারি প্রকৌশলী বিদ্যুৎ জিল্লুর রহমান, মেডিকেল অফিসার ডা: এইচ কে দেবনাথ, স্বাস্থ্য ও স্যানিটেশন কর্মকর্তা দীপক মজুমদার, বর্জ্য ব্যবস্থাপনা কর্মকর্তা মোহাব্বত আলীসহ অন্যান্য কর্মকর্তা কর্মচারী বৃন্দ। গতকাল মঙ্গলবার (১৭ নভেম্বর) বিকেলে ময়মনসিংহ মহানগরী ও এর আশপাশের এলাকায় ব্্রহ্মপুত্র নদে ও পারিবারিক জলাশয়ে হিন্দু ধর্মাবলম্বীরা শ্যামা মাকে বিসর্জন দেয়। ময়মনসিংহ আর্যধর্ম জ্ঞান প্রদায়িনী সভা (ধর্মসভা) দূর্গাবাড়ী মন্দির কমিটির আয়োজনে মন্দির প্রাঙ্গন থেকে করোনা দূর্যোগের কারণে কোন মঙ্গল শুভাযাত্রা না হলেও পূজা উদ্যাপন পরিষদের নেতৃবৃন্দ ভক্তবৃন্দদের সাথে নিয়ে স্বাস্থ্যবিধি মেনে মুখে মাস্ক পরে প্রতিমা নিয়ে যাত্রা শুরু করে কাচারীঘাটস্থ ব্্রহ্মপুত্র নদের পাড়ে গিয়ে উপস্থিত হন। একই ভাবে নগরীর অন্যান্য মন্দিরের কমিটির নেতৃবৃন্দ ভক্তবৃন্দদের সাথে নিয়ে ব্রহ্মপুত্র নদের পাড়ে উপস্থিত হন এবং একে একে প্রতিমা বিসর্জন দেন। আর্যধর্ম জ্ঞান প্রদায়িনী সভা (ধর্মসভা) কমিটির সভাপতি প্রফেসর বিমল কান্তি দে, সাধাররণ সম্পাদক শংকর সাহা, দূর্গাবাড়ী পূজা উপ-কমিটির সম্পাদক শ্রী বিশ্বজিৎ চক্রবর্তীসহ পূজা উদযাপন কমিটি ও আর্যধর্ম জ্ঞান প্রদায়িনী সভা(ধর্মসভা) কমিটির নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। এদিকে ময়মনসিংহ সিটি কর্পোরেশনের আয়োজিনে কাচারীঘাটস্থ ব্্রহ্মপুত্র নদের পাড়ে বির্সজন ঘাটে মেয়র মোঃ ইকরামুল হক টিটু’র পক্ষ থেকে আগত প্রতিমা বির্সজনে আসা পুজারী ভক্তবৃন্দদের শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানানো হয়। বিশর্জন ঘাটে কোতোয়ালী মডেল থানার ওসি ফিরোজ তালুকদার, ১নং ফাঁড়ির ইনচার্জ মোহাম্মদ দুলাল আকন্দ, স্বাস্থ্য ও স্যানিটেশন কর্মকর্তা দীপক মুজুমদার, কাউন্সিলর ফারুক হাসান, শীতল সরকার, হামিদা পারভীন, সহ সিটি কর্পোরেশনের কাউন্সিলর, কর্মকর্তা, কর্মচারী জেলা উপজেলা প্রশাসনের কর্মকর্তা, স্থানীয় জনপ্রতিনিধি, পূজা উদ্যাপন পরিষদের নেতৃবৃন্দ সহ বিভিন্ন পূজামন্ডপের নেতৃবৃন্দ ছাড়াও বিপুল সংখ্যাক ভক্ত, দর্শনার্থী ও সর্বস্তরের মানুষ উপস্থিত ছিলেন।
প্রতিমা নিরঞ্জনকালে ঘাটে ও রাস্তায় সার্বিক আইন শৃঙ্খলা বজায় রাখতে বিপুল সংখ্যক পুলিশ, র‌্যাব, ফায়ার সার্ভিস টিম ও স্বেচ্ছা সেবক নিয়োজিত ছিলেন। এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত এ অঞ্চলে কোথাও কোন অপ্রীতিকর ঘটনার খবর পাওয়া যায়নি।

HostGator Web Hosting