| |

সর্বশেষঃ

যুবদল-ছাত্রদলের ৪ নেতাকর্মীকে তুলে নেওয়ার অভিযোগ

আপডেটঃ 3:00 pm | November 19, 2020

নিজস্ব প্রতিবেদক : বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক সৈয়দ এমরান সালেহ প্রিন্স অভিযোগ করে বলেছেন, গত তিনদিনে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর পরিচয়ে যুবদল ও ছাত্রদলের চার জন নেতাকর্মীকে তুলে নিয়ে যাওয়া হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (১৯ নভেম্বর) দুপুরে নয়াপল্টনে দলীয় কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে এ অভিযোগ করেন তিনি।

এমরান সালেহ বলেন, গত ১৭ নভেম্বর যুবদল নেতা লিয়ন হককে তার বাসা থেকে, গত ১৮ নভেম্বর সরকারের দায়ের করা মিথ্যা মামলায় হাইকোর্ট থেকে জামিন নিয়ে বের হওয়ার সময় তুরাগ থানা যুবদলের সাধারণ সম্পাদক মামুন পারভেজ তন্ময় এবং তার সঙ্গে তুরাগ থানা যুবদলের সহ-সভাপতি তৌহিদুল ইসলাম হাসিব এবং বুধবার সন্ধ্যায় উত্তরা ৫নং সেক্টর থেকে উত্তরা-পশ্চিম থানা যুবদলের সাধারণ সম্পাদক ফেরদৌস মজুমদার মাসুমকে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর পরিচয়ে সাদা পোশাকধারীরা উঠিয়ে নিয়ে গেছে।

এরপর থেকে সংশ্লিষ্ট থানাসহ ঢাকার বিভিন্ন থানা ও সংস্থার দফতরে যোগাযোগ করে খোঁজ নেওয়া হলে তাদের আটকের বিষয়টি অস্বীকার করছে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী।

এমরান সালেহ আরও বলেন, আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী এবং প্রশাসনকে কব্জায় নিয়ে দেশে চলছে আওয়ামী ফ্যাসিবাদ। নেতাকর্মীদের গুম করার ভয়ংকর সংস্কৃতি থেকে সরকারকে দূরে সরে আসতে হবে, নইলে এ দেশের মানুষ এর ন্যায্য হিস্যা আদায় করে ছাড়বে।

অবিলম্বে লিয়ন হক, মামুন পারভেজ তন্ময়, তৌহিদুল ইসলাম হাসিব এবং ফেরদৌস মজুমদার মাসুমকে জনসম্মুখে হাজির করার আহ্বান জানান তিনি। নইলে তাদের নিয়ে অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনার অবতারণা হলে এর দায়-দায়িত্ব সরকার ও আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীকেই বহন করতে হবে।

সংবাদ সম্মেলনে নিখোঁজ নেতাকর্মীদের পরিবারের সদস্যদের মধ্যে লিয়ন হকের বোন আফরোজা পারভিন জেবা, স্ত্রী নিশাত ফাতেমা নিশি, মেয়ে মারিয়া হক নিকি; ফেরদৌস মজুমদার মাসুমের মামা মো. সুমন; তৌহিদুল ইসলাম হাসিবের ভাই মুজাহিদুল ইসলাম সজীব উপস্থিত ছিলেন। এছাড়া দলীয় নেতাদের মধ্যে বিএনপির সহ-দপ্তর সম্পাদক তাইফুল ইসলাম টিপু, মুনির হোসেন, ঢাকা-১৮ জাতীয় সংসদ উপনির্বাচনে ধানের শীষের প্রার্থী এস এম জাহাঙ্গীর হোসেন উপস্থিত ছিলেন।

HostGator Web Hosting