| |

সর্বশেষঃ

পাকার আগেই মরছে ধান, বীজ কিনে প্রতারিত কৃষক

আপডেটঃ 2:50 pm | April 19, 2021

জামালপুর প্রতিনিধি : জামালপুরের সরিষাবাড়ী উপজেলার ডোয়াইল ইউপির ডিক্রিবন্দ ও মাজালিয়া গ্রামের কয়েক কৃষক ধানের বীজ কিনে ক্ষতির মুখে পড়েছেন। তিন একর জমির ধান সম্পূর্ণ নষ্ট হয়ে গেছে। তবে বিষয়টি ব্লাস্ট রোগ বলে ধারণা করছে উপজেলা কৃষি দফতর।

সরেজমিনে গিয়ে ক্ষতিগ্রস্ত কৃষকদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, উপজেলার ডোয়াইল ইউনিয়নের মাজালিয়া বাজারের ডিলার আফজাল হোসেনের মালিকানাধীন মেসার্স মা এন্টারপ্রাইজ থেকে স্থানীয়রা কৃষকরা চলতি মৌসুমে বোরো-৮১ জাতের ধানের বীজ কিনে জমিতে রোপণ করেন।

সম্প্রতি বীজ থেকে ধানের শীষ বের হলে সেগুলো মরা শুরু হয়। শীষগুলো পাকার আগেই মরে যাওয়ায় ডিক্রিবন্ধ (পূর্বপাড়া) গ্রামের মৃত হাতেম আলীর ছেলে কৃষক আজাহার আলী ও তার ভাই আব্দুর রাজ্জাকের প্রায় এক একর জমির ধান সম্পূর্ণ নষ্ট হয়ে যায়।

এছাড়া একই গ্রামের কৃষক পপুলার মিয়ার প্রায় ৬০ শতক ও সুরুজ্জামান খানের ৭৫ শতক এবং মাজালিয়া গ্রামের আব্দুল করিমের ১০ শতক জমির সব ধান নষ্ট হয়ে গেছে।

কৃষক পপুলার মিয়া জানান, তিনি ৬০ শতক জমি বর্গা নিয়ে চাষ করেছিলেন। ধান পাকার আগেই সব শীষ মরে যাওয়ায় চরম ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন।

আব্দুল করিম বলেন, তিনি দরিদ্র ভ্যানচালক। তার জমি বলতে মাত্র ১০ শতক। অনেক কষ্টে সেখানে ধান চাষ করে এখন পথে বসার উপক্রম বলে তিনি জানান।

কৃষক আজাহার আলী জানান, মাজালিয়া বাজারের ডিলার আফজাল হোসেনের দোকান থেকে বোরো-৮১ জাতের ১০ কেজি ওজনের প্রতি ব্যাগ বীজ ৭০০ টাকা করে কিনেছেন। ধানের চারা ঠিকমতো গজালেও শীষ গজানোর পর সেগুলোর মড়ক শুরু হয়। এখন সবগুলো শীষ মরে নষ্ট হয়ে গেছে। কৃষি অফিসের কর্মকর্তারা কয়েকবার ক্ষেত পরিদর্শন করলেও কোনো সমাধান আসেনি বলে ক্ষতিগ্রস্তরা অভিযোগ করেন।

এ ব্যাপারে মেসার্স মা এন্টারপ্রাইজের মালিক ডিলার আফজাল হোসেন জানান, ধান নষ্ট হয়ে গেলেও আমার দোষ নেই। আমি বিএডিসি থেকে বীজ এনে বিক্রি করেছি, বিষয়টি বিএডিসির দেখার দায়িত্ব।

উপজেলা কৃষি অফিসার কৃষিবিদ আব্দুল্লাহ্ আল মামুন পলাশ জানান, এটি ব্লাস্ট রোগজনিত কারণে হতে পারে। রোগটি বীজ থেকে হতে পারে বা বাতাসের মাধ্যমেও ছড়াতে পারে। আমাদের লোকজন ক্ষতিগ্রস্ত ক্ষেত দেখে এসেছে। ধানের শীষগুলো রক্ষার জন্য প্রয়োজনীয় পরামর্শ দেয়া হচ্ছে। যদি রক্ষা না হয় তবে কিছু করার নেই, তবে কোনো অনুদান এলে ক্ষতিগ্রস্ত কৃষকরা পেতে পারেন বলে তিনি জানান।

HostGator Web Hosting